হামাসের ডেরায় ধর্ষিতারা অন্তঃসত্তা

আপডেট: জানুয়ারি ২৬, ২০২৪, ৫:০৪ অপরাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক :গাজায় ফিলিস্তিনি সশস্ত্র হামাসের ডেরায় বন্দি এখনো অন্তত ১৩০ জন ইসরায়েলি। এর মধ্যে এমন কয়েক নারী রয়েছেন, যাঁরা ধর্ষণের জেরে অন্তঃসত্তা হয়ে পড়েছেন। যাঁরা ইতোমধ্যেই মুক্তি পেয়েছেন, তাঁরাই এ তথ্য জানিয়েছেন। বন্দি-মুক্তি নিয়ে এমনিতেই চাপে রয়েছে ইসরায়েলের নেতানিয়াহু সরকার। ওই অন্তঃসত্তা নারীদের মুক্তি নিয়ে আরো চাপ বাড়ছে।

৫০ দিন হামাসের ডেরায় বন্দি থাকার পর মুক্তি পাওয়া চেন আলমগ-গোল্ডস্টেন জানিয়েছেন, বন্দিদশায় তিনি দেখেলেন, অল্পবয়সি মেয়েদের মধ্যে অনেকেরই ঋতুস্রাব বন্ধ হয়ে গিয়েছিল। তিনি বলেন, ‘আমি প্রার্থনা করি, ধর্ষণের জন্য ওরা যেন অন্তঃসত্তা না হয়ে পড়ে।’ কিন্তু সেই আশঙ্কাই বেশি।
ইসরায়েল প্রশাসনের চিন্তা, ওই নারীদের যদি সময়মতো মুক্ত করা না যায়, তা হলে গর্ভপাত করানো সম্ভব হবে না। শোনা যাচ্ছে, খুব শিগগিরই বন্দি-বিনিময়ে জোর দেবে ইসরায়েল।

এমনিতে ইসরায়েলে গর্ভপাত করাতে হলে নির্দিষ্ট সরকারি কমিটির অনুমতি নিতে হয়। কিন্তু এ ক্ষেত্রে লাল ফিতের ফাঁস এড়িয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া যাবে বলে জানা গিয়েছে। ওই নারীরা ধর্ষণের জেরে গর্ভে আসা সন্তানকে জন্ম দেবেন কী না, সেই সিদ্ধান্ত তাঁরা নিতে পারবেন। কিন্তু তার আগে তাঁদের নিরাপদে দেশে ফেরাতে হবে। একটি আমেরিকান দৈনিকের রিপোর্টে প্রকাশ্যে এসেছে বিষয়টি।
তথ্যসূত্র: আনন্দবাজার অনলাইন

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ