‘সুষম উন্নয়নের জন্য বাজেট প্রণয়নে জনঅংশগ্রহণ জরুরি’

আপডেট: ফেব্রুয়ারি ১৩, ২০২২, ১০:২৪ অপরাহ্ণ

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি


জনগণের প্রত্যাশা ও উন্নয়নের সবচেয়ে বড় দলিল জাতীয় বাজেট। জনগণের করের টাকায় বাজেট প্রণীত হয়। সুষম উন্নয়নের জন্য বাজেট প্রণয়নে জনঅংশগ্রহণ জরুরি। রোববার (১৩ ফেব্রুয়ারি) গণতান্ত্রিক বাজেট আন্দোলন, এশিয়া ফাউন্ডেশন, সেফটি এন্ড রাইটম এবং পরিবর্তনের যৌথ উদ্যোগে এক কর্মশালায় বক্তারা এ কথা বলেন।

রাজশাহী সাংবাদিক ইউনিয়নে আয়োজিত বাজেটে জনঅংশগ্রহণ এবং স্থানীয় চাহিদা নিরুপণ বিষয়ে ফলোআপ কর্মশালায় মূল আলোচক ছিলেন রাজশাহী বিশ^বিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের প্রফেসর এনকে নোমান। আরো বক্তব্য দেন, পরিবর্তন পরিচালক রাশেদ রিপন ও সচেতনের সহ পরিচালক আশিক হোসেন। কর্মশালায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়, রাজশাহী টিচার্স ট্রেনিং কলেজ ও রাজশাহী মহিলা কলেজের শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহণ করেন।

এতে আরো বলা হয়, বাজেট অনুমোদন ছাড়া সংসদ সদস্যদের তেমন কোনো ভূমিকা নেই। সংসদ সদস্যরা বাজেট প্রস্তাবনায় ‘হ্যাঁ ’অথবা ‘না’ বলতে পারেন বটে। কিন্তু তারা বাজেট সংশোধন বা বাজেটে নতুন কোনো প্রস্তাব করতে পারেন না। ক্ষমতাসীন দলের সংসদ সদস্যরা তাদের দল কর্তৃক প্রস্তাবিত বাজেটে না ভোট প্রয়োগ করলে সংবিধানের ৭০ অনুচ্ছেদ অনুযায়ী তাদের সংসদ সদস্য পদ বাতিল হয়ে যায়। বাজেটের ব্যাপারে সংসদের প্রধান কাজ হল নির্বাহী বিভাগ কর্তৃক উত্থাপিত বাজেট কে বিচার বিবেচনাহীণভাবে অনুমোদন দেয়া।