সম্প্রদায়িক হামলার প্রতিবাদে রাবিতে প্রতিরোধ সমাবেশ

আপডেট: অক্টোবর ২৪, ২০২১, ৯:৩৪ অপরাহ্ণ


রাবি প্রতিবেদক:


দেশ জুড়ে হিন্দু সম্প্রদায়ের জানমাল, ঘরবাড়ি ও উপাসনালয় হামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদে প্রতিরোধ সমাবেশ করেছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি) কেন্দ্রীয় সাংস্কৃতিক জোটের নেতাকর্মীরা।

রোববার (২৪ অক্টোবর) বেলা ১১টায় রাবি শহীদ বুদ্ধিজীবী স্মৃতিফলকের সামনে এই প্রতিরোধ সমাবেশের অনুষ্ঠিত হয়।

সমাবেশে ম্যানেজমেন্ট স্টাডিস বিভাগের শিক্ষক অধ্যাপক মলয় কুমার বলেন, সাম্প্রদায়িক হামলা এটি নতুন কোন ঘটনা নয়। কুমিল্লা, রংপুর ছাড়াও অন্যান্য জায়গায় যে সাম্প্রদায়িক হামলা হয়েছে এগুলো একটি পরিকল্পিত ঘটনা। একটি গোষ্ঠী ধর্ম, বর্ণ, জাতির মাঝে উস্কানি দিয়ে রাজনীতি ও ব্যবসায় সুবিধা নিচ্ছে। এর পেছনে কারা ঘাপটি মেরে আছে তা উন্মোচনে জোর দাবি জানাই।

এ ধরনের সাম্প্রদায়িক মানসিকতা থেকে বেরিয়ে আসতে শিক্ষা, সাংস্কৃতিক চর্চা ও রাজনৈতিক পরিবর্তন আনতে হবে বলে জানান অধ্যাপক মলয়।

দর্শন বিভাগের অধ্যাপক ড. এস. এম. আবু বক্কর বলেন, ১৯৪৭ সালে আগস্ট মাসে আমাদের দেশ ভাগ হয়। অক্টোবরে দুর্গা পুজায় প্রতিমা বিসর্জনে বরিশালের মুসলমানরা নিরাপত্তা দিয়েছিলো। তখন রাষ্ট্র ভালো ছিলো, মানুষও ভালো ছিলো। আজকে আমরা সাম্প্রদায়িক হয়ে গেছি।

রূপসা, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, কুমিল্লায় ঘটনা কি ছিলো সরকার এগুলো তুলে ধরুক। সুবিধাভোগী গোষ্ঠী হিন্দু, মুসলমানের মাঝে ভাগ করতে থাকবে। আমাদের এগুলো প্রতিহত করতে হবে।

বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সাবেক সভাপতি মো. আজমের সঞ্চালনায় ও কেন্দ্রীয় সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি মহিউদ্দিন মানিকের সভাপতিত্বে সমাবেশে আরো বক্তব্য দেন জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড মাইক্রো বায়োলজি বিভাগের অধ্যাপক অমিত কুমার সাহা, মার্কেটিং বিভাগের অধ্যাপক ড. শাহ আজম, উদীচির সাধারণ সম্পাদক রবিন, বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশনের রাবি শাখা সাধারণ সম্পাদক মুহব্বত হোসেন মিলন, বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের আমান উল্লাহ ও তীর্থক নাটকের কর্মী দিপু রায় প্রমুখ।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ