সিরিজ না জেতার কোন কারণ দেখছেন না মুশফিক!

আপডেট: আগস্ট ২৭, ২০১৭, ১২:২৮ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


ঘরের মাঠে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টেস্ট সিরিজ। শক্তির বিচারে বেশ এগিয়ে অজিরা। তার চেয়েও বড় ব্যাপার টেস্ট ক্রিকেটে তাদের পেশাদারিত্ব ও ঐতিহ্য এবং যে কোন পরিবেশে দ্রুত মানিয়ে নেওয়ার ক্ষমতা। তবে গত কয়েক বছরে দারুণ বদলে যাওয়া টাইগারদের ডেরাতেই তো বসছে এই সিরিজ। নিজেদের মাটিতে খেলা। দীর্ঘ প্রস্তুতি নিয়েও মাঠে নামছে স্বাগতিকরা যেখানে অস্ট্রেলিয়া দল চুক্তি নিয়ে সেদিনও বোর্ডের সাথে দ্বন্দ্বে জড়িয়ে বেকার ছিল। সব মিলিয়ে তাই স্টিভেন স্মিথের দলের বিপক্ষে সিরিজ না জেতার কোনো কারণই দেখছেন না বাংলাদেশের টেস্ট অধিনায়ক মুশফিকুর রহীম।
টেস্ট ক্রিকেটে বরাবরই কঠিন প্রতিপক্ষ অস্ট্রেলিয়া। চলতি বছরেই ভারতের মাটিতে টেস্ট জয়ের সুখস্মৃতিও আছে তাদের। তবে গত এক দশকে এই উপমহাদেশে মোটে দুটি ম্যাচ জয় তাদের। রেকর্ড ভালো না। তবে তাদের সাম্প্রতিক ভারত সফরের প্রসঙ্গটা টেনে সিরিজটি বেশ কঠিনই হবে বলে মনে করছেন অনেকে। কঠিন হবে ভাবছেন অধিনায়ক মুশফিকও। তারপরও তাদের বিপক্ষে জয় পাবেন বলে বিশ্বাস করেন তিনি, ‘আপনারা সবাই জানেন, শেষ সিরিজ এবং শেষ দুই বছরে আমরা হোম কন্ডিশনে কতুটুক ধারাবাহিক ক্রিকেট খেলেছি। সবাই সেই বিশ্বাস থেকেই সবাই বলেছে যে সিরিজ জেতা সম্ভব। আর বলার জন্য বলা নয়। আমাদের সেই বিশ্বাস আছে এবং পর্যাপ্ত অস্ত্রও আছে। এছাড়াও অনেক খেলোয়াড় আছে যারা যে কোনো সময়ে ম্যাচ ঘুরিয়ে দিতে পারে।’
গত কয়েক বছরে অভিজ্ঞদের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে নবীনরাও পারফর্ম করে যাচ্ছেন। মোস্তাফিজ, মিরাজ, সাব্বির, সৌম্যরা গেলো বছর দুয়েকে মাতিয়ে দিয়েছেন। সিনিয়র-জুনিয়র মিলিয়ে দলে এখন অনেক পারফর্মার। আর এটাই আত্মবিশ্বাস যোগাচ্ছে মুশফিককে। পারফর্মার বেশি বলেই প্রবল বিশ্বাস নিয়ে অধিনায়ক দৃপ্ত কণ্ঠে উচ্চারণ করতে পারছেন, ‘যখন একটা দলে ছয়-সাতজন পারফর্মার থাকবে তখন আপনি ভালো ফল আশা করতেই পারেন। অনেক বাজে পজিশন থেকেও ম্যাচ বাঁচানোর মতো খেলোয়াড়ও আমাদের আছে। ’
অস্ট্রেলিয়ার পেশাদারিত্বের কথা জানেন মুশফিক। উপমহাদেশের উইকেটে শেষ দশ বছরে ফলাফল আশা পূরণ করার কাছাকাছিও নয়। তবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা খারাপ করেনি তারা। শেষবার ভারতে তারা সিরিজ হেরেছে ২-১ এ। তবে প্রথম টেস্টে দাপটের সঙ্গেই জয় তুলে নেয় দলটি। তাই তাদের বিপক্ষে শক্ত প্রতিরোধেই পড়বেন মুশফিকরা। তবে অসিরাও রক্ত মাংসের মানুষ। তাদেরও ভুল হবে। আর সে সুযোগকে সঠিকভাবে কাজে লাগাতে পারলে ফলাফল বাংলাদেশের পক্ষেই যাবে বলে বিশ্বাস মিস্টার ডিপেন্ডেবলের।
‘আমরা এমন কোনো অ্যালিয়েনের বিপক্ষে খেলছি না। আমরা অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে খেলছি যারা অনেক পেশাদার এবং শক্তিশালী। কিন্তু এর আগেও ভালো খেলোয়াড়ের বিপক্ষে খেলেছি। এটা একটু ব্যতিক্রম হতে পারে যে এ দলটির সঙ্গে আমরা প্রথম বারের মতো খেলছি। এছাড়া দীর্ঘদিন পর মাঠে নামছি। আমরা শেষ চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে খেলেছি। আবার এটা ভিন্ন সংস্করণ। তারপরও আমরা যে সুযোগ পাবো সেটাকে কাজে লাগাতে চাই। এই সুযোগটাকে কাজে লাগাতে চাই যেন ভবিষ্যতে আরও বেশি বেশি খেলার সুযোগ পাই।’ এর আগে শ্রীলঙ্কায় সর্বশেষ টেস্ট ম্যাচ খেলেছিল বাংলাদেশ। তবে ঘরের মাঠে শেষ টেস্ট খেলেছিল গত অক্টোবরে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে। প্রায় ১ বছরের বিরতির কারণে কিছুটা ব্যকফুটে থাকবেন বলে কিছুটা মনে করছেন মুশফিক। তারপরও সকল বিভাগে ভালো করতে পারলে জয় পাওয়া অসম্ভব নয় বলে মনে করেন দেশসেরা এই ব্যাটসম্যান।