হেরে শুরু চ্যাম্পিয়ন চেলসির

আপডেট: আগস্ট ১৩, ২০১৭, ১২:২০ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


গত মৌসুমের চ্যাম্পিয়ন চেলসি স্ট্যামফোর্ড ব্রিজে বড় ধরনের ধাক্কা খেল। প্রিমিয়ার লিগে নিজেদের প্রথম ম্যাচে তারা হেরে গেছে গত মৌসুমের ১৬ নম্বর দল বার্নলির কাছে। ৯ জনের চেলসির হারের ব্যবধান ৩-২ গোলের।
এ হারের সঙ্গে চেলসির দুঃখ আরও ভারি হয়েছে দুই তারকাকে হারিয়ে। ১৪ মিনিটে তাদের অধিনায়ক গ্যারি ক্যাহিল ও ৮১ মিনিটে সেস ফেব্রিগাস লাল কার্ড দেখেন। স্টিফেন ডিফোরকে ‘ভয়ানক’ ফাউল করলে ক্যাহিলকে মৌসুমের প্রথম লাল কার্ড দেখান রেফারি।
১০ জনের চেলসিকে পাওয়ার সুযোগ ভালোভাবে কাজে লাগায় বার্নলি। ২৫ মিনিটে লওটনের ক্রস থেকে হাফ ভলিতে গোল করেন স্যাম ভোকস। বিরতির আগে আরও দুই গোল পায় অতিথিরা। স্টিফেন ওয়ার্ড ৩৯ মিনিটে করেন ২-০। চ্যাম্পিয়ন চেলসি ৩-০ গোলে পিছিয়ে পড়ে ৪৩ মিনিটে ভোকসের দ্বিতীয় গোলে। বিরতির পর ফিরে ঘুরে দাঁড়ানোর সর্বোচ্চ চেষ্টা করে চেলসি। ৬০ মিনিটে বাতসুয়েইয়ের বদলি নামা আলভারো মোরাতা ৬৯ মিনিটে ব্লুদের জার্সিতে প্রথম গোল করেন। খেলা শেষ হওয়ার ৯ মিনিট আগে ফেব্রিগাস দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখেন। ৯ জনের চেলসি অবশ্য আর গোল খায়নি। বরং ৮৯ মিনিটে দাভিদ লুইজ ৩-২ করেন। তবে বার্নলিকে জয়বঞ্চিত করতে পারেনি অ্যান্তনিও কন্তের দল।

এর আগের ম্যাচেও ছিল চমক। লিভারপুলকে মৌসুমের প্রথম ম্যাচে ভড়কে দিয়েছে গতবার অল্পের জন্য অবনমন অঞ্চল এড়ানো ওয়াটফোর্ড। রোমাঞ্চকর ম্যাচের ইনজুরি সময়ে মিগুয়েল ব্রাইটোসের সমতাসূচক গোলে পয়েন্ট হারায় অল রেডরা। শনিবার ইয়ুর্গেন ক্লপের শততম ম্যাচে লিভারপুলকে ৩-৩ গোলে রুখে দিয়েছে ওয়াটফোর্ড।
স্টেফানো ওকাকা ৮ মিনিটের গোলে এগিয়ে দেন ওয়াটফোর্ডকে। সাদিও মানে ২৯ মিনিটে লিভারপুলকে সমতা ফেরালেও ৩ মিনিট পরই ভিকারেজ রোড স্টেডিয়ামে আবার উল্লাসে ফেটে পড়ে স্বাগতিক দর্শকরা। আব্দুলাই ডোকোরে ২-১ গোলে এগিয়ে দেন ওয়াটফোর্ডকে।
কোচ মার্কো সিলভার প্রথম ম্যাচে স্বাগতিকরা এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায়। কিন্তু ফিরেই হুয়েরেলহো গোমেসের ভুলের মাশুল দিতে হয় তাদের। মোহামেদ সালাহকে ডিবক্সে ফেলে দিলে ৫৫ মিনিটে পেনাল্টি থেকে ২-২ করেন রবার্তো ফিরমিনিয়ো। দুই মিনিট পর ম্যাচে প্রথমবার এগিয়ে যায় লিভারপুল। ক্লাবের রেকর্ড দামে চুক্তিবদ্ধ সালাহ করেন দলের তৃতীয় গোল, যেটা জয়ে মৌসুম শুরুর স্বপ্ন দেখাচ্ছিল লিভারপুলকে। তাদের স্বপ্ন ভেঙে খানখান ইনজুরি সময়ে। কর্নার থেকে উড়ে আসা বলে গোলপোস্টের একেবারে কাছ থেকে মাথা ছোঁয়ান ব্রাইটোস, তাকে আটকাতে পারেননি সিমোন মিগনোলেট। ওয়াটফোর্ড পেয়ে যায় এক পয়েন্ট। গোল ডটকম

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ