সেই চট্টগ্রামে সাব্বিরের ক্যারিয়ারসেরা ইনিংস

আপডেট: সেপ্টেম্বর ৫, ২০১৭, ১১:২৮ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


গত বছরের অক্টোবরে চট্টগ্রামে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সাব্বির রহমানের টেস্ট অভিষেক। অভিষেকেই অপরাজিত ৬৪ রানের চমৎকার ইনিংস এসেছিল তার ব্যাট থেকে। ওই ইনিংসে ভর করে জয়ের পথে এগিয়ে গেলেও অন্য ব্যাটসম্যানদের দায়িত্বহীনতা জয় এনে দিতে পারে নি, আক্ষেপভরা ম্যাচটি বাংলাদেশ হেরে যায় ২২ রানে। সেই চট্টগ্রামে সাব্বিরের আরেকটি হাফসেঞ্চুরি দলীয় সাফল্যে উদ্ভাসিত হবে তো!
জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে অষ্টম টেস্ট খেলতে নামা সাব্বির ক্যারিয়ারসেরা ইনিংসের পরও আফসোস করছেন হয়তো। সম্ভাবনা জাগিয়েও ইনিংসটাকে বড় করতে পারেন নি। দুর্ভাগ্যজনক স্টাম্পিংয়ের শিকার হয়ে ৬৬ রানে ফিরতে হয়েছে তাকে। অথচ যতক্ষণ ক্রিজে ছিলেন, তার ব্যাটের দাপটে প্রতিপক্ষ হয়ে পড়েছিল কোণঠাসা।
নাথান লিওনের বল ক্রিজ ছেড়ে বেরিয়ে খেলতে চেয়েছিলেন সাব্বির। কিন্তু টাইমিং ঠিক হয় নি, একটি পা ছিল দাগের ওপরে, অন্যটি শূন্যে। উইকেটরক্ষক ম্যাথু ওয়েড দ্রুততার সঙ্গে ভেঙে দেন উইকেট। ফিল্ড আম্পায়ার দ্বারস্থ হন থার্ড আম্পায়ারের, আর থার্ড আম্পায়ারের সিদ্ধান্তে শেষ হয়ে যায় দৃষ্টিনন্দন ইনিংসটা। ১১৩ বলের যে ইনিংসে ৬টি চার ছাড়াও ছিল লিয়নকে লং অন দিয়ে তুলে মারা দুর্দান্ত এক ছক্কা।
গতকাল সোমবার ব্যাট করতে নেমেই অতিথি বোলারদের ওপর চড়াও হন সাব্বির। তার আগ্রাসী ব্যাটিংয়ে তিন জন ফিল্ডারকে সীমানার কাছাকাছি নিয়ে যেতে বাধ্য হন অধিনায়ক স্টিভেন স্মিথ। অভিষেক টেস্টের মতো এদিনও দলের বিপদে সাব্বির রক্ষাকর্তা। যখন নেমেছিলেন, ১১৭ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে বাংলাদেশ অস্বস্তিতে। ষষ্ঠ উইকেটে অধিনায়ক মুশফিকুর রহিমের সঙ্গে গড়েছেন ১০৫ রানের জুটি। আর তাই দিনশেষে স্বাগতিকদের মুখে হাসি।
সীমিত ওভারের ক্রিকেটের পর টেস্টেও ধীরে ধীরে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করছেন সাব্বির। তার অভিষেকের পর এ পর্যন্ত বাংলাদেশ যে ক’টি টেস্ট সিরিজ খেলেছে, প্রতিটিতেই স্কোয়াডে ছিলেন এই আক্রমণাত্মক ব্যাটসম্যান। শুধু শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে গলে প্রথম টেস্টের একাদশে ছিলেন না। তবে কলম্বোতে ঐতিহাসিক শততম টেস্টে ফিরে ৪২ ও ৪১ রানের দুটো কার্যকর ইনিংস খেলে বড় অবদান রেখেছিলেন জয়ে।
টেস্ট ক্রিকেটে এ পর্যন্ত ১৫ ইনিংস খেলে সাব্বিরের মোট রান ৪১৮, গড় ৩২.১৫, হাফসেঞ্চুরি চারটি। চট্টগ্রাম ছাড়া তার বাকি দুটি ফিফটি নিউজিল্যান্ডের মাটিতে, গত জানুয়ারিতে ওয়েলিংটন টেস্টের দুই ইনিংসে অপরাজিত ৫৪ ও ৫০।
মূলত কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহের দাবি মেনেই সাব্বির গতকাল টেস্ট দলের নিয়মিত সদস্য। সাব্বিরকে নিয়ে কোচের পরিকল্পনা বিষয়ে নির্বাচক প্যানেলের এক সদস্য বলেছেন, ‘ব্যাটিংয়ে হঠাৎ ধস নামলে একজন বিশেষজ্ঞ ব্যাটসম্যানের প্রয়োজন হয়। তবে টেস্টে শুধু ঠেকানো নয়, দ্রুত রান তোলাও দরকার। সাব্বির আর নাসিরকে এ কারণেই দলে রাখা। দুজনেই টেস্ট মেজাজে ব্যাটিংয়ের পাশাপাশি দ্রুত রান করতে সক্ষম।’-বাংলা ট্রিবিউন