স্বাধীনতাবিরোধীরা ইতিহাস বিকৃত করতে চাই : লিটন

আপডেট: আগস্ট ৫, ২০১৭, ১২:৫১ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক


আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও নগর সভাপতি এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন বলেছেন, দেশের স্বাধীনতার বিরুদ্ধে এখনো একটি অপশক্তি সক্রিয় আছে। তারা চাই দেশের ইতিহাস বিকৃত করতে। আজকে শোকের মাসে শিশুরা চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতার মাধ্যমে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর ছবি আঁকছে। এটিও অপশক্তির বিরুদ্ধে লড়াই।  অপশক্তির বিরুদ্ধে রঙ তুলির আঁচড়ে এটিও একটি মুক্তিযুদ্ধ।
অনলাইন পত্রিকা পদ্মা টাইমস টোয়েন্টিফোর ডটকম’র উদ্যোগে ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস পালনে চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতার পুরষ্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।
গতকাল শুক্রবার বিকেলে শহীদ নজমুল হক উচ্চ বালিকা বিদ্যালয় হলরুমে আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে আওয়ামী লীগ নেতা এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন আরো বলেন, ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট ষড়যন্ত্রকারীরা বঙ্গবন্ধুকে নির্মমভাবে হত্যা করে। শুধু তাই না, ওই দিন বাড়িতে যে ১৮ জন সদস্য ছিলেন সবাইকে হত্যা করা হয়েছিলো। সেইদিন বাড়িতে যদি বর্তমান প্রধানমন্ত্রী এবং বঙ্গবন্ধুর কন্যা শেখ হাসিনা ও শেখ রেহেনা থাকতেন তাহলে তাদেরও হত্যা করা হতো। কিন্তু সৃষ্টিকর্তা তাদের হাত দিয়েই ষড়যন্ত্রকারীদের বিচার করবেন বলে বাঁচিয়ে রেখেছিলেন। সেই ষড়যন্ত্র এখনো অব্যহত আছে। তাই ষড়যন্ত্রকারীদের সম্পর্কে সজাগ থাকতে হবে।
সাবেক মেয়র লিটন আরো বলেন, প্রতিটি জাতির একজন নেতা থাকেন। তার নেতৃত্বেই দেশ স্বাধীনতা পায়। যেকোনো জাতি মহান সেই নেতাকে শ্রদ্ধা করেন। তিনি জাতির পিতা। আমাদের জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। যদি কোন জাতি তার পিতাকে অস্বীকার করে তাহলে ওই জাতির পরিচয় থাকে না। আমাদের সেটি গুরুত্বের সঙ্গে মনে রাখতে হবে।
পদ্মা টাইমস টুয়েন্টিফোর ডটকম’র প্রকাশক ও নগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আজিজুল আলম বেন্টুর সভাপতিত্বে পুরষ্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে অন্য অতিথিদের মধ্যে ছিলেন, রাজশাহী চেম্বার অব কমার্স সভাপতি মনিরুজ্জামান মনি, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি আবদুল মোমিন। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন, পদ্মা টাইমস টুয়েন্টিফোর ডটকম’র সম্পাদক বদরুল হাসান লিটন।
চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতায় ‘ক’ বিভাগে প্রথম স্থান অধিকার করে আবির হোসেন (৭), দ্বিতীয় স্থান অধিকার করে সুপ্রিয় কুমার দাস (৭) ও তৃতীয় স্থান অধিকার করে আরেফ মাহমুদ (৭)। ‘খ’ বিভাগে প্রথম স্থান অধিকার করে আরোয়া হক স্নেহা (৯), দ্বিতীয় স্থান অধিকার করে রাইয়ানা হোসেন (১২) ও তৃতীয় স্থান অধিকার করেন আফরিন মোস্তফা (৯)।
বিজয়ীদের হাতে ক্রেস্ট ও সার্টিফিকেট তুলে দেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতা এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন। এছাড়াও অন্য অংশগ্রহণকারীদের হাতেও তুলে দেয়া হয় সার্টিফিকেট।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ