শিবগঞ্জ সাব-রেজিস্ট্রারের বিরুদ্ধে অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ

আপডেট: জানুয়ারি ২০, ২০২১, ১০:৩০ অপরাহ্ণ

শিবগঞ্জ প্রতিনিধি:


চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ সাব-রেজিস্ট্রার ইউসুফ আলীর বিরুদ্ধে অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে। এ নিয়ে বুধবার (১৯ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় দলিল লেখক সমিতি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।
অভিযোগে জানা গেছে, গত বছরের ১৩ ডিসেম্বর ইউসুফ আলী শিবগঞ্জ সাব-রেজিস্ট্রার হিসেবে যোগদানের পর থেকে দলিলের বিভিন্ন সমস্যা সৃষ্টি করে ঘুষ দাবি করে আসছেন। এমনকি তিনি ইচ্ছাকৃতভাবে দলিল রেজিস্ট্রি করতে কালক্ষেপন করে রাত পর্যন্ত সাধারণ মানুষদের জিম্মি করে হয়রানি করছেন।
অভিযোগ আরও জানা গেছে, আইন অনুযায়ী ওয়ারেশ সূত্রে খারিজ হবে না, কিন্তু খারিজ করতে হলে বণ্টননামা দলিল প্রয়োজন। ওয়ারেশ সূত্রে আয়কর ছাড়া বা যেকোন আয়করসহ বণ্টননামা দলিল রেজিস্ট্রি করতে গেলে প্রকাশ্যে দলিল প্রতি ১০ হাজার থেকে ২০ হাজার টাকা চাপ দেয়ার অভিযোগ রয়েছে। পাশাপাশি মোহরার সেলিম রেজাকে হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করে দলিল গ্রহিতা বা পক্ষগণের কাছ থেকে ওই টাকা আদায় করে আসছেন। চলতি বছরের ১৯ জানুয়ারি দলিল লেখক তোসলিম উদ্দিনের মাধ্যমে পক্ষগণের কাছ থেকে ২ হাজার ঘুষ নেন মোহরার সেলিম রেজা। পরে বিষয়টি দলিল লেখক সমিতি জানতে পেরে সেলিম রেজার কাছ থেকে ওই ২ হাজার টাকা উদ্ধার করে। ওইদিন রাত ৭টার দিকে সাব-রেজিস্ট্রার নিকট সেলিমের ঘুষ নেয়ার বিষয়টি অবহিত করতে গেলে দলিল লেখক সমিতির ওপর হামলা চালায় নকল নবীশরা। এতে দলিল লেখক সমিতির মধ্যে ভীত আতঙ্ক অবস্থা বিরাজ করায় বুধবার থেকে অনিদিষ্টকালের জন্য সকল প্রকার রেজিস্ট্রার কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণা করেছেন দলিল লেখক সমিতি।
এ বিষয়ে জানতে মোহরার সেলিম রেজার মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি সংবাদকর্মীর সাথে দুর্ব্যবহার করেন। এতোকিছু তথ্য দিতে পারবো না বলে ফোনের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেন।
এদিকে সাব-রেজিস্ট্রার ইউসুফ আলীর সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, বিধি মোতাবেক দলিল রেজিস্ট্রি করা হচ্ছে। টাকা-পয়সা লেনদেনের সাথে তিনি জড়িত নন বলে দাবি করেন। পাশাপাশি দলিল লেখক সমিতি যে সমস্ত অভিযোগ করেছেন, সেগুলো সম্পূর্ণ মিথ্যা।
অপরদিকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাকিব আল-রাব্বি’র সঙ্গে মুঠোফোনে একাধিকবার চেষ্টা করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ