স্ত্রীর যৌতুক মামলা আপসের শর্তে সেই রাবি শিক্ষকের জামিন

আপডেট: জুলাই ৬, ২০১৭, ১২:৩৩ পূর্বাহ্ণ

রাবি প্রতিবেদক


স্ত্রীর দায়ের করা যৌতুকের মামলায় গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি হওয়া রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) সেই শিক্ষককে স্ত্রীর সঙ্গে ‘আপসের শর্তে’ জামিন দিয়েছেন আদালত। গতকাল বুধবার দুপুরে রাজশাহীর অতিরিক্ত মূখ্য মহানগর হাকিম জুলফিকার উল্লাহ তার জামিন মঞ্জুর করেন। মামলার শুনানির জন্য ধার্য পরবর্তী তারিখ পর্যন্ত তিনি জামিনে থাকবেন।
রাবির ক্রপ সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. হাফিজুর রহমানের বিরুদ্ধে আদালতে যৌতুকের দাবিতে নির্যাতনের অভিযোগ করেন তার স্ত্রী। আদালত অভিযোগটি মামলা আকারে গ্রহণ করে অধ্যাপক হাফিজুরের বিরুদ্ধে গ্রেফতার পরোয়ানা জারি করেন।
মামলার এজহারে বাদি উল্লেখ করেন, আসামি অধ্যাপক ড. মো. হাফিজুর রহমানের সঙ্গে ২০০৪ সালের ৩১ জানুয়ারি বাদীর বিয়ে হয়। তাদের দুই সন্তানও রয়েছে। তবে দীর্ঘদিন যাবত হাফিজুর রহমান যৌতুক দাবি করে স্ত্রীকে শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতন করতো। সবশেষ গত ৩০ এপ্রিল অধ্যাপক হাফিজুর রহমান স্ত্রীর কাছে ৫০ লক্ষ টাকা যৌতুক দাবি করে স্ত্রী-সন্তানদের ভাড়া বাড়িতে রেখে চলে যান। পরে তার স্ত্রী (মামলার বাদি) বিষয়টি নানাভাবে আপস করার চেষ্টা করেও ব্যর্থ হওয়ায় আদালতে মামলা দায়ের করেন।
বাদির আইনজীবী অ্যাড. শামসাদ বেগম মিতালী জানান, ‘মামলার বাদির সঙ্গে আপসের শর্তে তিনি (অধ্যাপক হাফিজুর রহমান) জামিন পেয়েছেন। বাদি আপস করবেন কিনা সে বিষয়ে এখনও আমার আলাপ হয়নি। পরবর্তী শুনানির তারিখ পর্যন্ত তাকে আদালত জামিন দিয়েছেন।’ মামলার আসামি অধ্যাপক হাফিজুর রহমানের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি আদালত থেকে জামিন পাওয়ার সত্যতা স্বীকার করেন। তবে তিনি ও তাঁর স্ত্রী (মামলার বাদি) এ বিষয়ে গণমাধ্যমে কোনো কথা বলতে রাজি হননি।