সোনার ক্ষুরে গোঁফদাড়ি কামাতে লাগবে ১০০ রুপি

আপডেট: ফেব্রুয়ারি ১৩, ২০২২, ৬:৩৪ অপরাহ্ণ

ছবি: সংগৃহীত

সোনার দেশ ডেস্ক:


ব্যবসা চালাতে গিয়ে ক্রেতা বা গ্রাহকের কথা মাথায় রেখে দোকানিরা অনেককিছুই করেন। সেরকমই একজন দোকানি ভারতের অবিনাশ বরুন্ডিয়া।

পুনে সংলগ্ন পিম্পরি চিঞ্চওয়াড় শহরে একটি সেলুন আছে নরসুন্দর অবিনাশের। তবে ব্যবসার পসার বাড়াতে তিনি বেছে নিয়েছেন অভিনব এক পন্থা। তার দাবি, সেলুনের প্রত্যেক গ্রাহকই স্পেশাল। ফলে তাদের গোঁফদাড়ি কামাতে আস্ত একটি সোনার ক্ষুর কিনেছেন তিনি।

গোঁফদাড়ি কামানোর কাজে আট তোলা ওজনের সোনার ক্ষুর ব্যবহার করার ভাবনা হইচই ফেলে দিয়েছে নেটজগতে। ফলে আচমকা প্রচারের আলোয় উঠে এসেছেন নরসুন্দর অবিনাশ।

৮০ গ্রাম ওজনের ওই সোনার ক্ষুরটি কিনতে কতো খরচ হয়েছে? এমন প্রশ্নের উত্তরে অবিনাশ জানিয়েছেন, প্রায় চার লাখ রুপি দিয়ে ওই ক্ষুর কিনেছেন তিনি।

শুধু তাই নয়, তার সেলুনে যে সোনার ক্ষুর দিয়ে গোঁফদা়ড়ি কাটা যায়, সে কথাও ঘটা করে প্রচার করেছেন অবিনাশ।
সম্প্রতি সেলুনটির উদ্বোধনে স্থানীয় বিজেপি বিধায়ক গোপীনাথ পডবলকরকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল। এমন প্রচারে ফল পাচ্ছেন হাতেনাতে। ধীরে ধীরে বাড়ছে অবিনাশের পসার।

অবশ্য করোনাকালে পথে বসার অবস্থা হয়েছিল অবিনাশের মতো ছোট ব্যবসায়ীদের। সংক্রমণ রুখতে ২০২০ সালের ২৫ মার্চ থেকে দফায় দফায় দেশজুড়ে লকডাউন ঘোষণা করেছিল নরেন্দ্র মোদীর সরকার। এ সময় বন্ধ ছিল দোকানপাট-হাটবাজার, সেলুন-স্পা-জিম-রেস্তোরাঁ বা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। তখন কাজ হারিয়েছেন বহু শ্রমিক-কর্মচারীরা।

সাংবাদিকদের কাছে অবিনাশ বলেছেন, যাদের বেশি টাকাপয়সা নেই, তারাও সোনার ক্ষুর দিয়ে গোঁফদাড়ি কামাতে পারবেন। আর অবিনাশের সেলুনে দাড়ি কাটার খরচ মাত্র ১০০ রুপি।
তথ্যসূত্র: এবিপি, বাংলানিউজ