সংঘবদ্ধ ডাকাত দলের ১০ সদস্যকে কারাগারে প্রেরণ

আপডেট: নভেম্বর ১৪, ২০১৬, ১২:০০ পূর্বাহ্ণ

চারঘাট প্রতিনিধি



রাজশাহীর চারঘাট উপজেলায় সংঘবন্ধ আন্তঃজেলা ডাকাত দলের ১০ সদস্যকে গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।
জানা গেছে, গতকাল রোববার ভোররাত ৪টার দিকে বাঘা-চারঘাট সড়কে উপজেলার হলিদাগাছি রেলগেট এলাকা থেকে তাদেরকে আটক করে একটি পুরাতন মামলায় গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। তাদের কাছ থেকে দুইটি মহিষ ও ডাকাতি করার কিছু সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়েছে। গ্রেফতারকৃতরা হলেন, নীলফামারী সদর উপজেলার নগরবন্দর গ্রামের সাইদুল ইসলাম ওরফে মুন্না (২১), বগুড়ার কাহালু উপজেলার উত্তরা গ্রামের সেলিম হোসেন (২৫), ধুনট উপজেলার বিলচাতরি গ্রামের আবদুল খালেক (৩৮), শিবগঞ্জ উপজেলার দুদাহার গ্রামের আলম হোসেন (৩৫), শেরপুর উপজেলার উদগ্রামের লুৎফর রহমান (৩০), ছোট ফুলবাড়ি গ্রামের রুবেল হোসেন (৩৩), মাগুরা গ্রামের ওবায়দুর রহমান (৩০), দশমাইল গ্রামের সেলিম রেজা (৩৮), কুড়িগ্রামের উলিপুর উপজেলার মৌজা মধুপুর গ্রামের নজরুল ইসলাম (২৭) ও গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার বকচর গ্রামের রাহুল আলী (২৭)।
এব্যাপারে চারঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নিবারন চন্দ্র বর্মন জানিয়েছেন, ডাকাতরা একটি ট্রাকে (যার নম্বর ঢাকা  মেট্রো জ-১২-০১২৯) করে দুইটি মহিষ নিয়ে যাচ্ছিলো। টহলরত মডেল থানার উপপরিদর্শক খায়রুল ইসলাম ট্রাকের গতিরোধ করলে তারা অসংলগ্ন কথাবার্তা বলেন। এতে করে প্রাথমিকভাবে ডাকাত সন্দেহে তাদের আটক করা হয়। এসময় ট্রাক থেকে হাতুড়ি, ছুরি ও কাস্তে উদ্ধার করা হয়েছে। ট্রাকটিকেও জব্দ করা হয়েছে। পরে বিভিন্ন থানায় খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, সবার নামে নিজ নিজ এলাকার থানায় চুরি, অস্ত্র মামলা, চোরাচালান, খুন ও অপহরণসহ বিভিন্ন আইনের একাধিক করে মামলা রয়েছে। তারা একটি সংঘবদ্ধ ডাকাতদল। গাজীপুর, টঙ্গি, টাঙ্গাইলসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে বাসা ভাড়া নিয়েও তারা ডাকাতি করে থাকেন। সম্প্রতি চারঘাটের যে ডালমিলে ডাকাতির ঘটনা ঘটে, তাতে এদের কাছে অনেক তথ্য পাওয়া গেছে। আর উদ্ধারকৃত মহিষের মালিকের খোঁজ পেতে বিভিন্ন থানায় বার্তা পাঠানো হয়েছে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ