হাটবাজার বসাতে অনুমতি লাগবে: মন্ত্রিসভায় খসড়া অনুমোদন

আপডেট: মে ১৯, ২০২২, ৬:৩৪ অপরাহ্ণ

সংবাদ সম্মেলনে কথা বলছেন খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম

সোনার দেশ ডেস্ক:


হাটবাজার স্থাপন ও ব্যবস্থাপনা আইনের খসড়ায় নীতিগত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা। ‘হাট ও বাজার (স্থাপন ও ব্যবস্থাপনা) আইন, ২০২২’ শীর্ষক আইনের খসড়ায় বলা হয়েছে, সরকারের অনুমোদন ছাড়া কোনও হাটবাজার বসানো যাবে না। স্থানীয় হাটবাজারের জন্য জেলা প্রশাসকের অনুমতি লাগবে।’

বৃহস্পতিবার (১৯ মে) প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে মন্ত্রিসভার বৈঠকে এ অনুমোদন দেওয়া হয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন। বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ সচিব ড. খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ‘কেউ যদি সরকারের অনুমতি ছাড়া হাটবাজার বসায় তাহলে সেটা সরকার খাস জমি হিসেবে নিয়ে নেবে। এছাড়া ৫ লাখ টাকা জরিমানা এবং এক বছরের কারাদ- দেওয়া হবে বলেও আইনে বিধান রাখা হয়েছে।’

এছাড়া আজকের বৈঠকে ভূমি উন্নয়ন কর আইনের খসড়ার নীতিগত অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এর ফলে ২৫ বিঘা পর্যন্ত যাদের জমি আছে তাদের কর দিতে হবে না। এর বেশি হলেই পুরো জমির কর দিতে হবে। কারও যদি খাজনা দেওয়া ৩ বছর বাকি থাকে তাহলে প্রতি বছরের করের সঙ্গে ৬.২ শতাংশ বেশি দিতে হবে বলে এই আইনে উল্লেখ রয়েছে।

এছাড়া বৈঠকে ‘ভূমি সংস্কার আইন, ২০২২’, ‘জাতীয় মানসিক স্বাস্থ্য নীতি, বাংলাদেশ-২০২২’ এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি গত ৭ হতে ১২ মার্চ-২০২২ মেয়াদে প্রধানমন্ত্রীর সংযুক্ত আরব আমিরাত সফর সম্পর্কে মন্ত্রিসভাকে অবহিতকরণ এবং গত ২৬ ফেব্রুয়ারি হতে ১ মার্চ-২০২২ মেয়াদে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর নেতৃত্বে বাংলাদেশ প্রতিনিধিদল কর্তৃক কমিশন ওয়ান দ্য লিমিটস অব দ্য কন্টিনেন্টাল সেল্ফ (সিএলসিএস)-এর ৫৪তম অধিবেশনে বাংলাদেশ কর্তৃক মহিসোপানের অ্যামেন্ডমেন্ট সাবমিশন উপস্থাপন সম্পর্কে মন্ত্রিসভাকে জানানো হয়েছে।
তথ্যসূত্র: বাংলাট্রিবিউন