হাসান আজিজুল হক আর নেই, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও মেয়র লিটনের শোক

আপডেট: নভেম্বর ১৫, ২০২১, ১১:৩১ অপরাহ্ণ

রাবি প্রতিবেদক:


প্রখ্যাত কথাসাহিত্যিক হাসান আজিজুল হক মারা গেছেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাহি রাজিউন)। সোমবার (১৫ নভেম্বর) রাত সোয়া ৯টার দিকে রাজশাহীর নিজ বাসায় তিনি মারা যান। গত একমাস ধরে অসুস্থ অবস্থায় চিকিৎসাধীন ছিলেন হাসান আজিজুল হক। বাসায় রেখেই তার চিকিৎসা চলছিল।

হাসান আজিজুল হকের ছেলে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণরসায়ন ও অনুপ্রাণ বিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ইমতিয়াজ হাসানের বরাত দিয়ে তার মৃত্যুর বিষয়টি করেছেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক সাজ্জাদ বকুল। তিনি বলেন, হাসান আজিজুল হক দীর্ঘদিন ধরেই অসুস্থতায় ভুগছিলেন। রাত সোয়া ৯টার দিকে তিনি আমাদের মাঝ থেকে বিদায় নিয়েছেন।
জানা গেছে, হাসান আজিজুল হকের এক ছেলে ও তিন মেয়ে। ছেলে ইমতিয়াজ হাসান মৌলি রাজশাহী ইউনিভার্সিটির বায়োকেমিস্ট্রি বিভাগের শিক্ষক হিসেবে কর্মরত। মেয়েদের বিয়ে দিয়েছেন অনেক আগেই।

এদিকে রাবির উপ-উপাচার্য অধ্যাপক সুলতান উল ইসলাম টিপু জানান, মঙ্গলবার (১৬ নভেম্বর) শহীদ মিনারে তাকে (হাসান আজিজুল) শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করার পর বাদ জোহর রাবির কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ প্রাঙ্গণে তার জানাজা অনুষ্ঠিত হবে। পরে তাকে রাবির গোরস্থানে দাফন করা হবে বলেও জানান তিনি।

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ দপ্তরের প্রশাসক ড. আজিজুর রহমান বলেন, গত ২১ আগস্ট হাসান আজিজুল হকের শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ঢাকায় নেয়া হয়। সেখানে জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউটে তার চিকিৎসা হয়। পরে গত ৯ সেপ্টেম্বর ঢাকা থেকে সুস্থ হয়ে বাসায় ফিরেন তিনি। হাসান আজিজুল হক ১৯৩৯ সালের ২ ফেব্রুয়ারি বর্তমান ভারতের পশ্চিমবঙ্গের বর্ধমান জেলার যবগ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। জীবনের অধিকাংশ সময় তিনি রাজশাহীতে কাটিয়েছেন। ১৯৭৩ সালে তিনি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের দর্শন বিভাগে অধ্যাপক হিসেবে যোগ দেন।

এ বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০০৪ সাল পর্যন্ত ৩১ বছর অধ্যাপনা করেন। বর্তমানে তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের পূর্ব পাশে নগরের চৌদ্দপায় এলাকার আবাসিক এলাকা ‘বিহাস’-এর নিজ বাসা ‘উজান’-এ বসবাস করছিলেন। তার মৃত্যুতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।
এদিকে তাঁর মৃত্যুতে শোক জানিয়েছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, রাজশাহী সিটি করপোরেশনের মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন, সংসদ সদস্য আয়েন উদ্দিন, রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সাবেক সংসদ সদস্য আব্দুল ওয়াদুদ দারা ও রাজশাহী এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক ড. তসিকুল ইসলাম রাজাসহ বিভিন্ন সংগঠন ও শিক্ষক সমাজ।

একুশে পদক ও স্বাধীনতা পুরস্কারপ্রাপ্ত কথাসাহিত্যিক অধ্যাপক হাসান আজিজুল হকের মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।এক শোকবার্তায় তিনি বলেছেন, ‘হাসান আজিজুল হক তার সাহিত্যকর্ম ও সৃজনশীলতার জন্য স্মরণীয় হয়ে থাকবেন।’

প্রধানমন্ত্রী প্রয়াত এই গদ্যশিল্পীর আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

বার্ধক্যজনিত নানা জটিলতায় ভুগে সোমবার রাতে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন এলাকা বিহাসে নিজের বাড়িতে মারা যান হাসান আজিজুল হক। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের দর্শন বিভাগে তিন দশক অধ্যাপনার পর ২০০৪ সালে তিনি অবসরে গিয়েছিলেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে সম্মানসূচক ‘বঙ্গবন্ধু চেয়ার’ হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেন তিনি।

শোক বার্তায় রাসিক মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, ‘স্বাধীনতা পুরস্কার ও একুশে পদকপ্রাপ্ত উপমহাদেশের প্রখ্যাত কথাসাহিত্যিক হাসান আজিজুল হকের মৃত্যুতে এক উজ্জ্বল নক্ষত্রের পতন হলো। তাঁর মৃত্যু দেশ ও জাতির জন্য অপূরণীয় ক্ষতি। তিনি তাঁর সাহিত্যকর্মের মাধ্যমে আমাদের মাঝে চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবেন।’

শোক বার্তায় কথাসাহিত্যিক হাসান আজিজুল হকের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন এবং তাঁর শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেন রাসিক মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন।