সিংড়া ও বদলগাছীতে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত তিন

আপডেট: মে ৪, ২০১৭, ১২:১৭ পূর্বাহ্ণ

সিংড়া ও বদলগাছী প্রতিনিধি


নাটোরের সিংড়া ও নওগাঁর বদলগাছীতে সড়ক দুর্ঘটনায় ১১০ বছরের বৃদ্ধাসহ তিনজন নিহত হয়েছে। গত মঙ্গলবার পৃথক দুর্ঘটনায় এ মৃত্যুর ঘটনা ঘটে।
সিংড়ায় মঙ্গলবার দিবাগত রাতে ঘটা এ দুর্ঘটনায় নিহত গরু ব্যবসায়ীরা হলেন কুষ্টিয়ার মীরপুর উপজেলার মালিহাট গ্রামের মুক্তার হোসেনের ছেলে আবদুল মান্নান (৫০) ও একই গ্রামের কালাম শেখের ছেলে টুকু মিয়া (৪০)। এ ঘটনায় আসাদুল ও একলান নামে একই এলাকার দুই গরু ব্যবসায়ীকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।
সিংড়া থানা পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, জয়পুরহাট থেকে ১৯টি গরু কিনে দুইটি ট্রাক বোঝাই করে আটজন ব্যবসায়ী বগুড়া থেকে (বগুড়া-নাটোরগামী) কুষ্টিয়ার দিকে যাচ্ছিলেন। পথে নাটোর-বগুড়া মহাসড়কের জামতলী এলাকায় ট্রাকের চালক (ঢাকা মেট্রো-ড-১৪-১২০৫) নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে উল্টে খাদে পড়ে যায়। এতে ট্রাকের নিচে চাপা পড়ে ঘটনাস্থলেই মান্নান ও টুকু নিহত এবং অপর দুইজন আহত হয়। এসময় একটি গরুর প্রাণহানি ঘটে। দুর্ঘটনার খবর পেয়ে নাটোর ফায়ার সার্ভিসের কর্মী ও সিংড়া থানা পুলিশ আহতদের উদ্ধার করে সিংড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। রাতে লাশ দুইটি হাইওয়ে পুলিশ হেফাজতে নেয়া হয়।
অন্যদিকে বদলগাছীতে বালু বোঝাই ট্রাক্টরের ধাক্কায় ১১০ বছরের বৃদ্ধা নারী জোবেদার মৃত্যু হয়েছে। গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় উপজেলার ইসমাইলপুর গ্রামে পাকা রাস্তায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার ইসমাইলপুর গ্রামের মৃত কহর আলীর স্ত্রী বিধবা জোবেদা ঘটনার সময় প্রতিবেশী বেলালের বাড়ি থেকে রাতের খাবার নিয়ে নিজ বাড়িতে ফিরছিলেন। এসময় ওই রাস্তায় মাটি বোঝাই একটি ট্রাক্টর পেছন থেকে ধাক্কা দিলে ঘটনাস্থলেই প্রাণ হারান জোবেদা। এলাকাবাসী জানায়, ওই পাকা রাস্তা দিয়ে প্রতিনিয়ত মিঠাপুর, গোবরচাপা এলাকার ইট ভাটাগুলিতে ট্রাক্টরে করে মাটি নিয়ে যায়। ওই বৃদ্ধাকে ধাক্কা দেয়া ট্রাক্টরটি মিঠাপুর ইউপি চেয়ারম্যান ফিরোজ হোসেনের ইটভাটায় মাটি বহন করে নিয়ে যাচ্ছিল। এ ঘটনায় নিহত বৃদ্ধার নাতি রেজাউল করিম বাদী হয়ে বদলগাছী থানায় একটি অভিযোগ দিলে গতকাল বুধবার দুপুরে বদলগাছী থানার এসআই বুলবুল আহম্মেদ চেয়ারম্যান ফিরোজ হোসেনকে সঙ্গে নিয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশের সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করে ফিরে যান। এলাকাবাসীর অভিযোগ, ঘাতক ট্রাক্টরটি চেয়ারম্যান ফিরোজ হোসেনের হওয়ার কারণে থানা পুলিশ কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করছে না। এবং ওই বৃদ্ধার প্রাণহানিতে গোপনে ট্রাক্টর মালিকের সঙ্গে তার আত্মীয়-স্বজনের ৪০-৪৫ হাজার টাকায় দফারফা হয়েছে। এ বিষয়ে গতকাল বুধবার দুপুর ১টায় চেয়ারম্যান ফিরোজ হোসেনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে ওই ট্রাক্টরটি তার নয় বলে জানান তিনি। তবে ইটভাটার জন্য ওই ট্রাক্টরে মাটি বহন করা হচ্ছিল বলে স্বীকার করেন।
ঘটনাস্থল পরিদর্শনকারী এসআই বুলবুল আহম্মেদ জানান, ঘটনাস্থল পরিদর্শনের সময় কেউই আমাকে জানায় নি ট্রাক্টরটি চেয়ারম্যান ফিরোজ হোসেনের। তাই অজ্ঞাতনামা ট্রাক্টর দেখিয়ে থানায় একটি সড়ক দুর্ঘটনার মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। মামলা হলেও লাশের ময়নাতদন্ত না হওয়ার বিষয়ে তিনি বলেন, নিহত বৃদ্ধার নিকট আত্মীয়-স্বজনেরা ময়নাতদন্ত না করার জন্য থানার অফিসার ইনচার্জ বরাবর একটি লিখিত আবেদন করেছে। তাই মানবিক কারণে বৃদ্ধার ময়নাতদন্ত করা হলো না।
এ বিষয়ে থানার অফিসার ইনচার্জ ( ওসি) জালাল উদ্দীন বলেন, মামলা হচ্ছে, তদন্ত করে ঘাতক ট্রাক্টরটি উদ্ধার করে থানা হেফাজতে নেয়া হবে।