শিশু ধর্ষণচেষ্টা শিক্ষকের

আপডেট: এপ্রিল ৮, ২০১৭, ১:০০ পূর্বাহ্ণ

গোদাগাড়ী প্রতিনিধি


আট বছরের শিশুকে ধর্ষণ করতে গিয়ে এক শিক্ষক ধরা খেয়েছেন। আবু হেনা মো. রায়হান ওরফে রতন (৩৫) নামে ওই শিক্ষকের বাড়ি রাজশাহীর গোদাগাড়ী পৌরসভার মহিষালবাড়ি মহল্লায়। তার বাবার নাম মৃত ইসরাইল খান। রতন গোদাগাড়ী উপজেলার বাসুদেবপুর শহীদুন্নেশা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক। গতকাল শুক্রবার দুপুরে শিক্ষক রতনকে তার বাড়ি থেকে পুলিশ আটক করে থানায় নিয়ে গেছে। তার বিরুদ্ধে ধর্ষণের চেষ্টার মামলা দায়ের করেছেন শিশুটির মা।
গোদাগাড়ী থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আবদুল লতিফ জানান, শিক্ষক রতন তিনটি বিয়ে করেছিলেন। কিন্তু কারো সঙ্গেই তার সংসার টেকেনি। রতন বাড়িতে একাই থাকতেন এবং প্রাইভেট পড়াতেন। গতকাল জুম্মার নামাজের সময় রতন প্রতিবেশী এক শিশুকে আম খাওয়ানোর প্রলোভন দেখিয়ে তার বাড়িতে ডাকেন। এরপর ঘরের ভেতর নিয়ে শিশুটিকে ধর্ষণের চেষ্টা চালান। এ সময় ওই শিশু চিৎকার শুরু করলে স্থানীয় লোকজন তাকে হাতেনাতে ধরে ফেলেন। পরে খবর দেয়া হয় পুলিশে। এরপর পুলিশ তাকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।
গোদাগাড়ী মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হিপজুর আলম মুন্সি জানান, শিক্ষক রতনের প্রতিবেশী ওই শিশুটি স্থানীয় একটি স্কুলের তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রী। ওই শিশুর মা শিক্ষক রতনের বিরুদ্ধে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে মামলা দায়ের করেছেন। মামলার পর তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।
বিষয়টি নিয়ে জানতে চাইলে বাসুদেবপুর শহীদুন্নেশা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোকসেদুল হাসান স্বীকার করেন রতন তার স্কুলের সহকারী শিক্ষক। তবে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে তিনি আটক হয়েছেন কী না তা তার জানা নেই বলে দাবি করেন। এমন ঘটনা ঘটলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানান তিনি।