সর্বস্তরে বাংলা ভাষা প্রচলনের প্রত্যয় রাজশাহী অঞ্চলে শহিদ ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত

আপডেট: ফেব্রুয়ারি ২৩, ২০২১, ১২:০৪ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক:


সর্বস্তরে বাংলা ভাষা প্রচলনের প্রত্যয়ে রাজশাহীতে অঞ্চলে পালিত হলো ‘শহিদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস’। দিবসটিতে শহিদদের প্রতি শ্রদ্ধা ও আলোচনাসভা ছাড়ও বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করে সরকারি-বেসরকারি, সামাজিক, রাজনৈতিক, পেষাজীবী সংগঠনগুলো।
দিবসটি উপলক্ষে শহিদ মিনারে শহিদদের প্রতি শ্রদ্ধাকালে সবক্ষেত্রে বাংলা ভাষা প্রচলনের দাবি জানানো হয়। শ্রদ্ধা জানাতে আসা মানুষগুলো জানায়, এমন একটিও দেশ নেই, যে দেশ মায়ের ভাষার জন্য রক্ত দিয়েছে। একটি মাত্র ভাষা, যে বাংলা ভাষা রক্ত দিয়ে কেনা। তাই দেশের সরকারি, বেসরকারি দফতর, সাইনবোর্ড, বিলবোর্ডসহ সর্বস্থরে বাংলা ভাষা প্রচলনের দাবি জানান তারা।
মহানগর আওয়ামী লীগ : আন্তার্জাতিক মাতৃভাষা দিবস অমর একুশে স্মরণে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ, রাজশাহী মহানগরের উদ্যোগে রাত ১১.৩০টায় কুমারপাড়াস্থ দলীয় কার্যালয় থেকে র‌্যালী নিয়ে একুশের প্রথম প্রহর রাত ১২.০১ মিনিটে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের নির্ধারিত স্থানে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়। পুষ্পস্তবক অর্পণ শেষে সেখানে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ, রাজশাহী মহানগরের সভাপতি ও সিটি মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন, সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার, সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর ইকবাল, বীর মুক্তিযোদ্ধা নওশের আলী, বদরুজ্জামান খায়ের, যুগ্ম সম্পাদক মোস্তাক হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাড. আসলাম সরকার, মীর ইসতিয়াক আহম্মেদ লিমন, কৃষি বিষয়ক সম্পাদক মীর তৌফিক আলী ভাদু, আইন সম্পাদক অ্যাড. মুসাব্বিরুল ইসলাম, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক ফিরোজ কবির সেন্টু, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক রবিউল আলম রবি, যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক মকিদুজ্জামান জুরাত, সাংস্কৃতিক সম্পাদক কামারউল্লাহ সরকার কামাল, স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা সম্পাদক ডাঃ ফ ম আ জাহিদ, উপ-দপ্তর সম্পাদক পংকজ দে, উপ-প্রচার সম্পাদক সিদ্দিক আলম, সদস্য মুশফিকুর রহমান হাসনাত, আশরাফ উদ্দিন খান, সৈয়দ মন্তাজ আহমেদ, মজিবুর রহমান, আলিমুল হাসান সজল, মোখলেশুর রহমান কচি, মাসুদ আহম্মেদ, আশীষ তরু দে সরকার অর্পণ প্রমুখ।
সকাল ৯টায় বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ, রাজশাহী মহানগরের উদ্যোগে কুমারপাড়াস্থ দলীয় কার্যালয় থেকে প্রভাত ফেরী বের হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ, রাজশাহী মহানগরের সাধারণ সম্পাদক মোঃ ডাবলু সরকার, সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ আলী কামাল, অধ্যক্ষ শফিকুর রহমান বাদশা, রেজাউল ইসলাম বাবুল, নাঈমুল হুদা রানা, বদরুজ্জামান খায়ের, দপ্তর সম্পাদক মাহাবুব-উল-আলম বুলবুল, মহিলা সম্পাদিকা ইয়াসমিন রেজা ফেন্সি, আইন সম্পাদক অ্যাড. মুসাব্বিরুল ইসলাম, শিল্প ও বানিজ্য সম্পাদক ওমর শরীফ রাজিব, শ্রম সম্পাদক আব্দুস সোহেল, সাংগঠনিক সম্পাদক মীর ইসতিয়াক আহম্মেদ লিমন, সদস্য অ্যাড. শামসুন্নাহার মুক্তি, বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মান্নান, আতিকুর রহমান কালু, সৈয়দ হাফিজুর রহমান বাবু, আব্দুস সালাম, আলিমুল হাসান সজল, খায়রুল বাশার শাহীন, মোখলেশুর রহমান কচি, কে.এম জুয়েল জামান, আশীষ তরু দে সরকার অর্পণ, রাজপাড়া থানা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক শেখ আনসারুল হক খিচ্চু, বোয়ালিয়া (পূর্ব) থানা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক শ্যামল কুমার ঘোষ, বোয়ালিয়া (পশ্চিম) থানা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক শামসুজ্জামান রতন, মতিহার থানা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক আলাউদ্দিন প্রমুখ।
জেলা আ’লীগ: দিবসটি উপলক্ষে রাজশাহী কলেজ শহিদ মিনারের পাদদেশে আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এর আগে নগরীর অলোকার মোড় থেকে প্রভাতফেরি বের করা হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন- রাজশাহী আওয়ামী লীগের সভাপতি মেরাজ উদ্দিন মোল্লা, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল ওয়াদুদ দারা। পরে নেতৃবৃন্দ আলোচনাসভায় বক্তব্য দেন।
মুক্তিযোদ্ধা সংসদ রাজশাহী জেলা ও নগর কমান্ড: বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ রাজশাহী জেলা ও মহানগর কমান্ডরের যৌথ উদ্যোগে ২১ শে ফেব্রুয়ারি শহিদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষ্যে প্রত্যুষে জেলা মুক্তিযোদ্ধা কপ্লেক্স ভবন শীর্ষে পতাকা উত্তোলন, জাতীয় ও সংগঠনের পতাকা অর্ধনমীত করণ, সকাল ৮ টায় ভবন চত্বরে মুক্তিযোদ্ধা গণজামায়েত ও কালো ব্যাজ ধারণ, সকাল সাড়ে ৮ টায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ জাতিয় চার নেতার প্রতীকৃতিতে মাল্যদান, সকাল ৯ টায় বর্ণাঢ্য শোক র‌্যালী শহর প্রদক্ষিণ শেষে কেন্দ্রীয় শহিদ মিনারে শহিদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে পুষ্পস্তবক অর্পণ এবং কার্যালয়ে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এসময় উপস্থিত ছিলেন, জেলা সাবেক ভারপ্রাপ্ত কমান্ডার শাহাদুল হক, ডেপুটি কমান্ডার ডা. আ. মান্নান, ডেপুটি কামান্ডারদ্বয় মোহাম্মদ আলী কামাল ও রবিউল ইসলাম, সহকারী কমান্ডার নাজিম উদ্দিন, মিজানুর রহমান, আব্দুল মোমিন কাজল, আবুল বাশার, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বাস্তবায়ন মঞ্চের নেতা হাকিম আতাউর রহমান, ও আবুল কালাম আজাদ, ন্যাপ ছাত্র ইউনিয়ন গেরিলা বাহিনীর নেতা এ্যাডভোকেট সাইদুল ইসলাম, হাফিজুর রহমান মনা, মহানগর সাবেক ডেপুটি কমান্ডার সাংবাদিক তৈয়ুবুর রহমান এবং মুক্তিযোদ্ধা ৭১ নেতা সেনা অফিসার (অব.) আবুল হাসান খন্দকার প্রমুখ।
রাজশাহী প্রশাসন : একুশের প্রথম প্রহরে রাজশাহী কোর্ট শহিদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন বিভাগীয় কমিশনার ড. হুমায়ুন কবীর, পুলিশের রাজশাহী রেঞ্জের ডিআইজি আব্দুল বাতেন, রাজশাহী মহানগর পুলিশ কমিশনার আবু কালাম সিদ্দিক, জেলা প্রশাসক আব্দুল জলিল, পুলিশ সুপার এবিএম মাসুদসহ সরকারি-বেসরকারি কর্মকর্তা কর্মচারীরা।
রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় : ভাষা আন্দোলনের শহিদদের স্মরণে এই দিনটি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে রোববার যথাযোগ্য মর্যাদায় পালন করা হয়। দিবসের প্রথম প্রহর রাত ১২:০১ মিনিটে উপাচার্য প্রফেসর এম আব্দুস সোবহান, উপ-উপাচার্য প্রফেসর আনন্দ কুমার সাহা, উপ-উপাচার্য প্রফেসর চৌধুরী মো. জাকারিয়া, কোষাধ্যক্ষ প্রফেসর এ কে এম মোস্তাফিজুর রহমান আল-আরিফ ও রেজিস্ট্রার প্রফেসর মো. আবদুস সালামসহ প্রশাসনের ঊর্ধতন কর্মকর্তাগণ উপাচার্য ভবন থেকে র‌্যালি করে এসে বিশ্ববিদ্যালয় শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ ও শহীদদের স্মরণে এক মিনিট নীরবতা পালন করেন। সেখানে অন্যদের মধ্যে প্রক্টর ও ছাত্র-উপদেষ্টা প্রফেসর মো. লুৎফর রহমান, জনসংযোগ দপ্তরের প্রশাসক ড. মো. আজিজুর রহমান, অনুষদ অধিকর্তা, ইনস্টিটিউটসমূহের পরিচালক, হলসমূহের প্রাধ্যক্ষবৃন্দ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। এরপর শহীদ স্মৃতি সংগ্রহশালাসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও সংগঠন শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে।
ভোরে সূর্যোদয়ের সাথে সাথে প্রশাসন ভবনসহ অন্যান্য ভবনে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিতভাবে উত্তোলন করা হয়। সকাল ৭টা থেকে বিভিন্ন আবাসিক হল, বিভাগ ও ইনস্টিটিউট, রাবি শিক্ষক সমিতি ও রাবি মহিলা ক্লাবসহ বিভিন্ন পেশাজীবী সংগঠন ও প্রতিষ্ঠান, রাবি স্কুল ও শেখ রাসেল মডেল স্কুল প্রভাতফেরীসহ শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে।

দিবসের কর্মসূচিতে আরো ছিল, সকাল ৮:৩০ মিনিটে রাবি অফিসার সমিতির কার্যালয়ে সমিতির এবং সকাল ১০:৩০ মিনিটে সহায়ক কর্মচারী সমিতি, সাধারণ কর্মচারী ইউনিয়ন ও পরিবহন টেকনিক্যাল কর্মচারী সমিতির নিজ নিজ কার্যালয়ে আলোচনা সভা; একই সময়ে কেন্দ্রীয় কাফেটেরিয়ায় বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, রাবি ইউনিট কমান্ডের আলোচনা সভা; বাদ জোহর কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে কোরআনখানি ও মোনাজাত এবং সন্ধ্যায় কেন্দ্রীয় মন্দিরে বিশেষ প্রার্থনা।
রুয়েট: রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (রুয়েট) দিবসটি যথাযোগ্য মর্যাদায় পালন করে। একুশের প্রথম প্রহরে ভাষা শহিদদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে রুয়েট কেন্দ্রীয় শহিদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন রুয়েট ভাইস-চ্যান্সের প্রফেসর ড. মো. রফিকুল ইসলাম সেখ ও ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার প্রফেসর ড. মো. সেলিম হোসেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন পরিচালক ছাত্রকল্যাণ ও ২১ ফেব্রুয়ারি মহান শহিদ দিবস ও আর্ন্তজাতিক মাতৃভাষা দিবস ২০২১ উদযাপন কমিটির সভাপতি প্রফেসর ড. মো. রবিউল আওয়াল, শিক্ষক সমিতির সভাপতি প্রফেসর ড. মো. ফারুক হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর ড. মিয়া মো. জগলুল সাদত,এমই অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. মো. মোশাররফ হোসেন, পুরকৌশল বিভাগের প্রফেসর ড. আব্দুল আলিম,সিএসই বিভাগের অধ্যাপক প্রফেসর ড. মোঃ নজরুল ইসলাম মন্ডল, আইসিটি সেলে পরিচালক প্রফেসর ড. মো. আল মামুন, কেন্দ্রীয় কম্পিউটার সেন্টারের প্রশাসক ড. মো. আলী হোসেন, কেন্দ্রীয় ভান্ডারের প্রশাসক শ্যাম দত্ত, উপ-পরিচালক ছাত্রকল্যাণ মামুনুর রশীদ ও আবু সাঈদ, অফিসার সমিতির সাধারণ সম্পাদক প্রকৌশলী মুফতি মাহমুদ রনি, কর্মচারী সমিতির সভাপতি মহিদুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল মামুন, রুয়েট ছাত্রলীগের সভাপতি নাঈম রহমান নিবিড়, বিভাগীয় প্রধানবৃন্দ, পরিচালকবৃন্দ, শাখা প্রধানবৃন্দ, শিক্ষক-শিক্ষার্থীবৃন্দ। পরে শহীদদের সম্মানে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয় এবং সম্মিলিতভাবে জাতীয় সঙ্গীত গাওয়া হয়। এরপরই শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারী সমিতির নেতৃবৃন্দ এবং রুয়েট ছাত্রলীগ, বিভিন্ন হলের প্রভোস্ট, ইটিই বিভাগ, রুয়েটস্থ রাজশাহী শহর ছাত্র পরিষদসহ বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে শহিদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানানো হয়।
ভোরে প্রশাসনিক ভবনসহ সকল ভবনে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিতভাবে উত্তোলন করা হয়। বাদ যোহর রুয়েট কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে শহিদদের রুহের মাগফেরাত কামনা করে বিশেষ মোনাজাত ও মিলাদ অনুষ্ঠিত হয়।
বঙ্গবন্ধু পরিষদ : বঙ্গবন্ধু পরিষদ রাজশাহী জেলার উদ্যোগে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শহীদ মিনারে মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে শহীদদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে পুষ্পার্ঘ্য প্রদান করা হয়। সভাপতি প্রফেসর আবদুল খালেক ও সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর আবুল কাশেম এর নেতৃত্বে পুষ্পার্ঘ্য প্রদানের র‌্যালিতে উপস্থিত ছিলেন প্রফেসর আনসার উদ্দীন, অধ্যক্ষ মজিবুর রহমান, প্রফেসর হাবিবুর রহমান, প্রফেসর দুলাল চন্দ্র বিশ্বাস, প্রফেসর রেজাউল করিম বাদল, প্রফেসর আনিসুর রহমান, অধ্যাপক বনি আদম, অধ্যাপক রাশেদ আল মাহফুজ, অধ্যাপক দুলাল মোল্লাহ, অধ্যাপক সোহেল মেহেদী, অধ্যাপক আব্দুল কুদ্দুস, নাসরীন লুবনা, ইদ্রিস আলী, হাসান ঈমাম সুইট, জামসেদ হোসেন টিপু সহ অন্যান্য সদস্যবৃন্দ। পুষ্পার্ঘ্য প্রদান শেষে শহীদদের স্মৃতির প্রতি সম্মান জানিয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়।
আরইউজে: একুশের প্রথম প্রহরে ভাষা শহিদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়েছে রাজশাহী সাংবাদিক ইউনিয়ন (আরইউজে)। রোববার রাত ১২টা ১মিনিটে ঐতিহাসিক ভুবনমোহন পার্কে শ্রদ্ধা জানানো হয়। আরইউজের সভাপতি রফিকুল ইসলাম এবং সাধারণ সম্পাদক তানজিমুল হকের নেতৃত্বে শ্রদ্ধা নিবেদনের সময় আরইউজের সিনিয়র সদস্য রাজশাহী প্রেসক্লাব সভাপতি সাইদুর রহমান, আরইউজের কার্যনির্বাহী সদস্য আনিসুজ্জামান, আরইউজের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মামুন-অর-রশিদ, সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাইফুর রহমান রকি, আরইউজের সদস্য জিয়াউল গণি সেলিম, সুব্রত দাস, ফটোসাংবাদিক আজাহার উদ্দিন, সালাহ উদ্দিন, সেলিম জাহাঙ্গীরসহ আরইউজের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।
রাকাব: রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংক-এর উদ্যোগে ভাষা শহিদদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদনের লক্ষ্যে ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২১ সকাল ৭:৩০টায় রাজশাহী কলেজের শহিদ মিনারে রাকাবের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের পক্ষ থেকে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (অতিরিক্ত দায়িত্ব) মোহাম্মদ ইদ্রিছ। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, রাকাব, প্রধান কার্যালয়ের মহাব্যবস্থাপক (পরিচালন) জিএম রুহুল আমিন; উপ-মহাব্যবস্থাপকবৃন্দ; বিভাগীয় কার্যালয়; বিভাগীয় নিরীক্ষা কার্যালয়; জোনাল কার্যালয় ও জোনাল নিরীক্ষা কার্যালয়, রাজশাহী; প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউট ও এসইসিপি, রাজশাহী এবং রাজশাহী জোনের বিভিন্ন শাখার সকল স্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারী। একই সময়ে রাকাব কর্মচারী সংসদ (রাজ-৬১১)-এর পক্ষে কেন্দ্রীয় কমিটির নেতৃবৃন্দসহ অফিসার্স এ্যাসোসিয়েশন, অফিসার্স ফোরাম ও বঙ্গবন্ধু পরিষদের নেতৃবর্গও পুষ্প স্তবক অর্পণ করেন। পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ শেষে ভাষা শহীদদের রুহের মাগফেরাত কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়।
রাজশাহী শিক্ষা বোর্ড: রাজশাহী শিক্ষা বোর্ড শহিদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস’ পালন করে। সকাল ৮.৩০ টায় নিউ গভ. ডিগ্রী কলেজ, রাজশাহী’র শহিদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ এবং পবিত্র কোরআন তেলওয়াত ও শহিদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন এবং ১ মিনিট নিরবতা পালন করা হয়। সূর্যোদয়ের সাথে সাথে রাজশাহী শিক্ষা বোর্ড ভবনে জাতীয় পতাকা ও কালো পতাকা উত্তোলন (অর্ধনমিত) করেন চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. মোহা. মোকবুল হোসেন।
সকাল ৯.৩০ টায় রাজশাহী শিক্ষা বোর্ডে ‘শহিদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস’ এর তাৎপর্য ও গুরুত্ব সম্পর্কে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. মোহা. মোকবুল হোসেন। বিশেষ অতিথি ছিলেন- রাজশাহী শিক্ষা বোর্ডের সচিব ড. মো. মোয়াজ্জেম হোসেন, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মো. আরিফুল ইসলাম, কলেজ পরিদর্শক প্রফেসর মো. হাবিবুর রহমান, বিদ্যালয় পরিদর্শক প্রফেসর দেবাশীষ রঞ্জন রায়, উপ-পরিচালক (হিসাব ও নিরীক্ষা) মো. বাদশা হোসেন, তথ্য ও গণসংযোগ কর্মকর্তা সুলতানা শামীমা আক্তার এবং কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতি মোহা: হুমায়ুন কবীর (লালু) ও সাধারণ সম্পাদক জনাব মো. মাহাবুব আলী।
প্রধান অতিথি তাঁর বক্তব্যে বলেন- কেবলমাত্র ভাষা আন্দোলনের মধ্য দিয়ে বাংলা ভাষার প্রাপ্তি, স্বাধীনতা অর্জন এবং পরবর্তী সময়ে একুশের চেতনায় বাংলা ভাষা আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে স্থান লাভ করেছে- যা জাতি হিসেবে আমাদের বড় অর্জন ও গৌরবের। এছাড়া অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- বোর্ডের সচিব ড. মো. মোয়াজ্জেম হোসেন এবং কলেজ পরিদর্শক প্রফেসর মো. হাবিবুর রহমান।
সভায় সভাপতিত্ব করেন বোর্ডের কলেজ পরিদর্শক প্রফেসর মো. হাবিবুর রহমান। অনুষ্ঠানের সঞ্চালকের দায়িত্ব পালন করেন উপ-বিদ্যালয় পরিদর্শক ও অফিসার্স কল্যাণ সমিতির সভাপতি মো. মুঞ্জুর রহমান খান।
পরে বাদ আসর শিক্ষা বোর্ড মসজিদে শহিদদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে মিলাদ মাহ্ফিল ও দোয়া অনুষ্ঠিত হয়। দোয়া পরিচালনা করেন বোর্ড মসজিদের ইমাম মাওলানা আবুল হাশেম মো. রহমাতুল্লাহ।
বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়: ভাষা শহিদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে শহিদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ ও দিনব্যাপী নানা কর্মসূচীর মধ্যে দিয়ে বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয় মহান শহিদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন করেছে।
সকাল ৯:৩০ মিনিটে বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের কাজলা ভবন থেকে বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার ড. মো. মহিউদ্দীনের নেতৃত্বে প্রভাতফেরি বের করে। যা রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় শহিদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ ও শহিদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে এক মিনিট নিরবতা পালনের মধ্যে দিয়ে শেষ হয়।
কর্মসূচীর দ্বিতীয়পর্ব শুরু হয় শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও কর্মকর্তার অংশগ্রহণে একুশভিত্তিক অনলাইন আলোচনা ও মনোজ্ঞ সঙ্গীত দিয়ে। বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্মানিত ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য প্রফেসর ড. তারিক সাইফুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনলাইন আলোচনায় প্রধান অতিথি হিসেবে যুক্ত ছিলেন বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের উপদেষ্টা প্রফেসর ড. এম. সাইদুর রহমান খান। বিশেষ অতিথি হিসেবে যুক্ত ছিলেন বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. এম ওসমান গনি তালুকদার, ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য প্রফেসর শহীদুর রহমান। যুক্ত ছিলেন রেজিস্ট্রার ড. মো. মহিউদ্দীন, কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রধান প্রফেসর ড. শহিদ উজ জামান, দিবস উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক ও ইংরেজি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক আকরাম হোসেনসহ বিভিন্ন বিভাগের কো-অর্ডিনেটর, শিক্ষক, শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা, কর্মচারীবৃন্দ।
অনুষ্ঠানে আলোচকগণ একটি জাতি বা গোত্রের জন্য মাতৃভাষা ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস কতটুকু গুরুত্ব বহন করে সে সকল বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন। প্রফেসর ড.এম. সাইদুর রহমান খান তাঁর বক্তব্যে ১৯৯৯ সালে প্যারিসে অনুষ্ঠিত ইউনেস্কোর ৩০তম সাধারণ সম্মেলনে ২১ ফেব্রুয়ারিকে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসাবে ইউনেস্কোর স্বীকৃতি লাভের আশায় ছয় সদস্য বিশিষ্ট বাংলাদেশ প্রতিনিধি দলের অন্যতম সদস্য হিসাবে যে সকল উল্লেখযোগ্য ঘটনার সম্মুখিন হোন তার বর্ণনা দেন। তিনি দু’জন মানুষের কথা বিশেষভাবে উল্লেখ করেন যারা ২১ ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসাবে বিশ্বায়নের চিন্তা করেন সর্বপ্রথম। তাঁরা হলেন কানাডা প্রবাসী জনাব রফিকুল ইসলাম এবং জনাব আব্দুস সালাম।
নর্থ বেঙ্গল ইন্টারন্যাশাল ইউনিভার্সিটি: নর্থ বেঙ্গল ইন্টারন্যাশাল ইউনিভার্সিটিতে (এনবিআইইউ) যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত হয়েছে। দিবসের শুরুতে সকাল ৯টায় ইউনিভার্সিটির প্রশাসনিক ভবনে জাতীয় পতাকা ও কালো পতাকা উত্তোলন করা হয়। এরপর সেখানে এক সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। সভায় ইউনিভার্সিটির উপাচার্য প্রফেসর ড. আবদুল খালেক এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন, ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান নারী উদ্যোক্তা ও কথাসাহিত্যিক অধ্যাপক রাশেদা খালেক।
বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ইউনিভার্সিটির উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. মুহম্মদ আবদুল জলিল, ইংরেজি বিভাগের চেয়ারম্যান প্রফেসর আব্দুর রউফ। ছাত্রকল্যাণ উপদেষ্টা হাসান ইমাম সুইট এর সঞ্চালনায় এসময় উপস্থিত ছিলেন ইউনিভার্সিটির রেজিস্ট্রার রিয়াজ মোহাম্মদ, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক, প্রক্টর সহ বিভিন্ন বিভাগের বিভাগীয় প্রধান, কোঅর্ডিনেটর, শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ। পরে সকাল ১০টায় প্রভাতফেরী র‌্যালি সহ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শহীদ মিনারে মহান শহীদদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করে পুষ্পমাল্য অর্পণ এবং শহীদদের স্মরণে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়।
রাজশাহী কলেজ: মহান শহিদ দিবস ও আন্তজার্তিক মাতৃভাষা দিবস যথাযোগ্য মর্যাদায় পালন করেছে, রাজশাহী কলেজ। দিবসটি উপলক্ষে রাজশাহী কলেজ মাসব্যাপি বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করে। এসব কর্মসূচির মধ্যে ছিলো, রচনা, কবিতা আবৃত্তি, বানান শুদ্ধিকরণ, উপস্থিত বক্তৃতা, কুইজ, একুশের গান ও চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা। ১৭ ও ১৮ ফেব্রুয়ারি র্ভাচুয়াল এসব প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। ২০ ফেব্রুয়ারি ২০ দিনব্যাপি বইমেলার উদ্বোধন করেন, কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ প্রফেসর আব্দুল খালেক। সন্ধ্যায় মোমবাতি জ্বালিয়ে ভাষা শহিদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়। রাত ১২ টা ১ মিনিটে অধ্যক্ষের নেতৃত্বে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়। সকাল ৮ টায় অধ্যক্ষের নেতৃত্বে কলেজের কর্মকর্তা-কর্মচারী ও শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে কালো ব্যাজ ধারণ করে প্রভাত ফেরি অনুষ্ঠিত হয়। এছাড়া আলোচনা সভা, রক্তদান কর্মসূচি, দোয়া মাহফিলসহ একুশের গান পরিবেশন করা হয়। এসকল আয়োজেন রাজশাহী কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ প্রফেসর আব্দুল খালেক ও সদ্য বিদেয়ী অধ্যক্ষ প্রফেসর মহা. হবিবুর রহমানের নেতৃত্বে কলেজের শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারী ও শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।
রাজশাহী কলেজ রিপোর্টার্স ইউনিটি: দিবসটি উপলক্ষে রাজশাহী কলেজ মুসলিম হোস্টেলে অবস্থিত দেশের প্রথম শহিদ মিনারে ভাষা শহিদদের স্মরণে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করেছে, রাজশাহী কলেজ রিপোর্টার্স ইউনিটি (আরসিআরইউ)। রোববার (২১ ফেব্রুয়ারি) সকাল সাড়ে আটটার দিকে স্বাস্থ্যবিধি ও সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে আরসিআরইউ’র সভাপতি এম ওবাইদুল্লাহ ও সাধারণ সম্পাদক মোফাজ্জল বিদ্যুৎ এর নেতৃত্বে ইউনিটির সদস্যরা শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।
এসময় উপস্থিত ছিলেন, সংগঠনের প্রধান পৃষ্ঠপোষক ও রাজশাহী কলেজের সদ্য বিদায়ী অধ্যক্ষ প্রফেসর মহা. হবিবুর রহমান, পৃষ্ঠপোষক ও কলেজের উপাধ্যক্ষ ( ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ) প্রফেসর মোহা. আব্দুল খালেক ও সংগঠনের উপদেষ্টা বাংলা বিভাগের প্রভাষক মোস্তাফিজুর রহমান। এছাড়া আরো উপস্থিত ছিলেন, সাংগঠনিক সম্পাদক মেহেদী হাসান, অর্থ সম্পাদক মাহাবুল ইসলাম, দপ্তর সম্পাদক আব্দুল হাকিম, নির্বাহী সদস্য আবু সাইদ রনি প্রমুখ।
নিউ ডিগ্রি কলেজ: দিবসটি উপলক্ষে ভাষা শহিদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে শহিদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়। পরে কলেজ অডিটোরিয়ামে আলোচনাসভা, পুরস্কার বিতরণ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান হয়েছে। সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন, কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ড. আবেদা সুলতানা। বিশেষ অতিথি ছিলেন, উপাধ্যক্ষ প্রফেসর ড. অলীউল আলম। সভাপতিত্ব করেন, ইতিহাস বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. শাহাদত হোসেন সরকার।
আওয়ামী মুক্তিযোদ্ধা লীগ: ২১ শে ফেব্রুয়ারি শহিদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষ্যে বাংলাদেশ আওয়ামী মুক্তিযোদ্ধা লীগের শিরইল রেলওয়ে সুপার মাকের্টস্থ অস্থায়ী কার্যালয়ে প্রত্যুষে শোক পতাকা উত্তোলন, সংগঠন ও জাতীয় পতাকা অর্ধনমীত করণ, সকাল ৭ টায় কালো ব্যাজ ধারণ ও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ জাতীয় চার নেতার প্রতিকৃতিতে মাল্যদান, প্রভাতফেরী শেষে সকাল ৯ টায় কেন্দ্রীয় শহিদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ এবং দুপুরে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। এসময় উপস্থিত ছিলেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল কুদ্দুস (ব্যাংক), মোজ্জামেল হক (ব্যাংক), এসএম মাহবুব আলম (ব্যাংক), বয়েন উদ্দীন (ব্যাংক), আনিছুর রহমান (পোরশা), অফিস সেক্রেটারী বাবু উপেন্দ্র চন্দ্র দাস ও রেলওয়ে কমান্ডার ওবায়দুর রহমান প্রমুখ।
মুক্তিসংগ্রাম পরিষদ, মুক্তিযুদ্ধ’ ৭১ কানপাড়া: কানপাড়া মুক্তি সংগ্রাম পরিষদ মুক্তিযুদ্ধ ৭১, আওয়ামী লীগ, শিক্ষক সমিতি, বণিক সমিতি ও স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধা সংসদের ২১ শে ফেব্রুয়ারি শহিদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত হয়েছে। ভোরে নিজ নিজ কার্যালয়ে শোক পতাকা ও সংগঠনের পতাকা উত্তোলন, কারো ব্যাজ ধারণ , জাতির পিতাসহ জাতীয় চার নেতার প্রতিকৃতিতে মাল্যদান, প্রভাতফেরী শেষে শহিদ মিনারে গমন ও শহিদ বেদিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ এবং সকাল ১১ টায় আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। এসময় উপস্থিত ছিলেন,কানপাড়া আঞ্চলিক কমিটির সভাপতি অধ্যক্ষ আনিছুর রহমান, সেক্রেটারী তনছের মাষ্টার, অফিস সেক্রেটারী ড. ইয়াদ আলী, নওহাটা পৌর কমান্ডার শফিকুর রহমান, মুক্তিযোদ্ধা মতিউর রহমান, বণিক সমিতির মনছুর রহমান, শিক্ষক সমিতির অধ্যাপক মামুনুর রশিদ ও মাসুদ রানা, আওয়ামী লীগ নেতা মোলভী আমজাদ হোসেন প্রমুখ।
রেশম উন্নয়ন বোর্ড: দিবসটি উপলক্ষে সকালে বোর্ডের মহাপরিচালক মু. আবদুল হাকিমের নেতৃত্বে রাজশাহী কলেজ শহীদ মিনারে ভাষা শহীদদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা নিবেদন স্বরূপ পুস্পস্তবক অর্পণ করা হয়। সূর্যদয়ের সাথে সাথে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত রাখা হয়।
প্রভাত ফেরিতে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ রেশম উন্নয়ন বোর্ডের পরিচালক (গবেষণা ও প্রশিক্ষণ) একেএম আমিরুল ইসলাম, পরিচালক (অর্থ ও পরিকল্পনা) এমএ মান্নান, পরিচালক (প্রশাসন) সৈয়দ মোস্তাক হাসান, পরিচালক (উৎপাদন ও বিপণন) মোছা: নাছিমা খাতুন, সিবিএ সভাপতি আবু সেলিমসহ রেশম উন্নয়ন বোর্ডের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ।
ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন: রাজশাহী ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশনের অস্থায়ী কার্যালয়ে শহিদ দিবস এবং আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষ্যে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এসময় উপস্থিত ছিলেন, রাজশাহী ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশনের সাধারণ সম্পাদক শাহাদত হোসেন, ফাউন্ডেশনের কোষাধ্যক্ষ হাসেন আলী, যুগ্ম সম্পাদক মাসুদুর করিম সম্রাট, সাংগঠনিক সম্পাদক লিয়াকত আলী, নির্বাহী সদস্য তরিকুল ইসলাম স্বপন, এ কে মাসুদ প্রমুখ।
মেট্রোপলিটন কলেজ: রাজশাহী মেট্রোপলিটন কলেজে শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মার্তৃভাষা দিবস পালিত হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষ্যে সকালে শহিদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ এবং অনলাইনে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন, মেট্রোপলিটন কলেজের অধ্যক্ষ সাইফুর রহমান,প্রভাষক বিধান চন্দ্র সরকার এবং শিক্ষার্থীরা।
শহিদ এএইচএম কামরুজ্জামান সরকারি ডিগ্রি কলেজ: শহিদ এএইচএম কামরুজ্জামান সরকারি ডিগ্রি কলেজে ২১ শে ফেব্রুয়ারি শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মার্তৃভাষা দিবস পালিত হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষে শিক্ষক এবং কর্মচারীরা কলেজ প্রাঙ্গনে অস্থায়ী শহীদ মিনারে প্রস্পস্তবক অর্পণ এবং সকাল ১০টায় আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এসময় উপস্থিত ছিলেন, অধ্যক্ষ প্রফেসর আব্দুল খালেক সরকার, শিক্ষক পরিষদের সম্পাদক আমিনুল ইসলাম, মুজিববর্ষ উদাযাপন কমিটির আহবায়ক আব্দুল খালেক শান্ত ও কমিটির সদস্য মোহাম্মদ আতিকুজ্জামান।
রাজশাহী কলেজিয়েট স্কুল: শহিদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষ্যে রাজশাহী কলেজিয়েট স্কুলে সকালে প্রভাত ফেরির মাধ্যমে বিদ্যালয়ের শহিদ মিনারে শিক্ষক শিক্ষিকা এবং কর্মচারীদের পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়েছে। পরবর্তি কর্মসূচি হিসেবে দোয়া ও মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।
শাহ মখদুম মেডিকেল কলেজ: শহিদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষ্যে রাজশাহী শাহ মখদুম কলেজে র‌্যালী ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। র‌্যালী শেষে কলেজ শহিদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন, কলেজের পরিচালক কবির হোসেন, সহকারী পরিচালক ডা. মোজাম্মেল হক, বিভিন্ন পর্যায়ের শিক্ষক মন্ডলী, ছাত্র-ছাত্রী এবং কর্মকর্তারা।
ন্যাপ: শহিদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষ্যে জেলা ও মহানগর ন্যাপ কমিটির কেন্দ্রিয় শহিদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়েছে। এসময় উপস্থিত ছিলেন, জেলা ও মহানগর ন্যাপ এর কেন্দ্রিয় নেতা মুস্তাফিজুর রহমান খান (আলম), সাইদুর ইসলাম সহ লিটন, রানা,পলান শাহা, মামুন বিন্দু, নয়ন, তুষার, আমিন প্রমুখ।
উদীচী: মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে একুশ তুমি রক্তমাখা বাংলা বর্ণমালা, ভাইয়ের বুকের বিদ্ধ বুলেট, বিপ্লবী পাঠশালা স্লোগানকে ধারণ করে প্রভাতফেরি শহীদ বেদীতে পূষ্পার্ঘ্য অর্পণ, আলোচনাসভা ও শহীদদের স্মৃতিতে সাংস্কৃতিক পরিবেশনা করেছে উদীচী রাজশাহী জেলা সংসদ।
সকালে রাজশাহী নগরীর সাহেব বাজার জিরোপয়েন্ট প্রেসক্লাব চত্বরে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এর আগে সকাল সাড়ে ৭ টায় সাহেব বাজার জিরো পয়েন্ট থেকে প্রভাত ফেরি শেষে ভূবন মোহন পার্কের শহীদ বেদীতে পূষ্পার্ঘ্য অর্পণ করেন তারা।
উদীচী কেন্দ্রীয় সংসদের সহ-সভাপতি ও রাজশাহী জেলা সংসদের সভাপতি অধ্যক্ষ জুলফিকার আহমেদ গোলাপের সভাপতিত্বে ও জাতীয় পরিষদ সদস্য শাহিনুর রহমান সোনার সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় বক্তব দেন, ভাষা সৈনিক মোশারফ হোসেন আকুঞ্জি, উদীচী রাজশাহী জেলা সংসদের সহ-সভাপতি অধ্যক্ষ রাজকুমার সরকার ও সাধারণ সম্পাদক অজিৎ কুমার মন্ডল। এসময় সিপিবি রাজশাহী জেলা সভাপতি কমরেড এনামুল হক, সাধারণ সম্পাদক ও রাকসুর সাবেক ভিপি রাগিব আহসান মুন্না, ভাষা ও সংস্কৃতি গবেষক ড. রাজীব ব্যাণার্জী, শিক্ষক সন্তোষ কুমার, শান্তি রঞ্জন ভৌমিক, সুবোধ কবিরাজ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে সংগীত পরিবেশন করেন তরুণ কুমার ধর, ইশরাত জাহান সাথী, সুস্মিতা ফণি, শিউলি মার্ডি, সোমা ভৌমিক। তবলা সহযোগিতায় ছিলেন রথিজিৎ দাস। স্বরচিত কবিতা পাঠ করেন ব্রজেন্দ্রনাথ প্রামানিক, আবৃতি করেন সেলিনা বানু। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে নৃত্য পরিবেশন করেন নৃত্য শিল্পী অনিন্দিতা আফরিন ও ক্ষুদে নৃত্য শিল্পী জ্যোতি ।
আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, একুশের চেতনায় যদি ক্ষয় ধরে তবে বুঝে নিতে হবে বাংলাদেশের ক্ষয় ধরেছে এবং বাংলাদেশকে টিকিয়ে রাখতে হলে একুশের চেতনাকে টিকিয়ে রাখতে হবে। এছাড়া বক্তারা আরো বলেন, সর্বস্তরে বাংলা কে যদি নিশ্চিত করা না যায় তবে একুশের চেতনাকে যথাযথ মর্যাদা দেয়া হবে না। তাই এখনই সময় সর্বস্তরে বাংলাভাষার ব্যবহার নিশ্চিত করা। সমাজে বিদ্যমান বৈষম্য বজায় রেখে একুশের চেতনা বাস্তবায়ন হবে না। এছাড়াও ভাষা সৈনিক মোশারফ হোসেন আকুঞ্জি উত্তাল বায়ান্নর স্মৃতিচারণ করেন।
মন্দিরভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা: দিবসটি উপলক্ষে হিন্দুধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের ট্রাস্টি শ্রী তপন সেনের নেতেৃত্বে রাজশাহী কোর্ট চত্বরের শহিদ মিনারে ভাষা শহীদদের স্মরণে পুষ্পস্তবক অর্পন করা হয়। এসময় মন্দিরভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা কার্যক্রমের কর্মকর্তা, কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন।
সোনালী ব্যাংক: সোনালী ব্যাংক লিমিটেড, রাজশাহী বিভাগের পক্ষ থেকে ভাষা শহিদদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধাজ্ঞাপনসহ রাজশাহী কলেজ শহিদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পন করা হয়। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, মো. শাহাদত হোসেন, ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার, প্রিন্সিপাল অফিস রাজশাহী, এসিস্ট্যান্ট জেনারেল ম্যানেজার ফরিদ অহমেদ, রথীন্দ্রনাথ চক্রবর্তী, মো. মোর্শেদ ইমাম, মো. আয়েশউদ্দীন, কাজী মেহেদী হাসান, মুহ. তহসীনূর রহমান রেজা। এছাড়াও আরও উপস্থিত ছিলেন সোনালী ব্যাংক এমপ্লয়িজ ইউনিয়ন বি-২০২ প্রিন্সিপাল কমিটির সভাপতি মো. সালাহউদ্দীন, সাধারণ সম্পাদক মো. মুজাহার আলী, বঙ্গবন্ধু পরিষদের সভাপতি এএইচ.মাহমুদুন্নবী, বঙ্গমাতা পরিষদের মো. ওয়াসেক আলী সহ সোনালী ব্যাংক লিমিটেড রাজশাহী বিভাগের সর্বস্তরের কর্মকর্তা/কর্মচারীবৃন্দ।
মহান শহিদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস ২০২১ উপলক্ষে শহিদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পন করার পর সকল নির্বাহী ও কর্মকর্তা/কর্মচারী শহিদ মিনারে এক মিনিট নীরবতা পালন করে ভাষা শহিদদের প্রতি শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন। মহান শহিদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস ২০২১ উপলক্ষে মো. শাহাদত হোসেন, ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার, প্রিন্সিপাল অফিস রাজশাহী ভাষা শহিদদের স্মরণে তার বক্তব্যে বলেন ২১শে ফেব্রুয়ারি বাঙালি জাতির জীবনে শোক, শক্তি এবং মর্যাদার এক অনন্য প্রতীক। একুশের চেতনায় উদ্বুদ্ধ হয়ে আমাদের বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়তে হবে।
জেলা পরিষদ: মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে রাজশাহী জেলা পরিষদ বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করে।
রোববার সকাল ৭টার নগরীর কোর্ট শহীদ মিনারে মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে ভাষা শহীদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন রাজশাহী জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আলী সরকার।
শ্রদ্ধাঞ্জলি অপর্ণকালে কোর্ট শহিদ মিনারে উপস্থিত ছিলেন রাজশাহী জেলা পরিষদের সহকারী প্রকৌশলী মাসুদ-ই-মোহাম্মদ, জেলা পরিষদের সংরক্ষিত সদস্য-৫ জয়জয়ন্তি সরকার মালতি, ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড সার্ভে ইন্সটিটিউটের অধ্যক্ষ মাহমুদ হোসেন, জেলা পরিষদের উপ সহকারী প্রকৌশলী সুজাউল ইসলাম, সার্ভেয়ার মো. আলিফ আলী সহ অন্যান্য কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ।
রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি: বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি রাজশাহী জেলা ইউনিটের পক্ষ থেকে রাজশাহী নগরীর কোর্ট শহিদ মিনারে পুস্পস্তবক অপর্ণ করে রাজশাহী জেলা ইউনিট চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আলী সরকার ও জেলা ইউনিট সেক্রেটারি মো. শফিকুল ইসলাম শফিক। এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন, জেলা ইউনিটের কার্যনির্বাহী কমিটি সদস্য ও ইঞ্জিয়ারিং এন্ড সার্ভে ইন্সটিটিউটের অধ্যক্ষ মাহমুদ ও সামাউন ইসলাম, জেলা পরিষদের সংরক্ষিত সদস্য-৫ জয়জয়ন্তি সরকার মালতি সহ বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট রাজশাহী জেলা ইউনিটের সদস্যবৃন্দ।
জাসদ: আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস, একুশের প্রথম প্রহরে প্রস্তাবিত রাজশাহী কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে শহীদ দের প্রতি জাসদ রাজশাহী মহানগর ও জেলা শাখার বিনম্র শ্রদ্ধা নিবেদন।
মহানগর জাসদের সভাপতি আব্দুল্লাহ আল মাসুদ শিবলী, সাধারন সম্পাদক আমিরুল কবির বাবু ও জেলা সভাপতি প্রদীপ মৃধার নেতৃত্বে জাসদ মহানগর ও জেলার নেতৃবৃন্দ এবং যুবজোটের সভাপতি শরিফুল ইসলাম সুজন, সাধারন সম্পাদক সুমন চৌধুরির নেতৃত্বে যুবনেতৃবৃন্দ মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের প্রথম প্রহরে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে শহীদদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।
এসময় উপস্থিত ছিলেন জাসদের কেন্দ্রীয় নেতা জুলফিকার মান্নান জামী, জাসদ নেতা শাহরিয়ার রহমান সন্দেশ, শামসুজ্জামান শামসু,মাসুম আহমেদ, আশরাফুল ওমর দুলাল, বাহাউদ্দিন বাহার, কাবীর খান, আশরাফুল আলম সিদ্দিক, ইকবাল কবীর, পিকুল খান, গাজী আলমগীর কবীর, মতিউর রহমান শিউল, যুবজোট নেতা সৈয়দ জোহেব রনি, পাভেল ইসলাম মিমুল, ফয়সাল রানা, ছাত্রনেতা মিনহাজুল ইসলাম, মুস্তাকিম বিল্লাহ প্রমুখ। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন মহানগরীর বিভিন্ন থানা-ওয়ার্ডের নেতা-কর্মীরা।
সরকারি সিটি কলেজে: রাজশাহী সরকারি সিটি কলেজে মহান শহিদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস-২০২১ উদযাপিত হয়। রাত ১২.১ মি. কেন্দ্রীয় শহিদ মিনারে পুষ্পার্ঘ্য অপর্ণ এবং একুশের প্রথম প্রহরে কলেজ শহিদমিনারে পুস্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে এ দিবসের আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়। সূর্যোদয়ের সাথে সাথে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিতভাবে উত্তোলন করা হয়। সকাল ১১টায় আয়োজিত অনুষ্ঠান পবিত্র কুরআন তিলাওয়াত ও পবিত্র গীতাপাঠের মাধ্যমে শুরু হয়। আলোচনা, পুরস্কার বিতরণ ও দু’আর এ অনুষ্ঠানে সভাপতি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কলেজের অধ্যক্ষ (ভারপ্রাপ্ত) প্রফেসর মো. শফিকুল হক। আলোচনায় বক্তব্য রাখেন কমিটির আহ্বায়ক মো. আবদুল হাই সিদ্দিকী, বিভাগীয় প্রধান, বাংলা বিভাগ ও সম্পাদক, শিক্ষক পরিষদ ও রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের বিভাগীয় প্রধান এ.এফ.এম বজলুল কবীর। এছাড়াও একাদশ শ্রেণির মানবিক বিভাগের ছাত্র শাহারিয়ার হোসেন আসিফ ছাত্রদের পক্ষে এবং গণিত বিভাগের সহকারী অধ্যাপক, উমর ফারুক, হিসাববিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক মু. যহুর আলী।
রাজশাহী প্রেসক্লাব: রাজশাহী প্রেসক্লাব ও জননেতা আতাউর রহমান স্মৃতি পরিষদ। রোববার রাত ১২ টা ০১ মিনিটে প্রথম প্রহরেই ক ভুবনমোহন পার্ক শহিদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে ভাষা শহিদদের শ্রদ্ধা জানানো হয়।
এ সময় রাজশাহী প্রেসক্লাব ও জননেতা আতাউর রহমান স্মৃতি পরিষদ সভাপতি সাইদুর রহমানের নেতৃত্বে পুষ্পস্তবক অর্পণকালে অন্যান্যের মাঝে রাজশাহী প্রেসক্লাব ও জননেতা আতাউর রহমান স্মৃতি পরিষদের সাধারণ সম্পাদক আসলাম উদ-দৌলা, রাজশাহী প্রেসক্লাবের যুগ্ম সম্পাদক নুরে ইসলাম মিলন, জননেতা আতাউর রহমান স্মৃতি পরিষদের সহঃ সভাপতি সালাউদ্দীন মিন্টু, সাংগঠনিক সম্পাদক আসাদুল হক দুখু, প্রচার সম্পাদক আমানুল্লাহ আমান, সদস্য মো. শরিফ উদ্দীন, ফারুক আহম্মেদ, জামিল হোসেন জনি, সাগর নোমানী, আরিফুল ইসলাম, আইয়ুব আলী তালুকদার, হানিফ চৌধুরী, নাইম হোসেনসহ আরো অনেকে উপস্থিত ছিলেন।
মহিলা টিটিসি: রাজশাহী মহিলা কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের কর্মকর্তা/কর্মচারীদের অংশগ্রহণের মধ্যদিয়ে মহান শুহদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত হয়। সকাল ৬.৩০ ঘটিকায় জাতীয় পতাকা (অর্ধনমিত) উত্তোলনের মধ্যদিয়ে কর্মসূচীর উদ্বোধন করা হয়। সকাল ৭ ঘটিকায় অমর একুশের কালো ব্যাচ ধারণ পূর্বক রাজশাহী মহিলা টিটিসি’র নব নির্মিত শহিদ মিনারে মহিলা টিটিসির অধ্যক্ষ মো. নাজমুল হকসহ কর্মকর্তা, কর্মচারীরা পৃথক পৃথক ভাবে শহিদদের শ্রদ্ধাঞ্জলিসহ পুস্পস্তবক অর্পণ করেন। এছাড়াও রাজশাহী মেট্রোপলিটন কলেজের অধ্যক্ষ সহ কর্মকর্তা/কর্মচারীরা রাজশাহী মহিলা টিটিসি’র শহিদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। সকাল ৮.৩০ ঘটিকায় অত্র কেন্দ্রের কর্মকর্তা/কর্মচারী ও ছাত্রীদের সমন্বয়ে আলোচনা পর্ব শুরু হয়। আলোচনার শুরুতে ভাষা শহিদদের স্মরণে ১মিনিট নিরবতা পালন করা হয়। এরপর একে একে প্রশিক্ষক/জেনারেল টিচার সাবিহা সুলতানা, চিফ ইন্সট্রাক্টর ফারহানা তৌহিদ, প্রসাদ কুমার সরকার ও আতিকুর রহমান বক্তব্য রাখেন। অনুষ্ঠানটির সঞ্চালনা করেন রাজশাহী
মহিলা পরিষদ: দিবসটি উপলক্ষে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ রাজশাহী জেলা শাখার উদ্যোগে আলুপট্টি মোড় থেকে প্রধান সড়ক প্রদর্শন করে কেন্দীয় প্রতিকী শহিদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়।
সকালে নিজস্ব কার্যালয়ে সংগঠনের সভাপতিও কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য কল্পনা রায়ের সভাপতিত্বে আলোচনা সভার শুরুতে শহিদদের আত্মার প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে ১ মিনিট নিরাবতা পালন করা হয়।
সভায় শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন, সাধারণ সম্পাদক অঞ্জনা সরকার। এসময় উপস্থিত ছিলেন, সহ-সভাপতি লাইলুন নাহার, সহ-সাধারণ সম্পাদক নিলুফার আহমেদ, লিগ্যাল এইড সম্পাদক শিখা রায়, প্রশিক্ষণ গবেষণা ও পাঠাগার সম্পাদক সেলিনা বানু, কার্যকরী কমিটির সদস্য সিরাজুন নেসা পারুল, কৃষ্ণা রানী মন্ডল, নুরুন্নাহার পারভীন প্রমুখ। সভা পরিচালনা করেন, সাংগঠনিক সম্পাদক আলিমা খাতুন লিমা।
রাজশাহী ডিপ্লোমা অ্যাসোসিয়েশন: বাংলাদেশ ডিপ্লোমা মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশন রাজশাহী জেলা শাখার উদ্যোগে শহিদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষে কেন্দ্রিয় শহিদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ ও সকালে আলোচনাসভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।
এসময় উপস্থিত ছিলেন, রাজশাহী জেলার বিডিএম সভাপতি খন্ডকার হালিমুজ্জামান সোনা, সাধারণ সম্পাদক রমজান আলী, সহসাংগঠনিক সম্পাদক ড. শাহিনুর রহমান প্রমুখ।
রিভার ভিউ কালেক্টরেট স্কুল: সকালে নিউ ডিগ্রি গভ. কলেজের শহিদ মিনারে ভাষা শহিদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করে। দ্বিতীয় পর্বে স্কুলে সরকারি বিধি মোতাবেক শিক্ষার্থীদের মাঝে বিভিন্ন বিষয়ের প্রতিযোগিতার বিভিন্ন পুরস্কার প্রদান করা হয়। ভাষা শহিদদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে মোনাজাত এর আয়োজন করা হয়।
উপস্থিত ছিলেন, প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষক জনাব মনোয়ারা পারভীন, সিনিয়র সহকারী শিক্ষক তাপস চক্রবর্ত্তী, নাসিম বেগম, শরিফুল ইসলাম, মাহফুজ রেজা, মো: আলী আশরাফ, মো. রনি , আদি সুলতান, সালাউদ্দিন প্রমুখ। পরে প্রধান শিক্ষকের সভাপতিত্বে সকল শিক্ষকগণকে নিয়ে এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। এতে বিভিন্ন শিক্ষকগণ ও শিক্ষার্থী বক্তব্য উপস্থাপন করেন।
ব্রাহ্মণ পুরোহিত ঐক্য পরিষদ: রাজশাহী জেলা কার্যালয়ে ঐক্য পরিষদের পক্ষে ভাষা শহিদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়। বাংলাদেশের সমস্ত ব্রাহ্মণ কুলতিলকগণকে এক প্ল্যাাটফর্মে নিয়ে এসে আত্মসমালোচনার মাধ্যমে আত্মোন্নতি সাধন ও সমাসসেবামূলক কার্যাবলি, পূজাপদ্ধতি সম্পর্কে আরো অধিক জ্ঞানার্জন অবহেলিত আর্থিক বিপর্যস্ত ব্রাহ্মণগণকে জীবন মান উন্নত করতে, একে অপরের পারস্পারিক সহযোগিতার মাধ্যমে ভ্রাতৃত্ববোধ প্রতিষ্ঠা করা এবং সনাতনীদের প্রকৃত সনাতন ধর্মের পথ দেখানোই এ পরিষদের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য। উপস্থিত ছিলেন, পরিষদের সভাপতি প-িত আশুতোষ ব্যানার্জী, প্রভাষক, রাজশাহী বিশ^বিদ্যালয় স্কুল অ্যান্ড কলেজ, সাধারণ সম্পাদক পুরোহিত তাপস চক্রবর্ত্তী, সিনিয়র সহকারী শিক্ষক, রিভার ভিউ কালেক্টরেট স্কুল, রাজশাহী, সাংগঠনিক সম্পাদক পুরোহিত পার্থ মূখার্জী, সহ. শিক্ষক নিহার রঞ্জন কুমার রায়, গৌতম কুমার চক্রবর্ত্তী, দুলর্ভ চক্রবর্ত্তী, সুমন চক্রবর্ত্তীসহ স্বনামধন্য পুরোহিতবৃন্দ। সবশেষে ভাষা শহিদদের আত্মার শান্তি কামনা করা হয়।
মুক্ত মঞ্চ শিশু থিয়েটার: ভাষা শহিদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদনে উপস্থিত ছিলেন- সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি কবি ও নাট্যকার তাপস চক্রবর্ত্তী, সাধারণ সম্পাদক দুর্লভ চক্রবর্ত্তী, সুমন চক্রবত্তী, পার্থ মূখার্জী প্রমুখ এবং কোমল মতি শিশু-কিশোর শিক্ষার্থীবৃন্দ। সবশেষে ভাষা শহিদদের আত্মার শান্তি কামনা করা হয়।
গোদাগাড়ী : দিবসটি উপলক্ষে উপজেলা প্রশাসন বিভিন্ন কর্মসুচিগ্রহন করে। প্রথম প্রহরে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পূস্প অর্পণ করেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জানে আলম, পৌর আওয়ামীলীগ সভাপতি অয়েজউদ্দীন বিশ্বাস, পৌর যুবলীগ সভাপতি অধ্যাপক আকবর আলীসহ বিভিন্ন সংগঠন।
এদিকে উপজেলার দেওপাড়া ইউনিয়নের রাজাবাড়ীহাট উচ্চ বিদ্যালয়, কদম শহর উচ্চ বিদ্যালয় ও পালপুর উচ্চ বিদ্যলয়ে পৃথকভাবে পালন করে। উপজেলা সভাপতি আবুল কালাম আজাদের সভাপতিত্বে কর্মসূচিগুলোতে প্রধান অতিথি ছিলেন- ব্যবসায়ী ও যুবলীগ নেতা বেলাল উদ্দীন সোহেল।
বাঘা: বাঘায় পৃথকভাবে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন করা হয়েছে। ২১ ফেব্রুয়ারি রাত ১২টা ১ মিনিটে উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে দিবসটি উপলক্ষে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের বেদিতে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, উপজেলা নির্বাহী অফিসার, উপজেলা আ.লীগ, বিএনপি’র বিভিন্ন অংগ সংগঠন, উপজেলা পরিষদের কর্মকর্তা, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড কাউন্সিল, বাঘা থানার পুলিশ প্রশাসন, বাঘা প্রেস ক্লাব, বাঘা ও আড়ানী পৌর মেয়র, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধান শিক্ষক, ছাত্র-ছাত্রী, বিভিন্ন রাজনৈতিক দল, বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দ শহীদদের প্রতি ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। ফুল দিয়ে সেখানে এক মিনিট শহীদদের প্রতি নীরবতা পালন করা হয়।
সকালে র‌্যালি শেষে উপজেলা চত্বরের শহিদ মিনারে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। আয়োজিত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাহিন রেজা। অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীসহ সরকারি দপ্তরের কর্মকর্তা কর্মচারী।
অপর দিকে জেলা আ.লীগের সদস্য ও বাঘা পৌরসভার সাবেক মেয়র আক্কাছ আলীর নেতৃত্বে হাজার হাজার নারী পুরুষ নিয়ে দিবসটি উপলক্ষে একটি র‌্যালি করেন।
এ দিকে আড়ানী সরকারি মনোমোহিনী উচ্চ বিদ্যালয় ও বাঘা শাহদৌলা সরকারি ডিগ্রী কলেজ পৃথকভাবে দিবসটি পালন করেন। এছাড়া শহিদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে বাঘা ও আড়ানী কেন্দ্রীয় শহিদ মিনারে নামে মানুষের ঢল।
নওগাঁ: দিবসের প্রথম প্রহরে শহরের মুক্তির মোড় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পু®পস্তবক অর্পনের মধ্য দিয়ে দিবসের কর্মসূচি শুরু হয়। শহীদ মিনারে পুষ্পমাল্য অর্পন করেন, জেলা প্রশাসক হারুন অর-রশীদ, পুলিশ সুপার আবদুল মান্নান মিয়া বিপিএম, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, পৌর মেয়র নজমুল হক সনি, জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মাকর্তা, বিভিন্ন রাজনৈতিক দল, সরকারী-বেসরকারী প্রতিষ্ঠান, সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠনসহ শহীদদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানিয়ে পুষ্পস্তবক অর্পন করেন।
গোমস্তাপুর: গোমস্তাপুর উপজেলায় নানা আয়োজনে মহান শহিদ দিবস ও আর্ন্তজাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষে উপজেলা প্রশাসন, বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নানা কর্মসূচি পালন করে। উপজেলা প্রশাসন গৃহীত কর্মসূচীর মধ্যে ছিল ২১শের প্রথম প্রহরে শহিদ মিনারে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ, জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত করণ,শিশু-কিশোরদের কবিতা ও চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা, ভাষা শহীদদের স্মরণে বিশেষ মোনাজাত ও প্রার্থনা এবং আলোচনাসভা। প্রথম প্রহরে কেন্দ্রীয় শহিদ মিনারে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করেন গোমস্তাপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মিজানুর রহমান,সাবেক সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহসভাপতি জিয়াউর রহমান, সহকারী কমিশনার (ভূমি) শাহরিয়ার নজির, গোমস্তাপুর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জাহিদুর রহমান, গোমস্তাপুর থানার ওসি দিলিপ কুমার দাস, বীর মুক্তিযোদ্ধা আকতার আলী খান কচিসহ উপজেলা পরিষদ, রহনপুর পৌরসভা, পুলিশ প্রশাসন, রহনপুর পৌর নব নির্বাচিত মেয়র মতিউর রহমান খাঁন, বিভিন্ন রাজনৈতিক দল, উপজেলা প্রেসক্লাব, বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন এবং শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো। বিকেলে উপজেলা অটোডোরিয়ামে আলোচনাসভায় সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মিজানুর রহমান।
রহনপুরে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন তারুণ্য’র উদ্যোগে মহান শহিদ দিবস উপলক্ষে বিনামূল্যে রক্তের গ্রুপ নির্ণয় কর্মসূচির উদ্বোধন করা হয়েছে। রোববার সকালে রহনপুর রেলস্টেশনের প্ল্যাটফর্মে এ কর্মসূচীর উদ্বোধন করেন রহনপুর পৌরসভা নবনির্বাচিত মেয়র মতিউর রহমান খাঁন।
মান্দা : নওগাঁর মান্দায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান একুশে ফেব্রুয়ারি শহিদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন করা হয়েছে। উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে দিবসের প্রথম প্রহরে কেন্দ্রীয় শহিদ মিনারে শ্রদ্ধাঞ্জলী প্রদান করা হয়। এরপর মান্দা থানা পুলিশ, মান্দা প্রেসক্লাব, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, মান্দা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, মান্দা ফায়ার সার্ভিস, উপজেলা জাতীয় পার্টিসহ বিভিন্ন পেশাজীবী সংগঠন শহিদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।
এসময় মান্দা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মোল্লা এমদাদুল হক, ইউএনও আব্দুল হালিম, উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) ইমরানুল হক, মান্দা সার্কেলের সিনিয়র পুলিশ সুপার মতিয়ার রহমান, মান্দা থানার ওসি শাহিনুর রহমানসহ উপজেলার বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন।
পরে আলোচনা সভা শেষে চিত্রাঙ্কণ, কবিতা আবৃত্তি ও রচনা প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।
পত্নীতলা :পত্নীতলায় রোববার মহান শহিদ দিবস ও জান্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদ্যাপন উপলক্ষে উপজেলা প্রশাসন আয়োজিত রাত ১২.০১ মিনিটে নজিপুর সরকারি মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ে শহিদ মিনারে উপজেলা প্রশাসন, নজিপুর প্রেস ক্লাব, মডেল প্রেস ক্লাব ও বিভিন্ন সংগঠন শহিদদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা জানিয়ে পুস্পমাল্য অর্পণ করে। এ সময় উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. লিটন সরকার, পুলিশ প্রশাসন, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল গাফ্ফার, আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আব্দুল খালেক চৌধুরী, এবং অন্যান্য ছাত্র সংগঠন ও রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। বেলা ১১ টায় অডিটোরিয়াম হলে নির্বাহী অফিসারের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন সংসদ সদস্য শহীদুজ্জামান সরকার। তিনি শিক্ষার্থীদের চিত্রংকন প্রতিযোগিতার বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করেন এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।
মহাদেবপুর : মহাদেবপুরে নানা কর্মসূচীর মধ্যদিয়ে শহিদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত হয়েছে। উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে রাত ১২টা ০১ মিনিটে উপজেলা কেন্দ্রীয় শহিদমিনারে পুষ্পমাল্য অর্পণের মধ্যদিয়ে কর্মসূচী শুরু হয়। শহিদ মিনারে পূষ্পমাল্য অর্পণ করেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, উপজেলা নির্বাহী অফিসার, থানার অফিসার ইনচার্জসহ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, প্রেসক্লাব, বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ, সরকারি ও বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধানগণ, সামাজিক সংগঠনের প্রতিনিধিগণ, গন্যমান্য ব্যাক্তিবর্গসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ শহিদ মিনারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। এ উপলক্ষে সন্ধ্যায় উপজেলা পরিষদ অডিটরিয়ামে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. মিজানুর রহমানের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন, মহাদেবপুর ও বদলগাছী আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব মো. ছলিম উদ্দীন তরফদার সেলিম। উপজেলা কৃষি অফিসার অরুন চন্দ্র রায়ের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আহসান হাবিব ভোদন, সহকারী কমিশনার (ভূমি) আসমা খাতুন, মহাদেবপুর থানার ওসি (তদন্ত) আবুল কালাম আজাদ, মহাদেবপুর সদর ইউপি চেয়ারম্যান মুহাঃ মাহবুবুর রহমান ধলু, সহকারী অধ্যাপক হাফিজুল হক বকুল, কবি মীর আব্দুর রাজ্জাক প্রমুখ। উপজেলা প্রশাসন ও শিল্পকলা একাডেমির আয়োজনে চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা, উন্মোক্ত রচনা প্রতিযোগীতা ও হাতের লেখা প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয় এবং বিজয়ীদের মাঝে পুরুস্কার বিতরণ করেন। আলোচনা সভা শেষে রাতে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।
চাঁপাইনবাবগঞ্জ : বিনম্র শ্রদ্ধায় এবং যথাযোগ্য মর্যাদায় ও বিভিন্ন কর্মসূচীর মধ্যদিয়ে চাঁপাইনবাবগঞ্জে মহান অমর একুশে ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত হয়েছে। সূর্যোদয়ের সাথে সাথে সকল সরকারী-বেসরকারী ভবনে পতাকা অর্ধনমিত রাখা হয়। প্রভাত ফেরীতে সর্বস্তরের মানুষের পদচারণায় ও হৃদয় নিংড়ানো ভালোবাসায় সিক্ত হয় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার। এসময় শহীদ মিনারের বেদীতে ফুলে ফুলে ভরে ওঠে। এর আগে একুশের প্রথম প্রহরে রাত ১২ টা ১মিনিটে শহীদদের স্মরণে নবাবগঞ্জ সরকারি কলেজের শহীদ মিনারে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন জেলা প্রশাসক মোঃ মঞ্জুরুল হাফিজ ও পুলিশ সুপার এ এইচ এম আবদুর রকিব। পরে. মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, জেলা পরিষদ, নবাবগঞ্জ সরকারি কলেজ, চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভা, স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর, সড়ক ও জনপথ, জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর, সিভিল সার্জন অফিস, সমাজসেবা অধিদপ্তর, নির্বাহী প্রকৌশলী শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তর, উপজেলা প্রশাসন, জেলা কারাগার ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। এদিকে, সকালে জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মোঃ রহুল আমিন, সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক এমপি আব্দুল ওদুদ ও ফেরদৌসী ইসলাম জেসি’র নেতৃত্বে আ’লীগসহ বিভিন্ন অঙ্গসংগঠন শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। এছাড়া, বিভিন্ন রাজনৈতিক ও বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনসহ অন্যান্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও সর্বস্তরের মানুষ পুস্পস্তবক অর্পণ করেন। এদিকে, দিবসটি উপলক্ষে হরিমোহন সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে আলোচনা সভা শিক্ষক মফিজুল ইসলামের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা প্রফেসর মোঃ ইব্রাহীম, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক (ভারপ্রাপ্ত) গোলাম মুর্শেদ, সিনিয়র শিক্ষক সাদেকুল ইসলাম, বাইরুল ইসলাম আব্দুর রহমান প্রমুখ। শেষে ভাষা শহীদদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে দোয়া অনুষ্ঠিত হয়।

 

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ