শুরু হচ্ছে প্রথম রাজশাহী আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব ।। চলছে শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি

আপডেট: মার্চ ১০, ২০১৭, ১২:০৯ পূর্বাহ্ণ

শামীউল আলীম শাওন



উত্তরবঙ্গের চলচ্চিত্র শিল্পের বিকাশ এবং চলচ্চিত্র শিল্পের বিকেন্দ্রীকরণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে রাজশাহী। আর তাই এ রাজশাহীতে প্রথমবারের মত অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে ‘প্রথম রাজশাহী আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব -২০১৭’। আগামী ১৭ মার্চ এ উৎসব শুরু হবে। উৎসব চলবে ২১ মার্চ পর্যন্ত। পাঁচ দিনব্যাপী এ উৎসবের আয়োজন করছে রাজশাহী ফিল্ম সোসাইটি। একযোগে রাজশাহীর লালন শাহ মুক্তমঞ্চ, বড়কুঠি মুক্তমঞ্চ এবং রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসিসি মিলনায়তন এই তিনটি ভেন্যুতে এ চলচ্চিত্র উৎসব অনুষ্ঠিত হবে।
আন্তর্জাতিক এ চলচ্চিত্র উৎসবের আয়োজনকে কেন্দ্র করে ব্যস্ত সময় পার করছেন এই উৎসবের আয়োজকরা। নির্মাতাদের কাছে থেকে চলচ্চিত্র সংগ্রহ, সেগুলো যাচাই-বাছাই করা, সংরক্ষণ করা সহ নানা গুরুত্বপূর্ণ কাজে অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন তারা। এছাড়াও উৎসবের আমন্ত্রণ পত্র, ব্যানার, পোস্টার তৈরির কাজও চলছে বেশ জোরেসোরে।
উৎসবের আয়োজকদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, উত্তরবঙ্গ থেকে এ পর্যন্ত ২০টিরও বেশি স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র জমা পরেছে এই চলচ্চিত্র উৎসবে। তবে উৎসবের জন্য উত্তরবঙ্গের আরও চলচ্চিত্র জমা পরবে। সেগুলোর মধ্যে থেকে বাছাইয়ের মাধ্যমে ১৫টি চলচ্চিত্রকে অফিসিয়ালভাবে উৎসবের জন্য সিলেকশন দেয়া হবে। এ চলচ্চিত্রগুলোর মধ্যে থেকে প্রতিযোগিতার মাধ্যমে বেস্ট ফিল্ম নির্বাচিত করা হবে এবং বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে পুরষ্কার প্রদান করা হবে।
উৎসবের আয়োজকরা জানান, উৎসবে তিনটি ক্যাটাগরির দেশি-বিদেশি মোট ৪০টি চলচ্চিত্র প্রদর্শিত হবে। যার মধ্যে থাকবে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ২৫টি, উত্তরবঙ্গের স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ১৫টি এবং পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ৬টি। তবে পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রের মধ্যে বাংলাদেশের চলচ্চিত্র রয়েছে ৪টা আর বাকি দুটি ভারতের চলচ্চিত্র। এছাড়াও উৎসবের সমাপনী দিনে উপমহাদেশের প্রখ্যাত কথাসাহিত্যিক অধ্যাপক হাসান আজিজুল হককে নিয়ে নির্মিত ‘গল্প লেখকের অসামান্য চিত্রকর’ শিরোনামের একটি ডকুফিকশন প্রদর্শিত হবে বলেও জানান আয়োজকরা।
রাজশাহী ফিল্ম সোসাইটি সূত্রে জানা গেছে, দুই দিনে রাজশাহীর দুটি স্থানে এ চলচ্চিত্র উৎসবের উদ্বোধন করা হবে। আগামী ১৭ মার্চ বিকেলে নগরীর পাঠানপাড়াস্থ লালন শাহ মুক্তমঞ্চে পাঁচ দিনব্যাপী এ আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের উদ্বোধন করা হবে। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন, নাট্যজন ও চলচ্চিত্র নির্মাতা মনির উদ্দিন ইউসুফ বাচ্চু, সাংসদ ফজলে হোসেন বাদশা, চলচ্চিত্র নির্মাতা নোমান রবিন। এছাড়াও উপস্থিত থাকবেন, ঋত্বিক ঘটক ফিল্ম সোসাইটির সভাপতি ডা. এফএমএ জাহিদ, উৎসব পরিচালক সুলতানুল ইসলাম টিপু, ড্রিম মেকিং প্রডাকশনের চেয়ারম্যান ও উৎসব কমিটির সদস্য সচিব শাহরিয়ার চয়ন, রাজশাহী ফিল্ম সোসাইটির সাধারণ সম্পাদক ও প্রবীণ ফটোসাংবাদিক জাবীদ অপু। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করবেন, ফেডারেশন অব ফিল্ম সোসাইটি অব বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় কমিটির নির্বাহী সদস্য ও রাজশাহী ফিল্ম সোসাইটির সভাপতি আহসান কবীর লিটন। পরের দিন ১৮ মার্চ বিকেলে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসিসিতে উৎসবের বিশ্ববিদ্যালয় ভেন্যুর উদ্বোধন করা হবে। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবে, নগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এএইচএম খায়রুজামান লিটন। বিশেষ অতিথি হিসেবে থাকবেন, নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার। এছাড়াও ভারতের তিনজন চলচ্চিত্র ব্যক্তিত্ব এসময় উপস্থিত থাকবেন।
এদিকে এ উৎসব সফল করতে গঠন করা হয়েছে উৎসব আয়োজক কমিটি ও জুড়ি বোর্ড। উৎসব আয়োজক কমিটিতে আহবায়ক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন আহসান কবীর লিটন, উৎসব সচিবের দায়িত্ব পালন করছেন শাহারিয়ার চয়ন, যুগ্ম উৎসব সচিবের দায়িত্ব পালন করছেন জিহাদ খাঁন, উৎসব পরিচালকের দায়িত্বে রয়েছেন সুলতানুল ইসলাম টিপু, উৎসব সমন্বয়কারীর দায়িত্বে রয়েছেন এসকে আফ্রিদি, উৎসব প্রোগ্রামারের দায়িত্বে রয়েছেন সঞ্জু শেখ, গণমাধ্যম সহায়তাকারীর দায়িত্বে রয়েছেন সাংবাদিক শামীউল আলীম শাওন এবং উৎসব সদস্য হিসেবে রয়েছে যথাক্রমে- রাজীব রাজ, আলভী খান, শাহারিয়া হাসান শুভ, ঈশির রাজ, আনামিকা আক্তার মিথিলা ও পুজা সরকার। আর জুড়ি বোর্ডে আহ্বায়ক হিসেবে রয়েছেন সাংবাদিক শিবলী নোমান, সদস্য হিসেবে রয়েছেন, প্রবীণ ফটোসাংবাদিক জাবীদ অপু ও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ড. সাজ্জাদ বকুল।
রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসিসিতে পাঁচ দিনব্যাপি এ আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের সমাপনী অনুষ্ঠিত হবে ২১ মার্চ। সমাপনী অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন, উপমহাদেশের প্রখ্যাত কথাসাহিত্যিক অধ্যাপক হাসান আজিজুল হক, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মিজানউদ্দিন, ফেডারেশন অব ফিল্ম অব বাংলাদেশের সাধারণ সম্পাদক বেলায়েত হোসেন মামুন ও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় চলচ্চিত্র সংসদের সভাপতি ড. সাজ্জাদ বকুল।
রাজশাহী আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব সম্পর্কে জানতে চাইলে রাজশাহী ফিল্ম সোসাইটির সভাপতি আহসান কবীর লিটন সোনার দেশকে বলেন, ‘রাজশাহীকে কেন্দ্র করে উত্তরবঙ্গের চলচ্চিত্র শিল্পের বিকাশ ঘটানো এবং চলচ্চিত্র শিল্পের বিকেন্দ্রীকরণকে ত্বরান্বিত করার লক্ষ্যে এ উৎসবের আয়োজন। এখন থেকে প্রতিবছরই রাজশাহীতে এই আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের আয়োজন করা হবে।’