হাঙরের সঙ্গে পাল্লা দেবেন ফেল্প্স!

আপডেট: জুন ১৮, ২০১৭, ১:০৪ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


পুল ছেড়ে এবার হাঙরের সঙ্গে পাল্লা দেবেন ফেল্প্স। ফাইল ছবি

মর্ত্যের কারও পক্ষে সম্ভব নয় ফেল্প্সের সঙ্গে পাল্লা দেওয়া! জলে নামলেই যে তিনি দানব হয়ে ওঠেন। অবিশ্বাস্য সব কীর্তি গড়েছেন সুইমিংপুলে। সর্বকালের সবচেয়ে সফল অলিম্পিয়ান তিনি। তাঁর সঙ্গে পাল্লা দেওয়ার মতো কারও দেখা এখনো মেলেনি। কে জানে এ কারণেই কিনা উপযুক্ত প্রতিদ্বন্দ্বীর খোঁজে সমুদ্রেই নেমেছেন ফেল্প্স! শ্বেত হাঙরের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে সাঁতার কাটবেন এই সাঁতারু!
২৮টি অলিম্পিক পদক। এর মাঝে ২৩টিই আবার সোনার, জলদানব নামটি আর এমনি পাননি ফেল্প্স! অবসর থেকে ফিরে রিও অলিম্পিকেও ৬টি পদক জিতে দেখিয়ে দিয়েছেন, তাঁর সমকক্ষের কাউকে খুঁজে পাওয়ার আশা করা বৃথা। এ কারণেই হয়তো ডিসকভারি চ্যানেল সিদ্ধান্ত নিয়েছে, মর্ত্যের সেরা সাঁতারুর সঙ্গে সাগরের সবচেয়ে ভয়ংকর শিকারির পাল্লা দেওয়ানোর।
কদিন আগেই ফেল্প্স সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি ‘হোয়াইট শার্কের’ ছবি দিয়ে লিখেছেন, ‘আমি এমন কিছু করতে পারলাম, যা সব সময় করতে চেয়েছি।’ ডিসকভারি চ্যানেল জানিয়েছে, আগামী জুলাইয়ে ‘হাঙর সপ্তাহের’ একটা বিশেষ প্রতিবেদনে অংশ নিয়েছেন ফেল্প্স।
দুজনের মাঝে প্রতিযোগিতা হলে কে সেরা হবে, এ নিয়ে অবশ্য কোনো সন্দেহ নেই কারও মনে। নিজের সেরা সময়ে যেখানে ফেল্প্সের গতি উঠেছে ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ছয় মাইল, সেখানে গ্রেট হোয়াইট শার্ক একটু চেষ্টা করলেই ঘণ্টায় ২৫ মাইল গতিতে ছুটতে পারে। আসলেই দুই প্রজাতির দুই প্রতিযোগী লড়াইয়ে নেমেছিলেন কি না, সেটা দেখার আগ্রহ থাকছেই। জনসচেতনতামূলক অনুষ্ঠানটি দেখানো হবে ২৩ জুলাই। সূত্র: টুইটার ও বিবিসি, প্রথম আলো অনলাইন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ