শুরু হলো রাজশাহী মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের পথচলা

আপডেট: জুলাই ৯, ২০১৭, ১:৩৭ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক


রাজশাহীবাসীর বহু প্রত্যাশিত রাজশাহী মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের পথচলা শুরু হয়েছে। গত ৫ জুলাই রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ক্যাম্পাসের অভ্যন্তরে বিভাগীয় কন্টিনিউইং এডুকেশন সেন্টারের (ডিসিইসি) দ্বিতীয় তলায় এ বিশ্ববিদ্যালয়ের অস্থায়ী কার্যালয় চালু করা হয়েছে। এখন থেকে এ অস্থায়ী কার্যালয় থেকেই চলবে বিশ্ববিদ্যালয়ের দাফতরিক কার্যক্রম। এর আগে গত ৮জুন জাতীয় চক্ষু বিজ্ঞান ইনস্টিটিউট (এনআই) ঢাকায় একটি লিঁয়াজো অফিসও চালু হয়েছে। মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডা. মাসুম হাবিবের সাথে কথা বলে এসব তথ্য জানা গেছে।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, দেশের চিকিৎসা ক্ষেত্রে উচ্চশিক্ষা, গবেষণা, সেবার মান ও সুযোগ-সুবিধা সম্প্রসারণ এবং উন্নয়নের জন্য সরকার রাজশাহী ও চট্টগ্রামে দু’টি মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের উদ্যোগ নেয়। এ লক্ষ্যে গত বছরের ১২ মে রাজশাহী ও চট্টগ্রাম মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের গেজেট প্রকাশিত হয়। এরপর চলতি বছরের ১০এপ্রিল নিয়োগ দেয়া হয় উপাচার্য। ৩০এপ্রিল রাজশাহী মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম উপাচার্য হিসেবে যোগদান করেন ডা. মাসুম হাবিব।
উপাচার্য জানান, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ী দ্রুতগতিতে এগিয়ে চলছে রাজশাহী মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার কাজ। এরই মধ্যে দাফতরিক কার্যক্রম পরিচালনার জন্য ঢাকায় লিঁয়াজো অফিসসহ রাজশাহীতে অস্থায়ী কার্যালয় চালু করা হয়েছে। ইতোমধ্যে স্বাস্থ্যমন্ত্রী, স্থানীয় নেতৃবৃন্দ ও প্রশাসনের সম্মিলিত সহযোগিতায় বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল ক্যাম্পাসের জন্য নগরীর নওদাপাড়া বাসস্ট্যান্ড এলাকায় জায়গা নির্বাচন করা হয়েছে।
তিনি বলেন, খুব শিগগিরই ওই এলাকার প্রায় ৫০ একর জমি অধিগ্রহণের প্রশাসনিক অনুমোদনের জন্য স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে প্রস্তাব দেয়া হবে। আর জমি অধিগ্রহণের পরপরই শুরু হবে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভবন নির্মাণের কাজ। তবে অস্থায়ী কার্যালয় থেকেই রাজশাহী, রংপুর ও খুলনা বিভাগের সব সরকারি-বেসরকারি মেডিকেল কলেজ ও ডেন্টাল কলেজের আগামী সেশনের এমবিবিএস শিক্ষার্থীদের প্রশাসনিক কার্যক্রম পরিচালিত হবে। পর্যায়ক্রমে এ তিন বিভাগের নার্সিং কলেজ ও ইনস্টিটিউটসহ সব মেডিকেল প্রতিষ্ঠান রাজশাহী মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত হবে বলে ভিসি জানান।
তিনি আরো জানান, এ মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে মেডিসিন, সার্জারি, বেসিক সাইন্স ও প্যারা ক্লিনিক্যাল সাইন্স, ডেন্টাল, নার্সিং, বায়োটেকনোলজি ও বায়োমেডিকেল ইঞ্জিনিয়ারিং, মেডিকেল টেকনোলজি ও প্রিভেনটিভ এন্ড সোশ্যাল মেডিসিন অনুষদের মাধমে আধুনিক চিকিৎসা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির যে কোনো বিষয়ে ¯্নাতকোত্তর শিক্ষা ও গবেষণার ব্যবস্থা থাকবে। বিশ্ববিদ্যালয়ের সাথে এক হাজার শয্যার একটি অত্যাধুনিক হাসপাতাল সংযুক্ত থাকবে। সেখানে কম খরচে স্পেশালাইজড চিকিৎসা সেবা পাবে এ অঞ্চলের রোগিরা। সেই সাথে দক্ষ নার্স তৈরির লক্ষে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে একটি নার্সিং ইনস্টিটিউটও স্থাপন করা হবে বলে ভিসি জানান ।
এক প্রশ্নের জবাবে উপাচার্য মাসুম হাবিব বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ী চিকিৎসা ক্ষেত্রে গবেষণা ও চিকিৎসা সেবায় দক্ষ জনশক্তি গড়ে তোলার লক্ষে যা যা করণীয় তা করতে সচেষ্ট থাকব। আর এতে সব শ্রেণি-পেশার মানুষের সরাসরি সম্পৃক্ততা চান তিনি। তিনি বলেন, এবিষয়ে সার্বিক সহযোগিতার জন্য ইতোমধ্যে বিভাগীয় কমিশনার, জেলা প্রশাসক, আরডিএর চেয়ারম্যান, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও বিএমএ’র নেতৃবৃন্দের সাথে কথা বলেছি। রাজশাহীবাসী কেমন মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় চান- এনিয়ে শিগগিরই সব শ্রেণি-পেশার মানুষের সাথে মতবিনিময় করা হবে বলে তিনি জানান।