সাংসদ লিটন হত্যায় আওয়ামী লীগ নেতা গ্রেপ্তার

আপডেট: জানুয়ারি ৮, ২০১৭, ১১:৩২ অপরাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


গাইবান্ধার সংসদ সদস্য মঞ্জুরুল ইসলাম লিটন হত্যার সাতদিন পর ওই ঘটনায় সুন্দরগঞ্জ উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান আহসান হাবিব মাসুদকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।
সুন্দরগঞ্জ থানার ওসি আতিয়ার রহমান জানান, রোববার সকালে উপজেলা শহরের বাসা থেকে মাসুদকে গ্রেপ্তার করা হয়। তবে পরিবারের বরাত দিয়ে সুন্দরগঞ্জ পৌরসভার মেয়র আবদুল্লাহ আল মামুন জানিয়েছেন, লিটন হত্যা মামলায় জিজ্ঞাসাবাদের কথা বলা পুলিশ গত শুক্রবার মাসুদকে নিয়ে যায়।  এরপর আর মাসুদ বাড়ি ফেরেননি বলে তার বড় ভাই গোলাম মুর্তজা টুকু বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান। গ্রেপ্তার আহসান হাবিব মাসুদ উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য।
রিমান্ডে জামায়াতের ৬ নেতাকর্মী
এদিকে এ হত্যা মামলায় গ্রেপ্তার জামায়েত ইসলামীর ছয় নেতাকর্মীকে রোববার রিমান্ডে পেয়েছে পুলিশ।
গত ৩১ ডিসেম্বর গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার সর্বানন্দ ইউনিয়নের শাহাবাজ গ্রামের বাড়িতে ঢুকে সাংসদ লিটনকে গুলি চালিয়ে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। এ ঘটনায় লিটনের বোন অজ্ঞাত কয়েকজনকে আসামি করে মামলা করেন।
হত্যায় জড়িত সন্দেহে ৫৩ জনকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশ। তাদের মধ্যে ২৯ জনকে বিভিন্ন মামলা ও ৫৪ ধারায় আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়।
শুক্রবার সুন্দরগঞ্জের বিভিন্ন এলাকা থেকে জামায়েত ইসলামীর ছয় নেতাকর্মীকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। তাদেরকে লিটন হত্যা মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে শনিবার রিমান্ডের আবেদন করা হয়। রোববার রিমান্ড আবেদন শুনে আদেশ দেন গাইবান্ধার মুখ্য বিচারিত হাকিম মইনুল হাসান ইউসুফ। সংশ্লিষ্ট আদালতের পরিদর্শক এনামুল হক জানান, ছয়জনের সাত দিন রিমান্ড চেয়েছিল পুলিশ।
“শুনানি শেষে বিচারক সাতদিনই রিমান্ড মঞ্জুর করেন।”- বিডিনিউজ