শুরুর ধাক্কা সামলে ঘুরে দাঁড়িয়েছে শ্রীলঙ্কা

আপডেট: সেপ্টেম্বর ২৯, ২০১৭, ১২:০৭ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


ভারতের বিপক্ষে ঘরের মাঠে কঠিন পরীক্ষা দিতে হয়েছিল শ্রীলঙ্কাকে। সতীর্থদের ব্যর্থতার মাঝে ব্যাট হাতে অবশ্য ছন্দে ছিলেন দিমুথ করুণারতেœ। পাকিস্তানের বিপক্ষে আবুধাবি টেস্টেও আরেকবার জ্বলে উঠল এই ওপেনারের ব্যাট। যাতে বিপর্যয় কাটিয়ে প্রথম দিনটা শেষ করেছে সফরকারীরা স্বস্তিতে। একটুর জন্য সেঞ্চুরি মিস করা করুণারতেœর ৯৩ রানের ইনিংসের পর অধিনায়ক দিনেশ চান্ডিমালের হার না মানা হাফসেঞ্চুরির ওপর ভর দিয়ে শ্রীলঙ্কা দিন শেষ করেছে ৪ উইকেটে ২২৭ রানে।
ইয়াসির শাহর ঘূর্ণিতে দিনের শুরুতে এলোমেলো হয়ে গিয়েছিল টস জিতে ব্যাটিংয়ে নামা শ্রীলঙ্কা। এই স্পিনার শুরুতেই তুলে নেন সফরকারীদের ২ উইকেট। পাকিস্তানকে প্রথম উইকেট এনে দিয়েছিলেন অবশ্য হাসান আলী। দীর্ঘদিন পর দলে ফেরা কৌশল সিলভাকে (১২) বোল্ড করে সাজঘরে ফেরান এই পেসার। কৌশলের মতো অনেক দিন পর টেস্ট দলে ফিরেছেন লাহিরু থিরিমানে। তার অবস্থা তো আরও খারাপ! রানের খাতা খেলার আগেই ইয়াসিরের ঘূর্ণিতে পড়েন এলবিডাব্লিউয়ের ফাঁদে।
শুরুর ধাক্কা কাটিয়ে উঠতে মাঠে নামা কুশল মেন্ডিসও পারেন নি। ইয়াসিরের দ্বিতীয় শিকার হয়ে ব্যক্তিগত ১০ রানে যখন তিনি মাঠ ছাড়েন, তখন শ্রীলঙ্কার স্কোর ৩ উইকেটে ৬১। আবারও শঙ্কার মেঘ জন্মে শ্রীলঙ্কার আকাশে। ভারতের বিপক্ষে তিন ম্যাচের টেস্ট সিরিজে যে দৃশ্য দেখতে হয়েছে তাদের বারবার। তবে ওপেনার করুণারতেœ ও চান্ডিমাল হতে দেননি তা।
এক প্রান্তে দাঁড়িয়ে সতীর্থদের আসা-যাওয়া দেখা করুণারতেœ করে গেছেন নিজের স্বভাবসুলভ ব্যাটিং। টেস্ট ক্যারিয়ারের ১৩তম হাফসেঞ্চুরি পূরণ করে হাঁটছিলেন সেঞ্চুরির দিকেও। যদিও হয়নি তা, দুর্ভাগ্যজনক রান আউটের শিকার হয়ে প্যাভিলিয়নে ফেরেন ৯৩ রান করে। ২০৫ বলের ধৈর্যশীল ইনিংসটি এই ওপেনার সাজিয়েছেন ৫ বাউন্ডারিতে। আউট হওয়ার আগে অবশ্য চতুর্থ উইকেটে চান্ডিমালের সঙ্গে গড়ে যান গুরুত্বপূর্ণ ১০০ রানের জুটি। করুণারতেœ আউটের পর শ্রীলঙ্কান অধিনায়কও তুলে নেন টেস্ট ক্যারিয়ারের ১৩তম হাফসেঞ্চুরি। ৬০ রানে অপরাজিত থাকা চান্ডিমালকে যোগ্য সঙ্গ দিয়ে যাচ্ছেন নিরোশান ডিকবিলা। এই উইকেটরক্ষক দিন শেষ করেছেন ৪২* রানে। ক্রিকইনফো, বাংলা ট্রিবিউন
সংক্ষিপ্ত স্কোর:
(প্রথম দিন শেষে)
শ্রীলঙ্কা: প্রথম ইনিংস ৯০ ওভারে ২২৭/৪ (করুণারতেœ ৯৩, চান্ডিমাল ৬০*, ডিকবিলা ৪২*, কৌশল ১২, কুশল ১০; ইয়াসির ২/৫৯, হাসান ১/৫৮)।