শ্রীনগর উপনির্বাচনে ফের অশান্ত জম্মু-কাশ্মীর, নিহত ৪

আপডেট: এপ্রিল ১০, ২০১৭, ১২:০৪ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


ফের উত্তপ্ত জম্মু-কাশ্মীর। শ্রীনগর লোকসভা কেন্দ্রে উপনির্বাচনকে ঘিরে ভারতীয় সেনার বিরুদ্ধে হামলা চালাল একদল বিক্ষোভকারী। আর তাতেই প্রাণ হারালেন চারজন। আহত আরও অনেকে। মূলত বদগাঁও জেলাতেও এদিন সেনার সঙ্গে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে কাশ্মীরি যুবকরা। এছাড়া জানা গিয়েছে, রবিবার সকাল ১১ টা অবধি শ্রীনগরে উপনির্বাচনের হার খুবই কম। শতকরা ৩.৩ শতাংশ।
রোববার পৃথক দু’টি সংঘর্ষে তিন যুবক মারা গিয়েছে। এর মধ্যে প্রথম ঘটনাটি ঘটেছে বদগাঁও জেলার পাখেরপোরার চার-এ-শরিফ এলাকার একটি ভোটকেন্দ্রে। প্রায় শতাধিক বিক্ষোভকারী মিছিল করে ভোটদান কেন্দ্রটি ঘিরে ফেলেন। এরপরে নিরাপত্তা আধিকারিকরা শূন্যে গুলিও ছোড়েন। তবুও থামেনি বিক্ষোভ। উল্টে তাঁদের উদ্দেশে ইটবৃষ্টি করতে থাকে বিক্ষোভকারীরা। এরপরেই গুলি চালায় নিরাপত্তা আধিকারিকরা। তাতে আহত হয় ছয় জন। পরে আহতদের মধ্যে মহম্মদ আব্বাস(২০) এবং ফয়জান আহমেদ রাঠের(১৫) মারা যায়। আধিকারিকরা জানান গুলিতেই আহত হয়েই মারা গিয়েছে ওই দুই যুবক।
রাতসুনা বেরওয়াহ অঞ্চলে অপর একটি সংঘর্ষে নিরাপত্তা রক্ষীদের গুলিতে প্রাণ হারিয়েছে নিসার আহমেদ নামে একজন। এক আধিকারিক বলেন, ভোটদান কেন্দ্রের নিরাপত্তার দায়িত্ব ছিল বিএসএফের হাতে। কিন্তু তাঁদের কাছে ছররা বন্দুক ছিল না। ফলে বিক্ষোভকারীদের হঠাতে গুলি ছুঁড়তে বাধ্য হন তাঁরা। এদিন শ্রীনগরের আরও কিছু জায়গায় জনতা এবং নিরাপত্তা আধিকারিকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। চাদোরাতে দু’টি ভোটগ্রহণ কেন্দ্র থেকে পাথরবৃষ্টির কারণে সেনা জওয়ান এবং ভোটকর্মীরা চলে যেতে বাধ্য হন। শ্রীনগর, বদগাঁও এবং গান্দেরওয়াল জেলার আরও প্রায় ১২টি জায়গা থেকে সংঘর্ষের খবর পাওয়া গিয়েছে। বিশেষজ্ঞদের মতে, এই ঘটনার তীব্র প্রভাব পড়বে ভোটগ্রহনে। পাশাপাশি পরিস্থিতি আরও অগ্নিগর্ভ হওয়ার আশঙ্কা করছেন তাঁরা।-  সংবাদ প্রতিদিন

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ