সাদ-সুফিলরা এবার গোল করার জন্য তৈরি

আপডেট: জানুয়ারি ১৯, ২০২০, ১:০৮ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


শ্রীলঙ্কাকে হারাতে হলে গোল করতে হবে সাদ, মতিন কিংবা সুফিলকে (বাঁ থেকে ডানে)-সংগৃহীত

ফিলিস্তিনের বিপক্ষে যাওবা সুযোগ এসেছে, সেসব গোলে রূপ দিতে পারেরনি জেমি ডের ছাত্ররা। ডিফেন্ডার তপু হেড রাখতে পারেননি লক্ষ্যে। সাদ-সুফিলরা সেভাবে রক্ষণ ভাঙতে পারেননি। শেষ পরিণতি হার।
ওই হারের যন্ত্রণা থেকে মুক্তি খুঁজছে স্বাগতিকেরা। বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপে সেমিফাইনালে যেতে হলে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে জিততেই হবে। আর জিততে হলে স্ট্রাইকারদের গোল করতে হবে। সাদ-সুফিলরা এবার গোল করার জন্য তৈরি। চান না আগের ম্যাচের ভুলের পুনরাবৃত্তি ঘটুক।
সাদ উদ্দিন যেমন বলেছেন, ‘আসলে আমরা ভুল করে ফেলেছি। বড় ম্যাচে সুযোগ কম আসে। ফিলিস্তিনের বিপক্ষে তপু ভাইয়ের হেডটা গোল হলে ম্যাচের চেহারাই পাল্টে যেতে পারতো। সেটপিস থেকে তো সব সময় গোল আসবে না। আমরা কিন্তু বিল্ডআপ ফুটবল খেলেছি। কিন্তু গোলের জন্য আক্রমণ হয়েছে কমই। এরপর কোচ আমাদের ভুলত্রুটি নিয়ে কাজ করেছেন। আশা করছি লঙ্কানদের বিপক্ষে গোল পাবো।’
লঙ্কানদের বিপক্ষে গোলের সুযোগ বেশি আসবে বলেই বিশ্বাস এই স্ট্রাইকারের, ‘ফিলিস্তিন তো শক্তিশালী দল। তাদের ডিফেন্স ভাঙা সহজ নয়। তবে লঙ্কানদের বিপক্ষে সুযোগ আসবে বেশি। আমরা গোল পাবো। জিতেই যাবো শেষ চারে।’
সাদের সঙ্গে স্ট্রাইকার হিসেবে জুটি বেঁধে মাঠে নামতে পারেন মাহবুবুর রহমান সুফিল। সাদের ওপর চাপ কমাতে এবার হয়তো আক্রমণভাগে থাকবেন দুজন। ফিলিস্তিনের বিপক্ষে ম্যাচের পর থেকে অনুশীলনে জেমি ডে ভুল-ত্রুটি নিয়ে কাজ করছেন। বিশেষ করে মাঝমাঠ থেকে ফরোয়ার্ড জোনের মেলবন্ধনটা যাতে আরও গাঢ় হয়, সেটাই তার চেষ্টা।
আবার রক্ষণ যাতে ভেঙে না পড়ে, প্রতি আক্রমণ থেকে গোল খেতে না হয়, সেটি নিয়েও হয়েছে অনুশীলন। তবে যাই হোক না কেন, শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে গোল পেতেই হবে।
আগের ম্যাচে মতিন মিয়া সেভাবে নিজেকে মেলে ধরতে পারেননি। মাহবুবুর রহমান সুফিল বদলি নেমেও গোলের রাস্তা বের করতে পারেননি। তবে নকআউট পর্বে ওঠার ম্যাচেই নিজেকে প্রমাণ করতে চান সুফিল, ‘আগের ম্যাচগুলোতে যেসব ভুলগুলো ছিল তা নিয়ে কাজ হয়েছে। আশা করছি লঙ্কানদের বিপক্ষে ভুল কম হবে। আমরা গোল পাবো। ম্যাচ জিতেই সেমিফাইনালে যাবো।’