হবু মায়েদের খাবার

আপডেট: আগস্ট ২৭, ২০১৭, ১২:২৫ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


সংসারে আসছে নতুন অতিথি। তার জন্য প্রতিদিন কত প্রস্তুতি। গর্ভবতী মায়ের সেবায় ভীষণ সময় দিচ্ছেন পরিবারের সবাই। গর্ভবতী মায়ের আর সব সেবার সঙ্গে সঙ্গে খাবারে একটু বেশিই গুরুত্ব দিতে হয়। চিকিৎসকের পরামর্শের পাশাপাশি কিছু খাবার আপনি নিজেই বুঝে শুনে খেতে পারেন।
প্রথম ট্রাইমিস্টার বা গর্ভধারণের পর প্রথম ৩ মাসে অতিরিক্ত খাবার খাওয়ার দরকার নেই। অনেকেই প্রচুর খেয়ে ওজন অতিরিক্ত বাড়িয়ে ফেলেন। পরে এজন্য অনেক ক্ষতি হয় মা এবং বাচ্চা দুজনেরই। এ সময়ে আপনার দৈনন্দিন সাধারণ খাবারের সঙ্গে অতিরিক্ত ১ গ্লাস দুধ ও ডিম খেতে পারেন।
এছাড়া তাজা ফলমূল ও শাক সবজি খাবেন। ধূমপান এ সময়ে একদমই করবেন না। প্রচুর পানি খাবেন। ৮ থেকে ১০ গ্লাস। চা-কফি এড়িয়ে চলতে হবে। তাই পানীয় খেতে চাইলে প্রচুর ফলের জুস, দই, লাচ্ছি খান এবং অবশ্যই এসব বাড়িতে তৈরি করে খাবেন। বাইরের খাবার যত পারবেন তত কম খাবেন। ফলিক এসিড আছে এমন খাবার করল্লা, ক্যাপসিকাম, ব্রকলি, মেথি, পুদিনা, ধনিয়া, বাদাম ও কিসমিস খাওয়া যেতে পারে। দ্বিতীয় ট্রাইমিস্টার বা ৪র্থ থেকে ষষ্ঠ মাসে অতিরিক্ত ২০০-৩০০ ক্যালরি খাবার দরকার হয়। সাধারণ একজন নারীর প্রতিদিন ২২০০ ক্যালোরি লাগে গর্ভবতী মায়েদের দরকার আরও একটু বেশি ক্যালোরি। ২৫০০ ক্যালোরি খাবার খেতে পারে তারা। এসময় আয়োডিন, ভিটামিন সমৃদ্ধ খাবার বেশি দরকার হয়। সাধারণ যেসব খাবারে এসব উপকরণ পাওয়া যায় সেগুলোই খেতে হবে। চা-কফি বরাবরের মতো এড়িয়ে চলতে হবে। প্রচুর পানি খেতে হবে। তৃতীয় ট্রাইমিস্টার বা সপ্তম থেকে নবম মাসে একই খাবার মেনে চললেই হবে। তবে যাদের নানাবিধ সংকট রয়েছে- উচ্চরক্তচাপ, ডায়বেটিস কিংবা এলার্জি। তাদের অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শমতো ডায়েট চার্ট অনুসরণ করতে হবে।-বাংলা ট্রিবিউন

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ