সাঁথিয়ায় ১২ দিন পর অপহৃত অন্তঃসত্বা গৃহবধূর লাশ উদ্ধার

আপডেট: জুলাই ১১, ২০১৭, ১২:৪২ পূর্বাহ্ণ

সাঁথিয়া প্রতিনিধি


পাবনার সাঁথিয়ায় অপহরণের ১২ দিন পর অবশেষে পাশের গ্রামের সেফটি ট্যাংক থেকে অপহৃত অন্তঃসত্বা গৃহবদূ কুলছুমের লাশ উদ্ধার করেছে এলাকাবাসী।
এলাকাবাসী ও থানা সূত্রে জানা গেছে, গতকাল সোমবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে উপজেলার ছাতক-বরাট গ্রামের প্রবাসী নবীর উদ্দিন মধুর বাড়ির পাশ দিয়ে চলাচলের সময় দুর্গন্ধ পায় এলাকার লোকজন। তারা অনেক খোঁজাখুঁজির পরে মধুর সেফটি ট্যাংক থেকে দুর্গন্ধ আসছে বলে ধারণা করেন। পাশের বাড়ির মৃত সাত্তারের স্ত্রী মরিয়ম বেগম সেফটি ট্যাংকের ঢাকনা খুলে লাশ দেখতে পান। পরে খবর পেয়ে সাঁথিয়া থানা পুলিশ দুপুরে ঘটনাস্থলে এসে সেফটি ট্যাংক থেকে অপহৃত অন্তঃসত্বা গৃহবধু কুলছুমের (২৫) লাশ উদ্ধার করে।
ছাতক-বরাট গ্রামের বাড়ির মালিক নবীর উদ্দিনের স্ত্রী মমেনা খাতুন জানান, সকাল থেকেই বিরক্তিকর দুর্গন্ধ নাকে আসছিল। পরে দেখি আমার সেফটি ট্যাংকের মধ্যে লাশ রয়েছে। ট্যাংকের আটকানো ঢাকনা আলগা অবস্থায় দেখতে পাই।
এর আগে গত ২৯ জুন সন্ধ্যায় উপজেলার কাবারীকোলা গ্রামের গৃহবধূ কুলছুমের স্বামী নজর আলী বাড়িতে না থাকায় তার ছেলে নজরুল, উজ্জল হোসেন ও তাদের স্ত্রীরা ঘরের ভিতর কুলছুমকে মারপিট করে বাড়ি থেকে মাইক্রোবাসে অপহরণ করে নিয়ে যায়। এ ব্যাপারে কুলছুমের মা মাজেদা খাতুন বাদী হয়ে সাঁথিয়া থানায় মামলা করেছিল। অপহরণের পর থেকেই অভিযুক্ত দুই সৎ ছেলে নজরুল ইসলাম ও উজ্জ্বল হোসেন ও তাদের স্ত্রীদের খুঁজে পাচ্ছে না পুলিশ।
এ বিষয়ে সাঁথিয়া থানার অফসার ইনচার্জ (ওসি) হাসান ইনাম জানান, নিখোঁজ কুলছুমের লাশ সেফটি ট্যাংক থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য লাশ মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ