সু চির বিরুদ্ধে আরও একটি অভিযোগ

আপডেট: ফেব্রুয়ারি ৪, ২০২২, ৪:৫২ অপরাহ্ণ


সোনার দেশ ডেস্ক :


ক্ষমতাচ্যুত ও কারাবন্দী নেত্রী অং সান সু চির বিরুদ্ধে আরও একটি ঘুসের অভিযোগ এনেছে মিয়ানমার জান্তা সরকার।

এ নিয়ে তার বিরুদ্ধে ঘুস-জালিয়াতিসহ ১১টি অভিযোগ আনা হলো। স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার (৩ জানুয়ারি) দেশটির রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম সু চির বিরুদ্ধে নতুন করে আনা অভিযোগের বিষয়টি নিশ্চিত করে।

মিয়ানমার সামরিক বাহিনীর এক বিবৃতিতে বলেছে, সু চি তার মায়ের নামে একটি দাতব্য ফাউন্ডেশনের জন্য অনুদান হিসাবে পাঁচ লাখ ৫০ হাজার মার্কিন ডলার গ্রহণ করেছেন। তবে এ অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে আদালতের কার্যক্রম কখন শুরু হবে সে বিষয়ে বিবৃতিতে বিস্তারিত জানানো হয়নি।

নোবেল জয়ী ৭৬ বছর বয়সী নেত্রী অং সান সু চির বিরুদ্ধে ডজনখানেক মামলার বিচার কাজ চলছে। এসব মামলার রায় হলে তার অন্তত ১৫০ বছর পর্যন্ত কারাদণ্ড হতে পারে। এর মধ্যে তার বিরুদ্ধে বেশ কয়েকটি মামলায় ৬ বছরের সাজা হয়েছে।

সু চির সমর্থক ও মানবাধিকার সংগঠনগুলো বলছে, দেশটির সামরিক বাহিনী ক্ষমতা দখলের বৈধতা দেওয়া ও সু চিকে রাজনীতিতে ফিরে আসা থেকে বিরত রাখার জন্য তার বিরুদ্ধে এসব মামলা দেওয়া হয়েছে। যদিও মিয়ানমারের জান্তা সরকার তাদের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ অস্বীকার করে আসছে।

গতবছর ১ ফেব্রুয়ারি অভ্যুত্থানের মাধ্যমে গণতান্ত্রিক সরকারকে উৎখাত করে ক্ষমতা দখল করে নেয় মিয়ানমারের সামরিক বাহিনী। তবে দেশটির সিংহভাগ জনগণ বিষয়টি মেনে নেয়নি।

রাস্তায় বিক্ষোভ, সরকারি কাজকর্ম বয়কটসহ সশস্ত্র বিদ্রোহের মাধ্যমে জান্তার বিরুদ্ধে এখনো প্রতিবাদ জানাচ্ছে তারা। স্থানীয় মনিটরিং দ্রুপগুলো বলছে, মিয়ানমারে সেনা অভুত্থানের পর সহিংসতায় এ পর্যন্ত ১৩শর বেশি মানুষ নিহত হয়েছেন।
তর্থ্যসূত্র: রয়টার্স, আল-জাজিরা, জাগোনিউজ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ