সেই কেনিয়াকে এখন নেপালও হারায়!

আপডেট: মার্চ ১৪, ২০১৭, ১২:১৯ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক



২০০৩ ক্রিকেট বিশ্বকাপের কথা মনে আছে? প্রথমবারের মতো আইসিসির কোন সহযোগী সদস্য জায়গা করে নিয়েছিল বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে। যদিও ভারতের কাছে হেরে শেষ হয়েছিল স্বপ্নযাত্রার। ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় আসরের সহ-আয়োজকও ছিল আফ্রিকার দেশটি। দলটির নাম কেনিয়া। একসময় এই কেনিয়াই ছিল বিশ্বক্রিকেটে বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় প্রতিপক্ষ। ১৯৯৪ আইসিসি ট্রফিতে তাদের কাছে হেরেই বিলম্বিত হয়েছিল বাংলাদেশের বিশ্বকাপ ক্রিকেটে অভিষেক। তবে সেসব এখন অতীত! পারফরম্যান্সের এতটাই অবনতি হয়েছে যে ২০১৪ সালে দলটি হারিয়েছে আইসিসির ওয়ানডে আর টি-টোয়েন্টি সদস্যপদ। সোমবার আইসিসি ওয়ার্ল্ড ক্রিকেট লিগ চ্যাম্পিয়নশিপেও ধাক্কা খেয়েছে কেনিয়া। নেপালের কাছে সাত উইকেটে হেরেছে তারা।
আইসিসির সহযোগী ৮টি দলকে নিয়ে আয়োজিত হচ্ছে এই লিগ। এই হারে পয়েন্ট তালিকার পঞ্চম স্থানেই থাকলো কেনিয়া। আগের লড়াইয়ে শনিবার ডাকওয়ার্থ-লুইস পদ্ধতিতে নেপালকে ৫ উইকেটে হারিয়েছিল তারা।
নেপালের কীর্তিপুরে ১৫৬ রানের জয়ের লক্ষ্যে খেলতে নেমেছিল স্বাগতিকরা। ১৯.৪ ওভার হাতে রেখে ৩ উইকেট হারিয়ে জয় তুলে নেয় তারা। জ্ঞানেন্দ্র মাল্লা অপরাজিত ৬৪ রান করেন। দিপেন্দ্র সিংয়ের ব্যাট থেকে আসে ৬২ রান। এর আগে টসে জিতে কেনিয়াকে ব্যাটিংয়ে পাঠায় নেপাল। কিন্তু স্বাগতিক বোলারদের তোপের মুখে ৪৬.১ ওভারে ১৫৫ রানেই অলআউট হয় কেনিয়া। নেপালের শারদ ভেসাওকর ২৮ রানে নেন ৪ উইকেট। কলিন্স ওবুইয়ার ব্যাট থেকে আসে সর্বোচ্চ ৪৮ রান। ২০০৩ বিশ্বকাপে শ্রীলঙ্কা বধের নায়ক ছিলেন এই অলরাউন্ডার কলিন্স। মনে মনে তিনি নিশ্চয়ই খুঁজেছেন তার পুরনো সঙ্গীদের! অধিনায়ক স্টিভ টিকলোর নেতৃত্বে কী দুর্দান্ত দলটাই ছিল কেনিয়া! মরিস ওদুম্বে, টমাস ওদোয়ো, কেনেডি ওটিয়েনোদের নিয়ে কেনিয়ার স্বর্ণযুগের দল। স্টিভ টিকোলো তো বিশ্বের যে কোনো সেরা ব্যাটসম্যানের সাথে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার মতোই ছিলেন।
২০০৩ বিশ্বকাপে সেই দলটাই অসাধারণ পারফরম্যান্সে গ্রুপপর্বে জয় তুলে নিয়েছিল শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে। হারিয়েছিল বাংলাদেশ আর কানাডাকেও। ওয়াকওভার পেয়েছিল নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে। ফলে দক্ষিণ আফ্রিকা আর ওয়েস্ট ইন্ডিজকে টপকে সুপার সিক্সে জায়গা করে নিয়েছিল তারা। সেখানে দুই ম্যাচ হারলেও জয় পেয়েছিল জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে। তাতেই নিশ্চিত হয়েছিল সেমিফাইনালের টিকিট প্রাপ্তি।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ