‘সব সাংবাদিক দুর্নীতিরবাজ’ : এমপি সিদ্দিক

আপডেট: মে ২৫, ২০২৪, ৯:২৩ অপরাহ্ণ


বড়াইগ্রাম (নাটোর) প্রতিনিধি:


সব দুর্নীতিবাজ সাংবাদিক বলে আখ্যায়িত করেছেন নাটোর-৪ (বড়াইগ্রাম-গুরুদাসপুর) আসনের সংসদ সদস্য ডা. সিদ্দিকুর রহমান পাটোয়ারী। শনিবার (২৫ মে) বড়াইগ্রাম উপজেলার বনপাড়ায় তথাকথিত একটি প্রেসক্লাবের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে গিয়ে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি একথা বলেন। তার এমন বক্তৃতার একটি ভিডিও ক্লিপ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়লে তাৎক্ষণিক ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়ার জানান জেলা ও উপজেলার সাংবাদিকগণ।

অনুষ্ঠানে ডা. সিদ্দিকুর রহমান পাটোয়ারী বলেন, সাংবাদিক হিসেবে যখন আমি একজনের নাম উপজেলা আইন-শৃঙ্খলা কমিটির মিটিংয়ে দিতে চাই, তখন এক সাইফুল রহামন ভাই ছাড়া একজনকেও দেখতে পাই না । যাদের ভেতর দুর্নীতি নায়। যারা দুর্নীতির বাইরে আছে প্রকৃত সাংবাদিক এমন কাউকে দেখতে পায় না। আপনারা বলতে পারেন আমি অন্ধ। আমি আপেক্ষিক-ভাবে বললাম, মানুষ তো শতভাগ সৎ হয় না।

বড়াইগ্রাম প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম মৃধা বলেন, উপজেলার বাজিতপুর গ্রামে নিজে টাকা দিয়ে পুকুর খনন করিয়েছেন। সাংবাদিকরা যেন সংবাদ প্রকাশ না করেন তার জন্য তিনি নিজে সাংবাদিকদের টাকা দিয়েছেন। তাহলে দুর্নিতীকে কে প্রশ্রয় দেয়। কার প্রশ্রয়ে দূর্নীতি হয়?

বড়াইগ্রাম কেন্দ্রী প্রেসক্লাবের সভাপতি ওমর ডি কস্তা বলেন, সাংসদ ডা. সিদ্দিকুর রহমান যে সাংবাদিকের ছাপাই গাইছেন তিনি বড়াল নদের জায়গা দখল করে বাড়ি নির্মাণ করেছেন। তাহলে কি তিনি দুর্নিতিবাজ নয়? এছাড়া এমপি মহোদয় যখন উপজেলা চেয়ারম্যান ছিলেন, তখন কি প্রকল্পের নাম ভাঙ্গিয়ে টাকা লুট করেননি। এসব বলতে গেলে তো থলের বিড়াল বেড়িয়ে যাবে। তাই অযৌক্তি নয় যৌক্তিক কথা বলার সবিনয় অনুরোধ এবং তার দেয়া বক্তব্য প্রত্যাহারের দাবী জানাচ্ছি।

বড়াইগ্রাম উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি অহিদুল হক বলেন, এমপি মহোদয়ের প্রতি শ্রদ্ধা রেখে বলতে চাই, পুকুর খননের এক টাকা আমার এবং বড়াইগ্রাম উপজেলা প্রেসক্লাবের কোনো সদস্যের পকেটে ঢোকেনি। মাটি কেটে যখন বিক্রি করা হয়েছে তখন বিরুদ্ধে নিউজ করেছি। তাহলে আমার দুর্নীতিটা কোথায়। এভাবে ঢালাও কাউকে দোষারোপ করা ঠিক না। আমি এ বক্তব্যের তীব্র নিন্দা প্রতিবাদ জানাই।

প্রবীন সাংবাদিক বীর মুক্তিযোদ্ধা নাবীউর রহমান পিপলু বলেন, আমি এই ধরনের বক্তব্যের প্রতিবাদ জানাই। একজন সাংসদের এ ধরনের বক্তব্যে সাংবাদিকদের হৃদয়ে যে রক্তক্ষরণ হয়েছে তা কি দিয়ে রক্ষা করবেন। তিনি (সাংসদ) এভাবে না বলে অন্য ভাবে বলতে পারতেন। ভবিষ্যতে তিনি আরও সংযত ভাবে মঞ্চে সাংবাদিকদের নিয়ে কথা বলবেন বলে প্রত্যাশা করি।
এ বিষয়ে কথা বলতে সংসদ সদস্য ডা. সিদ্দিকুর রহমান পাটোয়ারীর মুঠোফোনে একাধিকবার ফোন করা হলে তিনি তা রিসিভ করেননি।

তবে তার ব্যক্তিগত সহকারী মিজানুর রহমান বলেন, একটি প্রেসক্লাবের অনুষ্ঠানে গিয়ে তিনি দেখেন সব সাংবাদিক ভুয়া। তাই তিনি এই ধরনের মন্তব্য করেছেন। প্রকৃত সাংবাদিকদের তিনি এই কথা বলেননি। তিনি আরো বলেন, বক্তব্যটি বড়াইগ্রামের পেক্ষাপটে দেওয়া হয়েছে। এখানে নিত্য নতুন প্রেসক্লাব তৈরি হচ্ছে। তাদের যাতে বেতনের ব্যবস্থা হয় সে বিষয়েও বক্তব্য দিয়েছে। তিনি (সাংসদ) মাটি কাটার পক্ষে গেলেও লেখে বিপক্ষে গেলেও তাকে জড়িয়ে লেখে। সাংবাদিকতা পেশা সমাজের দর্পণ, এই দর্পণের অনুকূল চরিত্র গঠন কর্মকান্ড পরিচালনার জন্য কথা প্রসঙ্গে এমনটা বলেছেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

Exit mobile version