শিয়া মুসলিমদের উপর নারকীয় অত্যাচার, এবার হাজারাদের বাস্তুভিটে কেড়ে নিচ্ছে তালিবান

আপডেট: অক্টোবর ২৫, ২০২১, ২:৩৯ অপরাহ্ণ


সোনার দেশ ডেস্ক


তালিবান ক্ষমতায় ফিরতেই অন্ধকার গ্রাস করেছে আফগানিস্তানকে। আর আশঙ্কা সত্যি করেই এবার শিয়া স¤প্রদায়কে নিশানা করেছে সুন্নি জঙ্গি সংগঠনটি। জানা গিয়েছে, এবার আফগানিস্তানে সংখ্যালঘু হাজারাদের বাড়িঘর কেড়ে নিয়ে তাঁদের উপর নারকীয় অত্যাচার শুরু করেছে তালিবান।
আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠন ‘Human Rights Watch ’ জানিয়েছে, আফগানিস্তানে হাজারাদের উপর নিপীড়নের মাত্রা চরমে পৌঁছেছে। এই বিষয়ে সংস্থাটির অ্যাসোসিয়েট এশিয়া ডিরেক্টর প্যাট্রিসিয়া গুজম্যান বলেন, “হাজরাদের জোর করে বাস্তুচ্যুত করছে তালিবান।

তালিবান সমর্থকদের খুশি করতেই এই কাজ করছে জঙ্গিরা। কেড়ে নেওয়া জমি ও বাড়ি নিজেদের সমর্থকদের মধ্যে বিলিয়ে দিচ্ছে তালিবরা।” বলে রাখা ভাল, আফগানিস্তানের মোট জনসংখ্যা প্রায় ৩ কোটি ৬০ লক্ষ। এরমধ্যে ৯ শতাংশ হাজারা রয়েছে। সুন্নি সংখ্যাগুরু দেশটিতে বরাবরই অত্যাচারের শিকার হয়ে আসছে শিয়া মতের অনুগামী হাজারা মুসলমানরা।

উল্লেখ্য, কয়েকদিন আগে অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল’-এর এক রিপোর্টে দাবি করা হয়, গত ৩০ আগস্ট সংখ্যালঘু হাজারা স¤প্রদায়ের ১৩ সদস্যকে হত্যা করেছিল তালিবান। তার মধ্যে ছিল এক ১৭ বছরের কিশোরীও। যা থেকে পরিষ্কার প্রত্যাবর্তনের গোড়া থেকেই নিজেদের স্বভাবে কোনও পরিবর্তন করার ইচ্ছাটুকুও ছিল না তালিবানের। রিপোর্ট থেকে জানা যাচ্ছে, গত ৩০ আগস্ট আফগানিস্তানের খিদির জেলায় প্রবেশ করে অন্তত ৩০০ তালিব যোদ্ধা। তারপরই শুরু হয় অবাধ হত্যালীলা।

বিগত দিনে আফগানিস্তানে একাধিক শিয়া মসজিদে হামলা চালিয়েছে ইসলামিক স্টেট। স¤প্রতি, কান্দাহারে একটি শিয়া মসজিদে আত্মঘাতী বিস্ফোরণ ঘটায় আইএস। ওই হামলায় মৃত্যু হয় কমপক্ষে ৩০ জনের। বিশ্লেষকদের মতে, শিয়া স¤প্রদায়ের মানুষজনকে মুসলিম বলে গণ্য করে না সুন্নি জঙ্গিরা। ফলে বরাবরই আফগানিস্তানে হাজারা জনগোষ্ঠীর মানুষরা তালিবান ও আইএস-এর হামলার শিকার হয়ে আসছে।
তথ্যসূত্র: সংবাদ প্রতিদিন

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ