‘সাংবাদিকদের জেলে ভরা ঠিক নয়’, জুবেইরের গ্রেপ্তারিতে এবার সরব জাতিসংঘ

আপডেট: জুন ২৯, ২০২২, ১:৫৮ অপরাহ্ণ


সোনার দেশ ডেস্ক :


এবার জাতিসংঘের নিন্দার মুখে পড়ল দিল্লি পুলিশ। একজন সাংবাদিকের লেখা বা টুইট করার কারণে তাঁকে গ্রেপ্তার করা যায় না, এই কথা বলা হল জাতিসংঘের মহাসচিব অ্যান্তনিও গুতেরেসের তরফে।

একই সঙ্গে তিনি বলেছেন, মানুষকে স্বাধীন ভাবে মত প্রকাশের সুযোগ দিতে হবে। নিজের মনের কথা খুলে বলার কারণে কাউকে হেনস্তা করা অনুচিত।

ফ্যাক্ট চেকিং ওয়েবসাইট ‘AltNews’-এর সাংবাদিক মহম্মদ জুবেইরকে গত সোমবার গ্রেপ্তার করেছে দিল্লি পুলিশ। ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত করার অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে তাঁর বিরুদ্ধে। দুই সম্প্ররদায়ের মধ্যে শত্রুতা সৃষ্টিরও একাধিক অভিযোগ রয়েছে।

পুলিশের দাবি, গত কয়েক দিনে ৫০ লক্ষ টাকার লেনদেন হয়েছে জুবেইরের অ্যাকাউন্ট থেকে। দিল্লি আদালতে তাঁকে পেশ করার পরে আপাতত চার দিনের জন্য পুলিশি হেফাজতে রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

একটি সাংবাদিক সম্মেলনে গুতেরেসের মুখপাত্র স্টেফানি দুজারেচকে জুবেইরের গ্রেপ্তারির বিষয়ে প্রশ্ন করা হয়। জাতিসংঘের প্রতিনিধি হিসাবে তিনি বলেন, “বিশ্বের যেকোনও প্রান্তেই বাক স্বাধীনতার অধিকার থাকা খুব জরুরি।

মানুষ যেন নিজের কথা খোলাখুলি ভাবে প্রকাশ করতে পারে, সেদিকে নজর রাখতে হবে। বিশেষত সাংবাদিকরা যেন প্রকাশ্যে সব কথা বলতে পারেন, সেইরকম পরিবেশ তৈরি করতে হবে। স্বাধীন ভাবে কথা বলতে গিয়ে যেন শাস্তি পেতে না হয়, সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।”

এর পরেই তাঁকে জিজ্ঞাসা করা হয়, তাহলে কি তিনি চাইছেন জেল থেকে মুক্তি দেওয়া হোক জুবেইরকে? উত্তরে তিনি বলেন, “সাংবাদিকদের লেখা বা টুইটের উপরে ভিত্তি করে তাঁদের জেলে ভরে দেওয়া ঠিক নয়।

এই কথা পৃথিবীর যেকোনও জায়গার ক্ষেত্রেই প্রযোজ্য।” প্রসঙ্গত, মঙ্গলবার আসানসোলের কর্মিসভায় জুবেইরের গ্রেপ্তারি নিয়ে সরব হয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও।

সরাসরি প্রশ্ন তোলেন, কেন গ্রেপ্তার করা হয়েছে জুবেইরকে? সেই সঙ্গে বিজেপিকে আক্রমণ করে তিনি বলেন, “আপনারা যখন ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত করেন তখন কোনও দোষ হয় না। কিন্তু আমরা কথা বললেই আমাদের খুনি বানিয়ে দেওয়া হয়।”
তথ্যসূত্র: সংবাদ প্রতিদিন

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ