সিংড়ায় শিলাবৃষ্টিতে পাকা ধানের ক্ষতি

আপডেট: এপ্রিল ২৩, ২০২০, ৯:০৭ অপরাহ্ণ

সিংড়া প্রতিনিধি


সিংড়ায় শিলাবৃষ্টিতে ক্ষতিগ্রস্ত ধানের খেত- সোনার দেশ

নাটোরের সিংড়ায় শিলাবৃষ্টিতে কৃষি প্রধান চলনবিল অঞ্চলে চলতি বোরো পাকা ধানের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। বুধবার (২২ এপ্রিল) সন্ধ্যায় হঠাৎ কালবৈশাখী ঝড় ও শিলাবৃষ্টি শুরু হয়, এ শিলা বৃষ্টি ২০ থেকে ৩০ মিনিট স্থায়ী হয়। এতে উপজেলার রামানন্দ খাজুরা, ছাতারদিঘী ও সুকাশ ইউনিয়নের বিভিন্ন জায়গায় পাকা ধানের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।
সিংড়া উপজেলা কৃষি অফিস জানায়, ঝড় ও শিলাবৃষ্টিতে এই এলাকার ১৫০০ থেকে ১৮০০ হেক্টর জমির ধানের ২৫-৩০% নষ্ট হয়েছে। রামানন্দ খাজুরা ইউনিয়নের ধানের ৫০% ক্ষতি হয়েছে।
এছাড়া শিলা বৃষ্টির আঘাতে মাটির সঙ্গে নুইয়ে পড়েছে উঠতি ফসল গম, মসুর, ভুট্টা, পেঁয়াজ, রসুন, ধানসহ বিভিন্ন ফসল ও সবজি। ঝরে পড়েছে সজনে ও গুটি আম। কোনো কোনো বাগানে আম গাছের ডালপালাও ভেঙে পড়েছে।
এদিকে ফসলের পাশাপাশি কাঁচা ঘরবাড়িরও ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। ঘরের দেয়াল ভেঙে গেছে, উড়ে গেছে চালের ছাউনি। বিশেষ করে শতাধিক বাড়ির টিন ফুটো হয়ে গেছে।
কৃষকরা জানান, ঝড় ও শিলা বৃষ্টিতে আমাদের মাঠের সব ধরনের ফসলের ক্ষতি হয়েছে। মাঠ থেকে ফসল আর বাড়িতে নিয়ে যেতে পারবো না। এ ধরনের ঝড় ও শিলা বৃষ্টি বিগত বছরেও দেখেনি বলে তারা উল্লেখ করেন।
ছাতারদিঘী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলতাব হোসেন আকন্দ জানান, তার ইউনিয়নের কয়েকটি ওয়ার্ডে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। বিশেষ করে রামনগর, ছাতারদিঘী, খন্দকার বড়বাড়ি এলাকায় কৃষকের ধান নষ্ট হয়ে গেছে।
উপজেলা কৃষি অফিসার সাজ্জাদ হোসেন জানান, উপজেলার দুটি ইউনিয়নে ফসলের বেশি ক্ষতি হয়েছে। প্রায় ১৫ শ থেকে ১৮ শ হেক্টর জমির পাকা ধানের ক্ষতি হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকালে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরির্দশন করা হয়েছে।