শেষ যাত্রায় সান্তিয়াগোর পথে ফিদেল কাস্ত্রোর দেহভস্ম

আপডেট: ডিসেম্বর ২, ২০১৬, ১২:০৮ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক



কিউবার প্রয়াত বিপ্লবী নেতা ফিদেল কাস্ত্রোর দেহভস্মবাহী একটি শকট রাজধানী হাভানা ছেড়ে দেশের পূর্বাঞ্চলের চূড়ান্ত গন্তব্যের পথে রওয়ানা হয়েছে। বুধবার হাভানা ছেড়ে শকটটি কিউবার পূর্বাঞ্চলীয় সান্তিয়াগো দ্য ক্যুবার পথে যাত্রা শুরু করে, এই সান্তিয়াগো দ্য ক্যুবা থেকেই ষাট বছর আগে ফিদেল কিউবার গণমানুষের মুক্তির স্বপ্নে বিপ্লবী যাত্রা শুরু করেছিলেন।
‘কিউবাকে কিউবাবাসীর কাছে ফিরিয়ে দিয়ে’, তাদের স্বাস্থ্য ও শিক্ষা ব্যবস্থাকে বিশ্বমানে পৌঁছে দিয়ে ‘কমাদান্তে’ যাচ্ছেন বিশ্রামে, তাই রাস্তায় পাশে দাঁড়িয়ে থাকা কিউবানরা ছোট ছোট জাতীয় পতাকা দুলিয়ে ‘ফিদেল!, ফিদেল!’ শ্লোগানে তাকে বিদায় জানাচ্ছেন; এমন দৃশ্যই দেখা গেছে বুধবার দিনজুড়ে।
ফিদেল কাস্ত্রোর দেহভস্ম নিয়ে গাড়িবহর সান্তিয়াগো দ্য ক্যুবার দিকে রওয়ানা হয়েছে; ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৬। রয়টার্স
৪৯ বছর ধরে ক্যারিশমা ও লৌহকঠিন ইচ্ছাশক্তি দিয়ে দেশ শাসন করছেন ফিদেল। পুঁজিবাদের কেন্দ্রস্থল যুক্তরাষ্ট্রের নাকের ডগায় একটি কমিউনিস্ট রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করে যুগের পর যুগ ধরে তাকে মর্যাদার সঙ্গে টিকিয়ে রেখেছেন।
২০০৬ সালে স্বাস্থ্যগত কারণে বিপ্লবী সঙ্গী ছোট ভাই রাউল কাস্ত্রোর কাছে ক্ষমতা হস্তান্তর করে অবসর জীবনযাপন করছিলেন ফিদেল, শুক্রবার ৯০ বছর বয়সে মারা যান তিনি।
হাভানার ১৬০ কিলোমিটার পূর্বের জোভেলানোস টাউনের বাসিন্দা গুইলেরমো কাদিজ (৮৩) বলেন, “ফিদেল কিউবার সবকিছু ছিলেন, আমরা তার অভাব বোধ করবো।”
পূর্বাঞ্চলীয় সিয়েরা মায়েস্ত্রা পবর্তমালার বিপ্লবী বাহিনীতে ফিদেলের সঙ্গে থেকে লড়াই করা এই বিপ্লবী বলেন, “তার মতো মানুষ আর আসবে না।”
একই টাউনের বাসিন্দা ৬৩ বছর বয়সী অবসরপ্রাপ্ত কর্মজীবী ইরাম পেদরেরোস ফিদেলের মৃত্যুকে ‘অপূরণীয় ক্ষতি’ বলে বর্ণনা করেন।
একটি ট্রেইলারে পতাকা দিয়ে ঢাকা একটি বাক্সে রাখা কাস্ত্রোর দেহভস্ম টেনে নিয়ে যাচ্ছে সবুজ একটি সামরিক জিপ। ওই বাক্সটির চারপাশে সাদা ফুল রেখে বাক্সটি কাচে ঢেকে দেয়া হয়েছে।
বুধবার রাতে সান্তা ক্লারা শহরে কিউবা বিপ্লবের অপর কিংবদন্তী আর্নেস্ত্রো ‘চে’ গেভারার সমাধিতে ছিল ফিদেলের দেহভস্ম। বৃহস্পতিবার সকাল থেকে বিপ্লবকালীন সেই বারুদগন্ধী পথগুলো পাড়ি দিয়ে রোববার সকালে সান্তিয়াগো দ্য ক্যুবায় প্রবেশ করবে দেহভস্মবাহী শকটটি।
১৯৫৩ সালে এই সান্তিয়াগো দ্য ক্যুবার মনকাদা সেনাছাউনি আক্রমণের মধ্য দিয়েই বিপ্লব শুরু করেছিলেন ফিদেল কাস্ত্রো। বিপ্লবের ধাক্কায় ১৯৫৯ সালে পতন ঘটে কিউবার যুক্তরাষ্ট্র সমর্থিত একনায়ক ফ্লুজেনসিও বাতিস্তার, ১ জানুয়ারি বাতিস্তা দেশ ছেড়ে পালিয়ে যান।
হাভানায় আসার পথে বিভিন্ন শহরে ও টাউনে থেমে থেমে এক সপ্তাহ পর রাজধানীতে পৌঁছান ফিদেল। এবার সেই পথেই তার দেহভস্ম ফিরে যাচ্ছে সেই সিয়েরা মায়েস্ত্রা পাহাড়ের দেশ সান্তিয়াগো দ্য ক্যুবাতে। এরপর থেকে চিরদিনের জন্য এখানেই বিশ্রাম নিবেন এই চিরবিপ্লবী।- বিডিনিউজ