স্ত্রী-মেয়েকে বালিশ চাপা দিয়ে হত্যা

আপডেট: মার্চ ৩, ২০১৭, ১২:০৭ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


গাইবান্ধা সদর উপজেলায় স্ত্রী ও শিশু মেয়েকে বালিশ চাপা দিয়ে হত্যার অভিযোগে এক ব্যক্তিকে আটক করেছে পুলিশ।
বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে উপজেলার বল্লমঝাড় ইউনিয়নের খামার বল্লমঝাড় গ্রাম থেকে মা-মেয়ের লাশ উদ্ধার করা হয় বলে গাইবান্ধা সদর থানার ওসি একেএম মেহেদী হাসান জানান।
নিহতরা হলেন ওই গ্রামের শামিউল ইসলামের স্ত্রী নাজমা বেগম (৩০) ও তাদের ছয় মাস বয়সী মেয়ে শামীমা। এ ঘটনায় পুলিশ শামিউলকে গ্রেপ্তার করেছে।
বল্লমঝড় ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান জাহিদুল ইসলাম ঝন্টু বলেন, শামিউলের তিন স্ত্রী। এদের মধ্যে নাজমা তৃতীয়।
“তার প্রথম স্ত্রী ঢাকায় পোশাক কারখানায় চাকরি করে এবং দ্বিতীয় স্ত্রী বাবার বাড়িতেই থাকেন।”
ওসি মেহেদী বলেন, বৃহস্পতিবার সকালে শামিউলের চিৎকারে প্রতিবেশীরা গিয়ে তাকে হাত-পা বাঁধা অবস্থায় উদ্ধার করে। তখন তিনি জানান, রাতে অজ্ঞাত দুর্বৃত্তরা ঘরে ঢুকে তার স্ত্রী ও সন্তানকে হত্যা করে পালিয়ে গেছে।
“তবে ওই সময় ঘরে থাকা তার ছেলে নাজমুল (১১) প্রতিবেশীদের জানায় রাতে তার বাবাই বালিশ চাপা দিয়ে মা ও বোনকে হত্যা করে। বিষয়টি সে টের পেয়ে ভয়ে লেপের নিচে মাথা লুকিয়ে রাখে।
“পরে ভোরে এক ব্যক্তি এসে ঘরের দরজার কড়া নাড়লে তার বাবা দরজা খুলে দেয়। ওই লোক ঘরে ঢুকে বাবার হাত-পা দড়ি দিয়ে বেঁধে রেখে যায়।”
ঘটনা ফাঁস হওয়ার পর শামিউল পালানোর চেষ্টা করলে এলাকাবাসী তাকে আটক করে পুলিশে দেয় বলে জানান ওসি।- বিডিনিউজ