হঠাৎই হয়ে গিয়েছিল ওয়ার্নের ‘শতাব্দীর সেরা বল’

আপডেট: সেপ্টেম্বর ১৫, ২০১৭, ১২:০২ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


সেই বল ছোড়ার আগে ওয়ার্ন

১৯৯৩ সালের প্রথম অ্যাশেজ টেস্টে অসাধারণ বোলিংয়ের স্মৃতি আবার ফেরালেন শেন ওয়ার্ন। ইংল্যান্ডকে ১৭৯ রানে হারাতে ওই ম্যাচে প্রতিপক্ষ ব্যাটসম্যানদের অসহায় করে ছেড়েছিলেন এ স্পিন লিজেন্ড। ওই ম্যাচে ইংল্যান্ডের ব্যাটসম্যান মাইক গ্যাটিংকে বিস্ময়করভাবে বোল্ড করেছিলেন তিনি, ওই ডেলিভারিটি পেয়েছিল ‘শতাব্দীর সেরা বল’এর মর্যাদা। এতদিন পরও ওই বলের রহস্য বের করতে পারেননি ওয়ার্ন নিজেই। বুধবার ৪৮ বছরে পা দেওয়া সাবেক লেগ স্পিনার জানালেন, হঠাৎ করেই হয়েছিল ওই ‘বিস্ময়কর’ ডেলিভারি।
১৯৯২ সালে অভিষেকের পর ১১ ম্যাচ খেলে প্রথমবার ইংল্যান্ডে খেলতে যান ওয়ার্ন। ইংল্যান্ডের মাটিতে প্রথম বলেই সবাইকে হতবাক করে দেন ২৪ বছর বয়সি স্পিনার। স্পিন উইকেটে গ্যাটিং বেশ দেখেশুনে খেলছিলেন। সফরকারী অধিনায়ক অ্যালান বোর্ডার বল তুলে দেন ওয়ার্নকে। লেগ স্টাম্পের বেশ বাইরে বল করেছিলেন তিনি। এলবিডাব্লিউ হবে না নিশ্চিত হয়ে বলের লাইনে পা রেখে ব্যাট চালালেন ওই সময়ের সেরা ইংলিশ ব্যাটসম্যান। কিন্তু বল আশ্চর্যভাবে ঘুরে ব্যাট ফাঁকি দিয়ে আঘাত করলো স্টাম্পে। গ্যাটিং তো বটেই, হতবাক হয়েছিলেন ওয়ার্ন ও তার সতীর্থরা। ১৩৭ রান দিয়ে ওই ম্যাচে ৮ উইকেট নিয়েছিলেন অসি স্পিনার, কিন্তু ওই বল হয়ে যায় ‘শতাব্দীর সেরা বল’। ম্যাচসেরার পুরস্কার নির্দ্বিধায় উঠেছিল ওয়ার্নের হাতে।
জন্মদিনে টুইটারে আইসিসির আপলোড করা ভিডিওতে ২৪ বছর আগের সেই বলটির রহস্য জানাতে গিয়ে ওয়ার্ন বলেছেন, ‘শতাব্দীর সেরা বল ছিল আকস্মিক। সত্যি, এটা হঠাৎ করে হয়ে গিয়েছিল। আর কখনও কোনও সময় আমি প্রথম বলে সেটা আর করতে পারি নি।’
ওই বল ক্যারিয়ার বদলে দিয়েছে মনে করেন ওয়ার্ন। ১৪৫ টেস্টে ৭০৮ উইকেট নেওয়া সাবেক এ স্পিন গ্রেট বলেছেন সেই কথা, ‘লেগ স্পিনার হিসেবে আপনি সবসময় চেষ্টা করবেন প্রত্যেক বল যেন নিখুঁত লেগ ব্রেক হয় এবং প্রথম থেকে আমি সেটা করে গেছি। তবে ওই বলটা আমার জীবনকে বদলে দিয়েছিল, মাঠে ও মাঠের বাইরে। বিশেষ করে মাইক গ্যাটিংয়ের মতো অসাধারণ একজন ব্যাটসম্যানকে ওইরকম বলে আউট করা গর্বের ব্যাপার। ইংল্যান্ডে প্রথম বলে এমন কিছু ছিল বিশেষ মুহূর্ত।’ এনডিটিভি, বাংলা ট্রিবিউন