শিশুর জন্য একটু অবসর

আপডেট: নভেম্বর ১৯, ২০১৬, ১১:৩৪ অপরাহ্ণ


সোনার দেশ ডেস্ক
শিশুর অবসর আনন্দদায়ক এবং শিক্ষণীয় করে তোলার জন্য অভিভাবকদের উচিত শিশুটির পরীক্ষা শেষ হওয়ার আগেই প্রস্তুতি নেয়া। শিশুকে নিয়ে ঘুরে আসতে পারেন কোনো দর্শনীয় এবং ঐতিহাসিক স্থান। ঘুরতে যাওয়ার এখনই উৎকৃষ্ট মৌসুম। শিশুর জ্ঞান শুধু বইয়ের মধ্যে সীমাবদ্ধ না রেখে বিভিন্ন কৌশলে বাস্তবের সঙ্গেও পরিচয় করিয়ে দিতে হবে।
শিশুকে শিশুসুলভ বই কিনে দিন। শিশুকে সঙ্গে নিয়ে ভালো মানের শিশুতোষ সিনেমা দেখতে পারেন। বিভিন্ন আত্মীয়-পরিজনের বাসায় মাঝে মাঝে বেড়াতে যেতে পারেন। এতে শিশুর মানসিক বিকাশ ঘটবে এবং সামাজিকতা ও আত্মীয়তা সম্পর্কে ধারণা পাবে।
নতুন কিছু দেখলেই সে সম্পর্কে জানার ইচ্ছা শিশুদের মধ্যেই বেশি দেখা যায়। তাই শিশুদের জানার সুযোগ করে দিতে হবে। যারা ঢাকায় থাকেন তারা সুযোগ থাকলে শিশুকে নিয়ে ছুটিতে ঢাকার বাইরে থেকেও ঘুরে আসতে পারেন। যেতে পারেন সিলেট, চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, রাঙামাটি ও খুলনার সুন্দরবন। এসব জায়গায় অনেক কিছু দেখার ও শেখার আছে।
শিশু বইয়ে যা পড়ে তার সঙ্গে বাস্তবের মিল খুঁজে পেলে পড়ালেখায় অনেক আনন্দ খুঁজে পাবে। ঢাকার মধ্যেও অনেক ঘোরার জায়গা আছে। চিড়িয়াখানা, শিশু পার্ক, লালবাগের কেল্লা, জাদুঘর- এসব জায়গায় ঘুরতে নিয়ে যান। শিশু নতুন কিছু আবিষ্কার করতে শিখবে।
ঘুরতে যাওয়ার আগে শিশুর প্রয়োজনীয় জিনিস যেমন- জামাকাপড়, পেস্ট, ব্রাশ, তোয়ালে গুছিয়ে নিন। ঢাকায় তেমন শীত না পড়লেও ঢাকার বাইরে প্রতিবছরই প্রচুর শীত থাকে, তাই ঘুরতে যাওয়ার আগে প্রয়োজনীয় শীত পোশাক কিনে গুছিয়ে রাখতে ভুলবেন না। বিভিন্ন ধরনের শুকনো খাবার যেমন- ড্রাই কেক, পিঠা এগুলো আগেই বাসায় তৈরি করে রাখতে পারেন।
ঘোরার পথে বাইরের খোলা খাবার না খেয়ে বাসার তৈরি খাবার খাওয়াই উত্তম। বাসার ফোটানো পানি বোতলে ভরে নিয়ে যাবেন। পানি ফুরিয়ে গেলে ভালো ব্রান্ডের পানি কিনে পান করবেন। বাইরের খোলা পানি কখনও খাবেন না। একেক জায়গার পানি একেক রকমের, যেটা শিশুর শরীরের জন্য মোটেও উপযোগী নয়। এসব পানি খেয়ে শিশুরা নানা অসুখ-বিসুখে আক্রান্ত হতে পারে। তাই সবকিছুর প্রতিই নজর দিতে হবে। নিরাপদ এবং আনন্দে কাটুক শিশুর অবসর।