সিংড়ায় যাত্রীবাহী বাস খাদে ।। একই পরিবারের তিনজনসহ নিহত ৫, আহত ১২

আপডেট: January 2, 2017, 12:22 am

সিংড়া প্রতিনিধি


নাটোরের সিংড়ায় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে যাত্রীবাহি বাস উল্টে খাদে পড়ে একই পরিবারের তিনজনসহ পাঁচজন নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছে আরো অন্তত ১২জন যাত্রী। আহতদের উদ্ধার করে সিংড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও নাটোর আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
গতকাল রোববার সকাল ৯টার দিকে নাটোর-বগুড়া মহাসড়কের চৌগ্রাম জোড়ব্রিজ নামক স্থানে এ দুর্ঘটনা ঘটে।
সিংড়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নাসির উদ্দিন মন্ডল ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, এদিন সকাল ৯টার দিকে বগুড়া থেকে রাজশাহীগামী লিখন পরিবহনের একটি বাস (বগুড়া-জ-১১-০১৫০) নাটোর-বগুড়া মহাসড়কের সিংড়ার চৌগ্রাম জোড়ব্রিজ এলাকায় পৌঁছালে যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে বাসের সামনের একটি চাকা খুলে গিয়ে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বাসটি রাস্তার পাশে খাদে উল্টে পড়ে যায়। এতে করে বাসের চাপায় ঘটনাস্থলেই একই পরিবারের তিনজন ও গাড়ির হেলপারসহ ৪ জন নিহত হয়। আহত হয় আরো অন্তত ১২জন যাত্রী। খবর পেয়ে নাটোর ফায়ার সার্ভিসের কর্মী ও সিংড়া থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে আহতদের উদ্ধার করে সিংড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও নাটোর আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। আহতদের মধ্যে সিংড়া উপজেলার হটালী গ্রামের মরিয়ম খাতুনকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পথে মারা যায়।
নিহতরা হলেন, নাটোর শহরের বঙ্গজ্জ্বল এলাকার ঐশি পরিবহনের মালিক লিখন হোসেনের স্ত্রী সুলতানা (৩৫), তাদের দুই শিশু সন্তান ঐশি (১০) ও সাকিব (৮), সিংড়ার ইটালী গ্রামের বাদেশ আলীর স্ত্রী মরিয়ম খাতুন (৪০) এবং বাসের হেলপার রাজবাড়ি জেলার অসিত কুমার (৪০)। লাশগুলো ময়নাতদন্তের জন্য নাটোর আধুনিক সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।
এদিকে দুর্ঘটনার খবর পেয়ে সিংড়া উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম, পৌর মেয়র জান্নাতুল ফেরদৌস, উপজেলা নির্বার্হী কর্মকর্তা সাদেকুর রহমান ঘটনাস্থল ও হাসপাতাল পরিদর্শন করেছেন।