সাপাহারে ২ হাজার ৬২২জন খামারি পেলেন প্রধানমন্ত্রীর করোনা প্রণোদনা

আপডেট: ফেব্রুয়ারি ২৫, ২০২১, ১:৫৪ অপরাহ্ণ

সাপাহার প্রতিনিধি:


প্রধানমন্ত্রীর করোনা প্রণোদনা (নগদ টাকা) পেয়ে শুকরিয়া আদায় করলেন নওগাঁর সাপাহার উপজেলার খামারিরা। করোনাকালে সারা দেশে ক্ষতিগ্রস্ত বিভিন্ন গবাদিপশু পালনকারী খামারিদের দুর্দশার কথা চিন্তা করে প্রধানমন্ত্রী তাদের প্রণোদনা দেয়ার সিন্ধান্ত গ্রহণ করলে সারা দেশের ন্যায় সাপাহার উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. আশীষ কুমার দেবনাথ তার কর্মীবাহিনী দ্বারা সারা উপজেলার খামারিদের তালিকা তৈরি করে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের দপ্তরে পাঠান। যার প্রেক্ষিতে বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে বিভিন্ন খামারিদের নামে আসে সেই প্রণোদনার টাকা।
যা গত১৭ ফেব্রুয়ারি রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয় খাত হতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে কৃষিমন্ত্রী মো. আব্দুর রাজ্জাক করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত খামারিদের আর্থিক প্রণোদনা দেয়ার কার্যক্রম উদ্বোধন করেন।
জানা যায় মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ খাতে করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত ৪ লাখ ৮৫ হাজার ৪৭৬ জন খামারিকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার হিসেবে মোট ৫৬৮ কোটি ৮৬ লাখ ৪১ হাজার ২৫০ টাকা নগদ প্রণোদনা দিয়েছে সরকার।
এরই ধারাবাহিতায় সাপাহারে বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে প্রাণীসম্পদ খাতে করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত প্রায় ২হাজার ৬২২ জন খামারির মাঝে সর্বনিম্ন ৩৩৭৫ টাকা থেকে ২২৫০০ টাকা সহ মোট ৩ কোটি ১৩লক্ষ ৪৪ হাজার ৮৯৫ টাকা সাপাহারের খামারিরা পেয়েছেন।
সরেজমিনে গিয়ে সাপাহার বহুমূখী এগ্রো ফার্মের মালিক খামারি সাংবাদিক তছলিম উদ্দীন, ফুরকুটি ডাঙ্গা গ্রামের খামারি রাজিয়া সুলতানা, তুলশীপাড়া গ্রামের আবুল কাশেম সহ বেশ কয়েকজন খামারির সাথে কথা হলে তারা জানান, করোনা মহামারির কারণে তাদের অনেক ক্ষতি হয়েছে, ফলে অনেক খামারি তাদের পেশা পরিবর্তন করে অন্য পেশা গ্রহণ করতে বাধ্য হয়েছে। এমনই সময় প্রধানমন্ত্রীর করোনা প্রণোদনার টাকা পেয়ে খুশি হয়ে তারা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন।
সাপাহার উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শাহজাহান হোসেন মন্ডল বলেন, বর্তমান সরকার জনবান্ধব সরকার। দেশের মানুষের কথা চিন্তা করে সবসময় কাজ করে থাকেন। এই মহামারীর কারণে ক্ষতিগ্রস্ত খামারিরা যে করোনা প্রণোদনা পেলেন এর জন্য আমি সাপাহার উপজেলাবাসীর পক্ষ থেকে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে শুভেচ্ছা ও কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করছি।
সাপাহার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কল্যাণ চৌধুরী বলেন, দেশ উন্নতির দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। দেশের মানুষের ভাগ্য বদলাতে এবং দেশকে এগিয়ে নিতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নিরলস ভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। এর সবচেয়ে বড় প্রমাণ হচ্ছে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ খাতে এই করোনা প্রণোদনা প্রদান করা।
সাপাহার উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. আশীষ কুমার দেবনাথ বলেন, প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত করোনা পরিস্থিতির জন্য ক্ষতিগ্রস্ত খামারিরা যে প্রণোদনার টাকা সরাসরি পাবেন, তা দিয়ে সাপাহার তথা সারা দেশের খামারিরা গবাদিপশু পালনে উদ্বুদ্ধ হবে। এ জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনাকে সাপাহার উপজেলা বাসীর পক্ষ থেকে কৃতজ্ঞতা অভিনন্দন এবং শুভেচ্ছা প্রদান করছি।