সন্ত্রাসীরা কান কাটলো কুলির || সন্ত্রাসীদের দ্রুত গ্রেফতার করুন

আপডেট: মে ৩০, ২০১৭, ১২:৩১ পূর্বাহ্ণ

আসামীরা প্রকাশ্যে ঘুরছে অথচ পুলিশ তাদের ধরছে নাÑ এমন অভিযোগ হরহামেশাই শোনা যায়, সংবাদ মাধ্যমেও এ সংক্রান্ত প্রতিবেদন মাঝে মধ্যেই প্রকাশ ও প্রচার হয়। এই পরিস্থিতি সবচেয়ে উদ্বেগের, উৎকণ্ঠারও। যারা সাধারণ মানুষ এসব খবর পড়ে বা অভিযোগ শুনে অভ্যস্থ তারা খুবই অসহায় বোধ করেন। নিজেই যখন ভিকটিম হন তখন বিপন্ন বোধ করেন।
এমনই উদ্বেগের মত একটি ঘটনা দৈনিক সোনার দেশে সোমবার প্রকাশিত হয়েছে। ওই প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে, প্রভাবশালীরা হামলা চালিয়ে ট্রাকের এক কুলির কান কেটে দিয়েছে। এ ঘটনায় পাঁচজন নামধারী নেতার বিরুদ্ধে মামলা করা হয়। কিন্তু আসামিরা প্রকাশ্যে ঘুরলেও পুলিশ তাদের গ্রেফতার করছে না। উল্টো কুলি রুয়েলসহ তার সাত ভাই ও ভাতিজার বিরুদ্ধে পাল্টা মামলা করা হয়েছে। এই মামলার সূত্র ধরে শনিবার দিবাগত রাত ১০টার দিকে কুলি রুয়েলের ভাতিজা রাসেলকে বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে পুলিশ। ভিকটিম পরিবারকেই বিপদাপন্ন করে তোলা হয়েছে।
প্রতিবেদনের তথ্যমতে তদন্তকারী কর্মকর্তা বলেছেন, কুলি রুয়েলের ব্যবহারে সন্তষ্ট নয় পুলিশ। এ কারণে তার বিরুদ্ধে অবস্থান নেয়া হয়েছে। শুধু ব্যবহার ভালো নয়Ñ এই ব্যাপারে পুলিশের সন্তুষ্টি- অসন্তুষ্টির বিষয়টি খুব পরিষ্কার নয়। রুয়েলের ব্যবহারে কেউ ক্ষুব্ধ হয়ে তার বা তার পরিবারের বিরুদ্ধে কেউ অভিযোগ করলে করতেই পারে। পুলিশ তার বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নিবে এটাই সঙ্গত। কিন্তু রুয়েলের প্রতি সন্ত্রাসী হামলা হয়েছে। সন্ত্রাসীরা তার একটি কান কেটে ফেলেছে। যারা কান কেটেছে তাদের চেয়ে বড় অপরাধ ব্যবহার যখাযথ না করে রুয়েল করেছেÑ এটাতো সঠিক নয়। একদল সন্ত্রাসী প্রকাশ্যে সন্ত্রাস চালিয়েছে তারা আইনের আওতায় আসবে না, আসামীরা প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়ালেও তাদের ধরা হবে নাÑ যদি তাই হয়, তা মানবাধিকারের লঙ্ঘনই বটে। বিষয়টি পুলিশের উর্ধতন কর্তপক্ষের খতিয়ে দেখা প্রয়োজন। একজন শুধু ব্যবহার খারাপের কারণে তার ওপর সন্ত্রাসী হামলার প্রতিকার পাবে না, এটা হতে পারে না। বরং এতে করে যারা সন্ত্রাসী কাজ করে ‘উচিৎ শিক্ষা’ বলে দম্ভোক্তি প্রকাশ করেছে তারা সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে আরো উৎসাহী হবেন।
এ ঘটনা পুলিশের উর্ধতন কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে চাই। সরেজমিনে ঘটনার সত্যাসত্য যাচাই করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার আহবান জানাই। এতে করে পুলিশের ভাবমূর্তিই বৃদ্ধি পাবে। একই সাথে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের সাথে জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতারের দাবি জানাই।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ