হঠাৎ পেঁয়াজের দামে লম্ফ গত বছরের অভিজ্ঞতা যাতে না হয়!

আপডেট: September 16, 2020, 12:05 am

পেঁয়াজের বাজারে আবারো বিশৃঙ্খলা। ব্যবসায়ীদের লাগামহীন দৌরাত্ম। অন্যায় সুযোগ নিতে মুহূর্ত বিলম্ব হয়নি। ভারত রপ্তানি বন্ধ ঘোষণা করার দিনেই পেঁয়াজের বাজারে লঙ্কাকা- বাঁধিয়ে দিলেন অসাধু ব্যবসায়ীরা। সোমবার বিকেলেও রাজশাহীর বাজারে দেশি পিঁয়াজ ৫৫ টাকা কেজিতে বিক্রি হয়েছে। বাংলাদেশে পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধে ভারতের সিদ্ধান্ত সংবাদ মাধ্যমে আসার সাথে সাথেই ব্যবসায়ীদের তেলেসমাতি শুরু হয়ে গেল। এলাকা ভেদে দাম বেড়ে হয়ে গেল ৮০-১০০ টাকা কেজি।
বাজারে পণ্যের মূল্যবৃদ্ধির জন্য ক্রেতারা দুষে থাকেন খুচরা ব্যবসায়ীদের, খুচরা ব্যবসায়রা দুষে থাকেন পাইকারদের আর আর পাইকাররা বলে থাকেন বাজারে সরবরাহ কম। কৃষক ও বড় ব্যবসায়ীরা অধিক লাভের আশায় মজুদ করেছেন। কিন্তু বর্তমান পিঁয়াজের দামের দীর্ঘ লম্ফের জন্য কে কাকে দায়ি করবেন? ভারতের পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধের আগ মুহূর্তে বাজারে যে পেঁয়াজ মজুদ ছিলÑ পরমুহূর্তে মজুদের খুব একটা হেরফের হওয়ার কথা নয়Ñ তা হলে এক লাফে ২৫-৫০ টাকা বাড়লো কীভাবে? অর্থাৎ এ ক্ষেত্রে সুযোগটা সব ব্যবসায়ীরাই নিয়েছেন এবং সেটা খুবই নিষ্ঠুর ও নির্মমতার সাথে।
গতবছরের তিক্ত অভিজ্ঞতা ভোলেনি কেউ। ওই একই অভিজ্ঞতার মুখোমুখি দেশের মানুষ। চলতি মাসের গোড়া থেকেই পেঁয়াজের দাম বাড়তে থাকেÑ তবে সেটাও বাড়ছিল ধাপে ধাপে। কিন্তু সোমবার সন্ধ্যার পর থেকে সেটা দীর্ঘ লাফে বেড়েছেÑ যেটা খুবই অস্বাভাবিক। এ ক্ষেত্রেও একটা কমন অভিযোগ ব্যবসায়ীদের যে, ক্রেতারা দাম বাড়ার আশংকায় বেশি বেশি পিঁয়াজ ক্রয় করছে। কিন্তু সেটি সোমবার সন্ধ্যার পর তো ক্রেতারা সব দোকানে হুমড়ি খেয়ে পড়েনি যে, মুহূর্তের মধ্যেই পিঁয়াজ কেজিতে ২৫-৫০ টাকা বেড়ে যাবে? আমরা জানি অজুহাতের হাত কোনো হাত নয়Ñতবুও সেই হাত দেখিয়েই নিজেদের দায়মুক্ত করার চেষ্টা হয়। অবশ্য এটা হওয়ার পেছনে বাজার ব্যবস্থায় কোনো নিয়ন্ত্রণ না থাকাও অনেকটা দায়ি। বাজারকে অস্থিতিশীল করার জন্য ব্যবসায়ীদের যে সিন্ডিকেট কাজ করে তা পর্যবেক্ষণ করে ত্বরিৎ উদ্যোগের কোনো ব্যবস্থা নজরে পড়ে না। ফলে অসাধু ব্যবসায়ীরা তাদের তেলেসমাতি দেখাতেই থাকে। আর এর ফলে দরিদ্র ক্রেতারা সবচেয়ে ক্ষতির মুখে পড়েন। তবুও রক্ষে যে এই মুহূর্তে সরকার টিসিবির মাধ্যমে পেঁয়াজসহ অন্যান্য নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য বিক্রি করছে। সরকার পেঁয়াজের মূল্যবৃদ্ধি ঠেকাতে ত্বরিত উদ্যোগও গ্রহণ করেছে। ৯টি উদ্যোগ বাস্তবায়নের জন্য কার্যক্রম শুরু করেছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়।
গত বছরের তিক্ততা নিশ্চয় সরকারকে অস্বস্তির মধ্যে ফেলেিেছল। এবার যেন সেই পরিস্থিতির সৃষ্টি না হয়। সে লক্ষে কাল বিলম্ব না করে পিঁয়াজের বাজার কীভাবে স্থিতিশীল রাখা যায় সরকার সেই ব্যবস্থাই নিবে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ