শুদ্ধি অভিযান অব্যাহত চায় তৃণমূল

আপডেট: জানুয়ারি ১৮, ২০২০, ১:১২ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


দলে চলমান শুদ্ধি অভিযান অব্যাহত রাখার দাবি জানিয়ে সম্মেলনে যোগ দেয়া তৃণমূলেরনেতারা বলেছেন, ‘দলীয় পদ ব্যবহার করে কেউ যাতে ব্যক্তিস্বার্থ হাসিল করতে না পারে, সে বিষয়ে দলের সজাগ থাকতে হবে।’
শনিবার রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে আওয়ামী লীগের ২১তম জাতীয় সম্মেলনে বক্তব্যের সুযোগ পেয়ে নিজেদের বক্তব্য তুলে ধরেন বিভিন্ন জেলার সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকরা।
খুলনা, বরিশাল, রংপুর, রাজশাহী, সিলেট বিভাগের একজন করে এবং চট্টগ্রাম বিভাগের দুজন বক্তব্য রাখেন। যারা জেলা সম্মেলনগুলোতে নতুন সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন, তাদের মধ্য থেকে কয়েকজনেক বক্তব্য দেয়ার সুযোগ দেয়া হয়।
সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি মাসুদ উদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘দীর্ঘদিন ক্ষমতায় থাকার কারণে আওয়ামী লীগে অনুপ্রবেশকারী ঢুকে পড়েছে। এদের বিষয়ে সতর্ক থাকতে হবে। যারা দলভারী করার জন্য অনুপ্রবেশ ঘটাচ্ছে তাদেরকে চিহ্নিত করে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানাচ্ছি।’
তিনি বলেন, ‘মাননীয় নেত্রী, আপনি তো সব বিষয়েই খেয়াল রাখেন। তবু রাজাকারের তালিকায় যেনো কোনো মুক্তিযোদ্ধার নাম না আসে আর মুক্তিযোদ্ধা তালিকায় যেনো রাজাকারের নাম না আসে। এটা খুব কষ্টের।’
এ সময় আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার দীর্ঘায়ু কামনা করে তিনি বলেন, ‘আমরা উনার কাছে কিছু চাই না। আমরা চাই আল্লাহ যেন উনাকে বাঁচিয়ে রাখেন। উনি বেঁচে থাকলে কাউকে কিছু চাইতে হবে না।’
খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট সুজিত অধিকারী বলেন, ‘দলীয় পদ ব্যবহার করে কেউ যাতে ব্যক্তিস্বার্থ চরিতার্থ না করতে না পারে, সেই ব্যবস্থা নিতে হবে। জীবনের শেষ রক্তবিন্দু দিয়ে হলেও সংগঠনকে শক্তিশালী করতে যা যা প্রয়োজন তা করে যাব।’
সম্মেলনে আরো বক্তব্য দেন ঠাকুরগাঁও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সাদেক কোরাইশি, রাজশাহী জেলার সভাপতি মেরাজ মোল্লা, কুমিল্লা উত্তর জেলার সভাপতি রুহুল আমিন, পটুয়াখালী জেলার সভাপতি কাজী আলমগীর হোসেন ও বান্দরবান জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি কশৈহ্লা।
জেলার নেতারা তাদের বক্তব্যে আওয়ামী লীগকে তৃণমূল পর্যায়ে আরো শক্তিশালী করার প্রতিশ্রুতি দেন। এ সময় দলের সভাপতি শেখ হাসিনা সরকারের উন্নয়ণচিত্র তৃণমূলের মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে নেতাদের প্রতি আহ্বান জানান।
সম্মেলনের দ্বিতীয় দিনের এই অধিবেশনে সভাপতিত্ব করেন আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা। তিনিই নাম ধরে ধরে জেলার নেতাদের বক্তব্য দেয়ার আমন্ত্রণ জানান।
তথ্যসূত্র: রাইজিংবিডি