শ্রেণিকক্ষ ও বেঞ্চ সল্পতায় বিয়াশ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ।। খোলা আকাশের নিচে চলছে পাঠদান

আপডেট: মার্চ ১২, ২০১৭, ১২:১৮ পূর্বাহ্ণ

সিংড়া প্রতিনিধি



নাটোরের সিংড়া উপজেলার বিয়াশ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। পর্যাপ্ত শ্রেণিকক্ষ ও বেঞ্চ স্বল্পতার কারণে খোলা আকাশের নিচে মাটিতে বসে শিক্ষার্থীদের ক্লাস করতে হচ্ছে। শিক্ষার্থীরা দীর্ঘদিন থেকে এভাবেই শিক্ষাগ্রহণ করায় ব্যাহত হচ্ছে শিক্ষা কার্যক্রম। প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে বিদ্যালয়টির ভবন সম্প্রসারণের জন্য প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ে বার বার আবেদন করা হলেও এখন পর্যন্ত কোন সুফল পাওয়া যায় নি।
জানা গেছে, চলনবিলের প্রত্যন্ত এলাকার ছেলে-মেয়েদের লেখাপড়ার স্বার্থে ১৯৮৯ সালে বিয়াশ বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কার্যক্রম শুরু হয়। পরবর্তীতে ২০১৩ সালে প্রতিষ্ঠানটি সরকারিকরণ হয়। চারটি কক্ষ বিশিষ্ট ভবনের একটি কক্ষ বিদ্যালয়ের অফিস ও তিনটি শ্রেণিকক্ষ হিসেবে ব্যবহৃত হয়ে আসছে। কিন্তু এ বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের স্থান সঙ্কুলান হয় না। দুই শিফটে চলে প্রতিষ্ঠানের শিক্ষা কার্যক্রম। প্রতি কক্ষে বসার একটি বেঞ্চে চার থেকে ছয়জন করে বসতে হয়। প্রতিটি শ্রেণিকক্ষের আকারই অনেক ছোট। বর্তমানে বিদ্যালয়টিতে শিক্ষার্থীর সংখ্যা প্রায় ৪শ জন। আর এ কারণেই খোলা আকাশের নিচে ক্লাস নিতে বাধ্য হন শিক্ষকরা। প্রতিবছর বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীর সংখ্যা ক্রমশ বৃদ্ধি পাওয়ায় দুর্ভোগও বাড়ছে সমান তালে। কিন্তু শিক্ষার্থীদের সংখ্যা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বাড়ছে না প্রয়োজনীয় শ্রেণিকক্ষ ও বেঞ্চের সংখ্যা।
বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রইচ উদ্দিন বলেন, বিদ্যালয়ে পর্যাপ্ত পরিমাণ শ্রেণিকক্ষ ও বেঞ্চ না থাকার বাধ্য হয়েই রোদ বৃষ্টি ঝড়ে কষ্ট সহ্য করে বিদ্যালয়ের মাঠে খোলা আকাশের নিচে শিক্ষার্থীদের ক্লাস নেয়া হয়। প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ে বার বার বিদ্যালয়ের ভবন সম্প্রসারণের জন্য আবেদন করা হয়েছে। কিন্তু এখনো কোন সুফল আসে নি।
এ বিষয়ে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আমজাদ হোসেন জানান, ওই প্রতিষ্ঠানের ভবন অনুমোদনের জন্য ঊর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের কাছে চিঠি প্রেরণ করা হয়েছে। আশা করি দ্রুত সমাধান হবে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ