স্বামীদের অপছন্দ! ‘শাস্তি’ দিতে পাকিস্তানে খুন পাক বংশোদ্ভূত দুই স্প্যানিশ বোন

আপডেট: মে ২৪, ২০২২, ৭:৩০ অপরাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক:


পাকিস্তানি বংশোদ্ভূত দুই স্প্যানিশ বোনকে নির্যাতন ও গুলি করে খুনের অভিযোগে পাকিস্তানে গ্রেপ্তার করা হল ৬ জন অভিযুক্তকে। জানা গিয়েছে, মৃত দুই তরুণীর নাম আরুজ আব্বাস (২১) ও আনিশা আব্বাস (২৩)। মর্মান্তিক এই ঘটনাটি ঘটেছে পাকিস্তানের পাঞ্জাব প্রদেশের নাঠিয়া গ্রামে।

গত শুক্রবার খুন করা হয় ওই দুই বোনকে। কিন্তু কেন? জানা গিয়েছে, ওই দুই বোনকে জোর করে বিয়ে দেওয়া হয় পাকিস্তানের দুই তুতো ভাইয়ের সঙ্গে। কিন্তু তাঁরা তাঁদের স্বামীকে নিয়ে খুশি ছিলেন না। আর সেই কারণেই কিছুতেই স্পেনে যেতে তাঁদের ভিসার উদ্যোগ নিচ্ছিলেন না তাঁরা। আর সেই কারণেই ওই যুবকদের পরিবার অত্যাচার শুরু করে দুই বোনের উপরে। এরপর তাঁদের গুলি করে খুন করা হয়।

পুলিশ অফিসার আতাউর রহমান সংবাদ সংস্থা এপিকে জানিয়েছেন, খুনের অভিযোগ আনা হয়েছে ওই দুই তরুণীর দাদা, এক কাকা, দুই স্বামী, এক তুতো ভাই ও দুই শ্বশুরকেই। এছাড়াও দুই অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তি ও আরও এক আত্মীয়র বিরুদ্ধেও অভিযোগ আনা হয়েছে।

সংবাদ সংস্থা পিটিআই জানিয়েছে, দুই বোনকেই তাঁদের বাড়িতে মৃত অবস্থায় পাওয়া গিয়েছে। অভিযুক্ত দুই স্বামী ও তাদের বাবারা জানিয়েছে, তাদের সন্দেহ হচ্ছিল ওই দুই বোন তাদের স্পেনে নিয়ে যেতে চাইছেন না। আর সেখান থেকেই শুরু হয় গ-গোলের।

উল্লেখ্য, পাকিস্তানের প্রত্যন্ত অঞ্চলে জোর করে মেয়েদের বিয়ে দেওয়ার ঘটনা নিয়মিত ঘটে। এবং কোনও মেয়ে বিয়েতে আপত্তি করলে বা পরিবারের বড়দের কথা না শুনতে চাইলে তাঁদের মেরে ফেলার ঘটনাও নিত্য নৈমিত্তিক ঘটে। হনার কিলিংয়ের শিকার হয়ে প্রতি বছর পাকিস্তানে অন্তত ১ হাজার জনের মৃত্যু হয় বলে জানাচ্ছে পরিসংখ্যান।
তথ্যসূত্র: সংবাদ প্রতিদিন

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ