সোনামসজিদ স্থলবন্দরে চাঁদাবাজির দায়ে ৩ শ্রমিক গ্রেফতার

আপডেট: June 17, 2020, 10:42 pm

শিবগঞ্জ প্রতিনিধি:


সোনামসজিদ স্থলবন্দরে চাঁদাবাজির অভিযোগে ৩ জনকে গ্রেফতার করেছে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ। গ্রেফতারকৃতরা হচ্ছে, শিবগঞ্জ উপজেলার দাইপুকুরিয়া ইউনিয়নের কামালপুর গ্রামের মফিজ উদ্দিনের ছেলে কামরুল ইসলাম (৩০), রাজ্জাক আলীর ছেলে জাকিরুল ইসলাম (২৭) এবং শাহবাজপুর ইউনিয়নের বালিয়াদিঘি গ্রামের তফিজুল ইসলামের ছেলে সোহেল রানা (২৫)।
মঙ্গলবার (১৫ জুন) বিকেলে তাদের গ্রেফতার করা হয়। এসময় তাদের কাছ থেকে ১২ হাজার টাকা এবং পরে তাদের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী আরো ৫০ হাজার টাকাসহ পানামা পোর্ট লিংক লিমিটেডের কয়েকটি রশিদ ও নোটবুক উদ্ধার করা হয়।
বুধবার (১৭ জুন) বিকেলে পুলিশ অফিসে প্রেস ব্রিফিং এ তথ্য জানান পুলিশ সুপার এএইচএম আবদুর রাকিব। এসময় পুলিশ সুপার জানান, সোনামসজিদ স্থলবন্দরে শ্রমিক সমন্বয় কমিটির নামে বেশ কয়েকটি গ্রুপ চাঁদবাজি করে আসছে। এদের মধ্যে একটি গ্রুপের কয়েকজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তিনি আরো জানান, বন্দরে প্রতিমাসে কয়েক কোটি টাকা চাঁদাবাজি করা হয় এবং সেই টাকা বিভিন্ন জনের মধ্যে ভাগবাটোয়ারা করা হয়। তিনি বন্দরে সব ধরনের চাঁদাবাজি বন্ধ করা হবে বলেও জানান।
এদিকে ৩১টি শ্রমিক সংগঠন নিয়ে গঠিত সোনামসজিদ স্থলবন্দর শ্রমিক লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মো. সাদিকুল ইসলাম চাঁদাবাজির অভিযোগ অস্বীকার করে জানান, বন্দরে শ্রমিক সংগঠনের নামে কোনো চাঁদা আদায় করা হয় না। শ্রমিকরা শুধু তাদের মজুরি নিয়ে থাকে। তবে ভারতীয় গাড়ির চালকরা খুশি হয়ে দু’ একজন শ্রমিককে বখশিস দেয়- তাদের ভারতীয় টাকা পরিবর্তনের জন্য। কিন্তু পুলিশ চাঁদাবাজির অভিযোগে শ্রমিকদের ধরে নিয়ে যাওয়ায় বন্দরে অন্যান্য শ্রমিকদের মধ্যে ভীতি ও ক্ষোভ দেখা দিয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে শ্রমিকরা কাজ বন্ধ করে দিলে বন্দরে অচলাবস্থার সৃষ্টি হতে পারে বলে মনে করেন তিনি।