স্মার্ট প্রি-পেমেন্ট মিটার : বহুমাত্রিক সুবিধা গ্রাহক জানবে কীভাবে ?

আপডেট: ফেব্রুয়ারি ৩, ২০২১, ১২:৩৩ পূর্বাহ্ণ

মাহাবুল ইসলাম:


বিদ্যুতের ব্যবহার নিয়ন্ত্রণ ও বিল পরিশোধের আধুনিক সুবিধাসহ বেশ কিছু সুবিধাসম্পন্ন স্মার্ট প্রি-পেমেন্ট মিটার স্থাপন নিয়ে রাজশাহী অঞ্চলে গ্রাহকের মাঝে এক ধরনের শঙ্কা তৈরি হয়েছে। এরইমধ্যে কিছু গ্রাহক প্রি-পেমেন্ট মিটারের সুবিধা নিয়ে প্রশ্ন তুলে আন্দোলনও করেছেন। তারা বলছেন, ঢাকা, চট্টগ্রাম, মুন্সিগঞ্জ, নরসিংদী, খুলনা, যশোরসহ বিভিন্ন স্থানে প্রি-পেইড মিটার লাগানো হয়েছে। এসব এলাকার মানুষ অস্বস্তিতে পড়েছেন। নেসকো যদি এই মিটার বসাতেই চায় তাহলে গণশুনানি করে সাধারণ মানুষকে এর উপকারিতা বোঝাতে হবে। এরপর মিটার বসাতে হবে।
নর্দান ইলেকট্রিসিটি সাপ্লাই কোম্পানি লিমিটেড (নেসকো) কর্তৃপক্ষ বলছে, স্মার্ট প্রি-পেমেন্ট মিটার নিয়ে প্রচারণা চালানো হচ্ছে। এর সুবিধাগুলোও তুলে ধরা হচ্ছে। কিছু স্বার্থান্বেষী মহল এটার বিরোধিতা করছে। তবে সামনের দিনে প্রি-প্রেমেন্ট মিটারের সুবিধাগুলো তুলে ধরে গ্রাহকের মাঝে আরো প্রচারণা চালানো হবে।
নেসকোর তথ্য মতে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্যোগে রাজশাহী অঞ্চলে ৫ লাখ গ্রাহকের ঘরে স্মার্ট প্রি-পেমেন্ট মিটার স্থাপন করছে নর্দান ইলেকট্রিসিটি সাপ্লাই কোম্পানি লিমিটেড। ইতোমধ্যে ডেসকো, ডিপিডিসি, বিডিপি, পল্লী বিদ্যুৎ এরা স্মার্ট প্রি-পেমেন্ট মিটারের মাধ্যমে সেবা দিচ্ছে। রাজশাহীতে প্রি-প্রেমেন্ট মিটার স্থাপনের ফলে গ্রাহক সেবা আরো উন্নত হবে। ভূতুড়ে বিলের কোনো সুযোগ থাকবে না। বিদ্যুতের ব্যবহার গ্রাহকের নিয়ন্ত্রণে থাকবে। গ্রাহক ঘরে বসে নেসকোর নিজস্ব অ্যাপস, ওয়েবসাইট, নগদ, বিকাশ, রকেট, টেলিক্যাশ ইত্যাদি মোবাইল ব্যাংকিংসহ নেসকোর আওতাধীন ইউটিলিটি ভেন্ডিং স্টেশন থেকে কার্ডের রিচার্জ করাতে পারবেন। স্মার্ট প্রি-পেমেন্ট মিটারের বিল সংক্রান্ত জটিলতার অবসানসহ মানসম্মত বিদ্যুৎ সরবরাহ নিশ্চিত করা যাবে।
তারা আরো জানায়, স্মার্ট প্রি-পেমেন্ট মিটার সিস্টেমে শতকরা ১ শতাংশ হারে রেয়াত সুবিধা পাবেন গ্রাহক। সাপ্তাহিক ছুটির দিনসহ অন্যান্য সরকারি ছুটির দিন মিটারে ব্যালেন্স শেষ হলেও বিদ্যুৎ সরবরাহ সচল থাকবে। অন্যান্য দিন বিকাল ৪ টা থেকে পরের দিন সকাল ১১ টা পর্যন্ত ফ্রেন্ডলি আওয়ার এর সুবিধা পাওয়া যাবে। এক্ষেত্রে মিটারে রির্চাজের পর পূর্বের ক্রেডিট কেটে নেয়া হবে।
এদিকে, স্মার্ট প্রি-পেমেন্ট মিটার স্বাগত জানিয়েছেন অনেকেই। তারা বলছেন, স্মার্ট প্রি-পেমেন্ট মিটারের স্থাপন হলে বিদ্যুৎ সেবায় ব্যাপক পরিবর্তন আসবে। তবে রাজশাহীতে তেমন প্রচারণা না থাকায় কিছু ভুল বোঝাবুঝি হচ্ছে। এক্ষেত্রে নেসকোর দায়িত্বশীলদের সেবাপ্রার্থীদের মুখোমুখি হওয়া প্রয়োজন। এছাড়া স্মার্ট প্রি-পেমেন্ট মিটারের সুবিধাগুলো তুলে ধরে ব্যাপক প্রচারণার প্রয়োজনীয়তার কথাও বলছেন তারা।
এ বিষয়ে কনজিউমারস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ক্যাব) এর কেন্দ্রীয় উপদেষ্টা (ভোক্তা অভিযোগ) প্রকৌশলী একেএম খাদেমুল ইসলাম ফিকসন জানান, বর্তমান সময়ে আধুনিক প্রযুক্তিকে উপেক্ষা করে চলার কোনো সুযোগ নেই। আর বহুমাত্রিক আধুনিক সুবিধাসম্পন্ন স্মার্ট প্রি-পেমেন্ট মিটারকেউ উপেক্ষা করা যাবে না। কেননা স্মার্ট প্রি-পেমেন্ট মিটারের মাধ্যমে বিদ্যুৎ সেবা আরো আধুনিক হবে। বিল পেমেন্টের আধুনিক সুবিধা থাকায় গ্রাহকের দুর্ভোগ কমবে। তবে রাজশাহীতে স্মার্ট প্রি-পেমেন্ট মিটার স্থাপনের ক্ষেত্রে নেসকোর আরো দূরদর্শিতা দেখাতে হতো। স্মার্ট প্রি-পেমেন্ট মিটারের সুবিধাগুলো তুলে ধরে যে পরিমাণ প্রচারণার প্রয়োজন ছিলো তা তারা করেনি। আর এ কারণেই গ্রাহকের সঙ্গে নেসকোর একটা দূরত্ব তৈরি হয়েছে। এ দূরত্ব ঘোঁচাতে আরো ব্যাপক প্রচারনাসহ এই মিটারের সুবিধাগুলো প্রতিটি গ্রাহকের কাছে তুলে ধরতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে হবে।
তিনি আরো বলেন, স্মার্ট প্রি-পেমেন্ট মিটার স্থাপনের ফলে নেসকোর একটা বিরাট অঙ্কের ব্যয় কমবে। কিছু মানুষ কর্মসংস্থান হারাবে। সুতরাং এসকল মানুষগুলোর বিকল্প কর্মসংস্থান করা যায় কিনা এ বিষয়ে তাদের ভাবতে হবে। এছাড়া বিদ্যুতের দাম কমানোসহ সকল গ্রাহকের অভিন্ন স্লাবে বিল করার উদ্যোগ নিতে হবে।
ঢাকায় স্মার্ট প্রি-পেমেন্ট মিটার ব্যবহার করেন ফারুকী হোসেন। তিনি জানান, স্মার্ট প্রি-পেমেন্ট মিটারে বেশ কিছু সুবিধা আছে। বিদ্যুতের ব্যবহারটা নিজের নিয়ন্ত্রণে থাকে। তবে স্মার্ট প্রি-পেমেন্ট মিটার ব্যবহারে কিছু অসুবিধাও আছে। এখানে গ্রাহক সেবা আরো বৃদ্ধি করা প্রয়োজন। কেননা স্মার্ট প্রি-পেমেন্ট মিটারে কর্তৃপক্ষের ব্যয় অনেক কমে। কিন্তু গ্রাহকের ব্যয়টা কমছে না। মিটারের কার্ডের রিচার্জের ক্ষেত্রে ব্যাংকিং সুবিধা থাকলেও সেখানে গ্রাহককে এক্সট্রা চার্জ দিতে হয়। আবার স্ল্যাবটাও আগের মতোই থাকছে। এক্ষেত্রে কর্তৃপক্ষকে নজর দেয়া প্রয়োজন।
সাধারণ গ্রাহক স্মার্ট প্রি-পেমেন্ট মিটার নিয়ে আশাবাদী জানিয়ে নেসকো উপ-মহাব্যবস্থাপক সুবীর রঞ্জন পোদ্দার জানান, কিছু মানুষ না বুঝেই স্মার্ট প্রি-পেমেন্ট মিটারের বিরোধিতা করছে। আর কিছু মানুষ বুঝে নিজেদের স্বার্থ হাসিলের জন্য বিরোধিতা করছে। তবে তারা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্যোগে আধুনিক গ্রাহক সুবিধা সম্পন্ন স্মার্ট প্রি-পেমেন্ট মিটার বসানোর কাজ শুরু করেছেন।
স্মার্ট প্রি-পেমেন্ট মিটারের সুবিধাগুলো তুলে ধরে তিনি বলেন, এই মিটার স্থাপনের ফলে গ্রাহক সেবায় ব্যাপক পরিবর্তন আসবে। বিল প্রেমেন্টের ক্ষেত্রে কোনো ভোগান্তি থাকবে না। সুতরাং আধুনিক যুগে এসে আধুনিক প্রযুক্তিকে উপেক্ষা করার কোনো সুযোগ নেই।
তিনি বলেন, স্মার্ট প্রি-পেমেন্ট মিটারের সুবিধাগুলো তুলে ধরে তারা বিভিন্ন মাধ্যমে প্রচারণা চালাচ্ছেন। সামনের দিনে এই তৎপরতা আরো বাড়ানো হবে। এবং আবারো স্থানীয় প্রতিনিধিসহ সুশীল সমাজের প্রতিনিধিদের নিয়ে এ বিষয়ে আলোচনা করা হবে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ