সিল্ক রুট হবেই, সাফ জানাল চিন

আপডেট: মার্চ ২২, ২০১৭, ১২:১৩ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক



পাক অধিকৃত কাশ্মীর দিয়েই যাবে নতুন সিল্ক রুট। সাফ জানিয়ে দিল চিন। নতুন সিল্ক রুট নিয়ে প্রথম থেকেই আপত্তি জানিয়ে আসছিল ভারত। তাতে আমল দিতে নারাজ বেজিং। উল্টে সাফ জানিয়ে দিয়েছে, কোনও ভাবেই ওই পথের কাজ বন্ধ হবে না। ভারতের অভিযোগ ছিল, পাক অধিকৃত কাশ্মীর দিয়ে এই সিল্ক রুট গেলে দেশের নিরাপত্তা বিঘিœত হবে। বিশেষ করে পাকিস্তান এর সুযোগ নেবে। সন্ত্রাসবাদী কার্যলাপ আরও বাড়বে। এই আশঙ্কায় জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে দরবার করেছিল ভারত। চিনের পাল্টা দাবি ছিল, মানব কল্যাণেই এই সিল্ক রুট তৈরি করা হচ্ছে। এর ফলে চিনের সঙ্গে ভারত-পাকিস্তান-আফগানিস্তান-তুর্কমেনিস্তান এক সূত্রে যুক্ত হবে। বাণিজ্যের উন্নতি হবে। জনজীবনে তার প্রভাবও ভাল হবে। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী কিন্তু চিনের প্রেসিডেন্ট শি জিন পিংয়ের এই যুক্তিতে বিশেষ গুরুত্ব দিতে চাননি। মঙ্গলবার বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্র হুয়া চুনইং বলেন, জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ চিনের এই উন্নয়নমূলক পদক্ষেপকে স্বাগত জানিয়েছে।
তার উপরে দলাই লামাকে নিয়ে ভারতের বিশেষ মনোভাবে যারপরনাই রুষ্ট হয়েছে চিন। দলাই লামার ভারতে থাকা নিয়ে আগে থেকেই ক্ষুব্ধ ছিল চিন। এর মধ্যে পর পর কয়েকটি ধর্মীয় সভায় দলাই লামাকে বিশেষ অতিথি করে আমন্ত্রণ জানিয়েছে ভারত। আগুনে ঘি পড়ার মতোই নতুন করে জ্বলে উঠেছে চিন। দু’য়ে মিলে সিল্ক রুট নিয়ে স্পষ্ট নিজেদের অবস্থানও সাফ ভারতকে জানিয়ে দিয়েছে বেজিং।
উরি ও পাঠানকোট হামলার পর সন্ত্রাস নিয়ে পাকিস্তানের পাশে দাঁড়িয়েছে জিন পিং। এক মাত্র চিনই জাতিসংঘে পাকিস্তানকে সন্ত্রাসবাদী রাষ্ট্র ঘোষণার বিপক্ষে মত দিয়েছে। ফলে সম্পর্কে তিক্ততা একটু একটু করে বাড়ছিলই। এবার আরও একধাপ চড়ল। শুধু সিল্ক রুট নয়, ভারত মহাসাগর থেকে চিন পর্যন্ত নতুন সড়ক তৈরি করতে চলেছে বেজিং। সেটি আবার অরুণাচলের গা ঘেঁষে তৈরি হচ্ছে। তাতেও অশনি সংকেত দেখছে ভারত। শিগগিরই রেল পথে ইউরোপ-এশিয়াকেও একযোগে বাঁধতে চলেছে চিন। যা কিন্তু আমেরিকারও মাথাব্যথার কারণ হতে পারে। এক্ষেত্রে ভারত আমেরিকা কি একযোগে প্রতিরোধ গড়তে পারবে? সেটা সময়ই বলবে। মোটের উপর চিনের এই অনড় মনোভাব ভাল চোখে দেখছে না ভারত।- আজকাল