সাংবাদিক তোয়াব খানের মৃত্যুতে রাসিক মেয়রসহ বিভিন্ন সংগঠনের শোক

আপডেট: অক্টোবর ১, ২০২২, ১১:১৩ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক:


একুশে পদকপ্রাপ্ত বর্ষীয়ান সাংবাদিক ও দৈনিক বাংলার সম্পাদক তোয়াব খান এর মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য ও রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন। শনিবার এক শোক বিবৃতিতে এই শোক প্রকাশ করেন রাসিক মেয়র।

শোক বিবৃতিতে রাসিক মেয়র বলেন, ‘একুশে পদকপ্রাপ্ত বর্ষীয়ান সাংবাদিক তোয়াব খান এর মৃত্যুতে দেশের সাংবাদিকতার অঙ্গনে এক অপূরণীয় ক্ষতি হলো। তিনি তাঁর কর্মের মাধ্যমে আমাদের কাছে স্মরণীয় হয়ে থাকবেন।’

আরইউজের শোক : একুশে পদকপ্রাপ্ত বর্ষীয়ান সাংবাদিক তোয়াব খানের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছে রাজশাহী সাংবাদিক ইউনিয়ন (আরইউজে)। শনিবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক শোক বিবৃতিতে আরইউজে সভাপতি রফিকুল ইসলাম এবং সাধারণ সম্পাদক তানজিমুল হক মরহুম তোয়াব খানের আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

শোক বিবৃতিতে আরইউজে সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদক বলেন, প্রয়াত তোয়াব খান ছিলেন বাংলাদেশের ইতিহাসের এক জীবন্ত আর্কাইভ। স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের এ শব্দসৈনিক মুক্তিযুদ্ধকালে যে ভূমিকা রেখেছেন তা দেশবাসী কৃতজ্ঞতার সঙ্গে চিরদিন স্মরণে রাখবেন। পাশাপাশি বাংলাদেশে আধুনিক সাংবাদিকতার বিকাশে বর্ষীয়ান এ সাংবাদিকের ভূমিকা ছিল গুরুত্বপূর্ণ।

আরটিজেএ’র শোকপ্রকাশ : বর্ষীয়ান সাংবাদিক দৈনিক বাংলার সম্পাদক তোয়াব খানের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন রাজশাহী টেলিভিশন জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশন-আরটিজেএ’র সভাপতি মেহেদী হাসান শ্যামল ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান।

এক শোক বার্তায় বলেন, সাংবাদিক তোয়াব খানের মৃত্যুতে দেশ কিংবদন্তীকে হারালো। তিনি ছিলেন বঙ্গবন্ধুর বিশ্বস্ত সহচর ও মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের অগ্রদূত। মুক্তিযুদ্ধে স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রে শব্দসৈনিক ছিলেন। তার মৃত্যুতে সাংবাদিকরা একজন অভিজ্ঞ অভিভাবককে হারালেন। এতে অপূরণীয় ক্ষতি হলো জাতির। বিভিন্ন সময়ে গণমাধ্যম আক্রান্তি লগ্নে সাহসী ভূমিকা রেখেছিলেন তিনি। তাঁর অবদান সাংবাদিকরা কখনো ভুলবেন না।

রাবিসাস’র শোক : দৈনিক বাংলার সম্পাদক ও একুশে পদকপ্রাপ্ত সাংবাদিক তোয়াব খানের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি (রাবিসাস)। শনিবার (১ অক্টোবর) দুপুরে সংগঠনটির সভাপতি নুরুজ্জামান খান ও সাধারণ সম্পাদক নূর আলম এক যৌথ বিবৃতিতে এ শোক প্রকাশ করেন।

শোক বার্তায় তারা মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন এবং তাঁর শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেন।

বিবৃতিতে তারা বলেন, ‘তোয়াব খানের মৃত্যুতে দেশ আরো একজন শ্রেষ্ঠ সন্তানকে হারালো। মেধাবী ও বর্ষীয়ান সাংবাদিক তোয়াব খানের জীবনাবসানে এ যুগের সাংবাদিকতায় এক শূন্যতা তৈরি হলো। যা দেশের গণমাধ্যম জগতে অপূরণীয় ক্ষতি।’

উল্লেখ্য, বার্ধক্যজনিত অসুস্থতার কারণে রাজধানীর একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন বর্ষীয়ান সাংবাদিক ও দৈনিক বাংলার সম্পাদক তোয়াব খান। শনিবার (১ অক্টোবর) বেলা সাড়ে ১২টার দিকে চিকিৎসকরা তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৮৭ বছর।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ