শ্রীলঙ্কার সামনে হোয়াইটওয়াশের শঙ্কা

আপডেট: আগস্ট ১৪, ২০১৭, ১২:৪৭ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


ভারতের বিপক্ষে ব্যর্থতার বৃত্তেই বন্দি শ্রীলঙ্কা। প্রথম টেস্টে ৩০৪ রান এবং পরের ম্যাচে ইনিংস ও ৫৩ রানের বিশাল ব্যবধানে হার মেনেছিল স্বাগতিক দল। পাল্লেকেলেতে সিরিজের শেষ টেস্টেও শ্রীলঙ্কানদের সামনে হারের আশঙ্কা।
রোববার ম্যাচের দ্বিতীয় দিনে রেকর্ড বইয়ে নাম ওঠানো হার্দিক পান্ডিয়ার ঝড়ো সেঞ্চুরিতে প্রথম ইনিংসে ভারত করেছে ৪৮৭ রান। জবাবে মাত্র ১৩৫ রানে অলআউট হয়ে ফলোঅনে বাধ্য হয়েছে শ্রীলঙ্কা। দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে ১ উইকেটে ১৯ রান নিয়ে দিন শেষ করেছে তারা। ইনিংস হার এড়াতে স্বাগতিকদের প্রয়োজন আরও ৩৩৩ রান।
ইদানীং শ্রীলঙ্কান ক্রিকেটের দুর্দশার অন্যতম কারণ ব্যাটিং। রোববারও ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতা লজ্জায় ফেলে দিয়েছে তাদের। মোহাম্মদ সামির জোড়া আঘাতে শুরুতেই বিপদে পড়ে যায় শ্রীলঙ্কা। ইনিংসের তৃতীয় ও পঞ্চম ওভারে উপুল থারাঙ্গা (৫) ও দিমুথ করুনারত্নেকে (৪) ফিরিয়ে দেন সামি।
নবম ও দশম আবার জোড়া আঘাত। প্রথমে রান আউট হন কুশল মেন্ডিস (১৮), পরের ওভারে অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুসকে (০) এলবিডাব্লিউয়ের ফাঁদে ফেলেন পান্ডিয়া। ৩৮ রানে ৪ উইকেট হারিয়ে শ্রীলঙ্কা তখন দিশেহারা।
এরপর নিরোশান ডিকবেলাকে নিয়ে ৬৩ রানের জুটি গড়ে প্রতিরোধের চেষ্টা করেছিলেন অধিনায়ক দিনেশ চান্ডিমাল। দলীয় ১০১ রানে ডিকবেলা (২৯) কুলদীপ যাদবের বলে কট বিহাইন্ড হওয়ার পর আবার শুরু ব্যাটিং ধস। ৪৮ রান করা চান্ডিমাল লড়াইয়ের চেষ্টা করলেও লাভ হয়নি, কুলদীপ ও রবিচন্দ্রন অশ্বিনের ঘূর্ণিতে ৩৪ রানে শেষ ৬ উইকেট হারিয়ে ফলোঅনের লজ্জায় পড়ে যায় শ্রীলঙ্কা। ৪০ রানে ৪ উইকেট নেওয়া কুলদীপ ভারতের সেরা বোলার। সামি ও অশ্বিনের শিকার ২টি করে উইকেট।
দিনের শুরুটা ছিল হার্দিক পান্ডিয়ার। ৬ উইকেটে ৩২৯ রানে খেলা শুরু করা ভারতের স্কোরবোর্ড সমৃদ্ধ হয়েছে এই তরুণ অলরাউন্ডারের দুর্দান্ত ইনিংসে। টেস্টে ভারতের পক্ষে এক ওভারে রেকর্ড ২৬ রান তুলে নিয়েছেন পান্ডিয়া। দুর্ভাগা বোলারের নাম মালিন্দা পুষ্পাকুমারা। ভারতের হয়ে ওভারে ২৪ রানের আগের রেকর্ডটি যৌথভাবে ছিল সন্দীপ পাতিল ও কপিল দেবের দখলে।
মাত্র ৮৬ বলে টেস্ট ক্যারিয়ারের প্রথম সেঞ্চুরির দেখা পাওয়া পান্ডিয়া থেমেছেন ১০৮ রানে। ৯৬ বলের ঝড়ো ইনিংসটা সাজানো ৮টি চার ও ৭টি বিশাল ছক্কায়। ভারতকে পাঁচ শ’র কাছাকাছি পৌঁছে দিতে কুলদীপ আর উমেশ যাদবের অবদানও কম নয়। অষ্টম উইকেটে কুলদীপকে (২৬) নিয়ে ৬২ রানের জুটি গড়েছেন পান্ডিয়া। উমেশ অবশ্য ৩ রানের বেশি করতে পারেননি, তবে শেষ জুটিতে পান্ডিয়াকে দারুণ সঙ্গ দিয়েছেন তিনি। উমেশের সঙ্গে ৬৬ রানের জুটি গড়ে শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে আউট হয়েছেন পান্ডিয়া। ৫ উইকেট নিলেও সেজন্য লাকশান সান্দাকানের খরচ ১৩২ রান। আরেক বাঁহাতি স্পিনার পুষ্পাকুমারার খরচ ৩ উইকেট।
সংক্ষিপ্ত স্কোর
ভারত: প্রথম ইনিংস ৪৮৭ (ধাওয়ান ১১৯, পান্ডিয়া ১০৮, রাহুল ৮৫, কোহলি ৪২, কুলদীপ ২৬; সান্দাকান ৫/১৩২, পুষ্পাকুমারা ৩/৮২)
শ্রীলঙ্কা: প্রথম ইনিংস ১৩৫ (চান্ডিমাল ৪৮, ডিকবেলা ২৯; কুলদীপ ৪/৪০) ও দ্বিতীয় ইনিংস ১৯/১ (করুনারত্নে ১২*; উমেশ ১/৩)।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ