শেষ মুহূর্তের দুই গোলে শ্রীলঙ্কাকে হারালো ফিলিস্তিন

আপডেট: জানুয়ারি ১৮, ২০২০, ১:০০ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ফিলিস্তিনকে প্রায় রুখেই দিয়েছিল শ্রীলঙ্কা। কিন্তু শেষ চার মিনিটে তাদের প্রতিরোধ আর টেকেনি। হার মানতে হয়েছে। শুক্রবার বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপে ফিলিস্তিন ২-০ গোলে শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে প্রথম দল হিসেবে সেমিফাইনালে জায়গা করে নিয়েছে।
এ গ্রুপে দুই ম্যাচে ৬ পয়েন্ট নিয়ে ফিলিস্তিন সেরা। এক ম্যাচ খেলে পাকির আলীর দলের শূন্য পয়েন্ট। স্বাগতিক বাংলাদেশও এক ম্যাচ খেলেছে, পয়েন্টের খাতা খুলতে পারেনি। এখন গ্রুপের শেষ ম্যাচে আগামী রোববার বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কা মুখোমুখি হবে। সেই ম্যাচে জিতলেই বাংলাদেশ নকআউট পর্বে চলে যাবে। অবশ্য ড্র করলেও থাকবে সম্ভাবনা। সেক্ষেত্রে নির্ধারিত ৯০ মিনিটের ম্যাচ শেষে হবে টাইব্রেকার।
বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে শুরুতেই এগিয়ে যেতে পারত ফিলিস্তিন। ম্যাচের ৩ মিনিটের সময় সামি আল মাসালমার ক্রস গোলকিপারের শরীরে প্রতিহত হয়। ফিরতি বলে রেবাল দাহামাসির ব্যাকভলি অল্পের জন্য পোস্টের পাশ দিয়ে যায়। এ ছাড়া চ্যাম্পিয়ন দলের কয়েকটি প্রচেষ্টা প্রতিহত করতে সমর্থ হয় লঙ্কান ডিফেন্ডাররা।
দ্বিতীয়ার্ধেও আক্রমণ অব্যাহত রাখে ফিলিস্তিন। ৫৫ মিনিটে সামির হেড গোললাইন থেকে ফেরায় শ্রীলঙ্কার এক ডিফেন্ডার। ফিলিস্তিনের আরেকটি সুযোগ নষ্ট হয় ৭১ মিনিটে। দাউদ ইরাকির শট রুখে দিয়েছেন শ্রীলঙ্কান গোলকিপার।
দ্বিতীয়ার্ধের যোগ হওয়া সময়ে গোলের দেখা পায় ফিলিস্তিন। সামেহ মারাবাহর ক্রসে মাহমুদ আবুরাদার বুলেট গতির হেড জালে জড়ায়। এরপর প্রতিআক্রমণ থেকে খালেদ সালেম লক্ষ্যভেদ করলে তিন পয়েন্ট নিশ্চিত হয় দলের।
ম্যাচ জিতে ফিলিস্তিনের সহকারী কোচ ফাহাদ আত্তেল উচ্ছ্বসিত, ‘সেমিফাইনালে উঠতে পেরে আমরা বেশ খুশি। এখন ফাইনাল আমাদের আমাদের।’
শ্রীলঙ্কার কোচ পাকির আলী ম্যাচ হেরে হতাশ, তবে সেমিতে ওঠার আশা ছাড়েননি ‘শেষের দিকে দুই গোল হজম করতে হয়েছে। এ ছাড়া ভালোই খেলছিলাম। এখন শেষ ম্যাচে বাংলাদেশের বিপক্ষে ভালো খেলে নকআউট পর্বে যেতে চাই।’