‘০১৩’ পেতে জোর চেষ্টা গ্রামীণফোনের

আপডেট: এপ্রিল ২৭, ২০১৭, ১২:৩৩ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক



নতুন কোড নম্বর বা নম্বর স্কিম পেতে এখনও জোর চেষ্টা চালাচ্ছে গ্রামীণফোন। সম্প্রতি অপারেটরটি নম্বর স্কিম ‘০১৩’ পেতে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগে চিঠি পাঠিয়েছে। সেই চিঠিতে নম্বরটি গ্রামীণফোনকে দিতে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের ‘সর্বোচ্চ পর্যায়’ থেকে সুপারিশও করা হয়েছে।
কিন্তু নম্বরটি গ্রামীণফোনকে দেয়া হবে কিনা বা হলে কোন রূপে দেয়া হবে আর না দেয়া হলে কেন দেয়া হচ্ছে না তার যৌক্তিকতা খুঁজতে কমিশনের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা কাজ করছেন বলে সংশ্লিষ্ট একটি দায়িত্বশীল সূত্র জানিয়েছে। গত বছর ‘০১৩’ নম্বর স্কিম গ্রামীণফোনকে প্রাথমিকভাবে অনুমোদন দিলেও শেষ পর্যন্ত তা ‘চূড়ান্তভাবে’ বরাদ্দ দেয়নি নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসি। যৌক্তিক কারণ দেখিয়ে গ্রামীণফোনকে নম্বর স্কিম বরাদ্দ দেয়া না হলেও জোর চেষ্টা অব্যাহত ছিল অপারেটরটির।
এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে গ্রামীণফোনের হেড অব এক্সটার্নাল অ্যাফেয়ার্স সৈয়দ তালাত কামাল বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘নম্বর স্কিমের বিষয়টি ব্লক আছে। আমরা আমাদের সমস্যার কথা জানিয়ে গত সপ্তাহে বিটিআরসিকে চিঠি দিয়েছি। আশা করছি, এ সপ্তাহের মধ্যে চূড়ান্ত অনুমোদন পেয়ে যাবো।’
এর আগে ‘০১৭’-এর পাশাপাশি গ্রামীণফোন নতুন নম্বর স্কিম ০১৩ বরাদ্দ চেয়ে আবেদন করে বিটিআরসিতে। কারণ হিসেবে অপারেটরটি উল্লেখ করে, নভেম্বরের মধ্যে গ্রামীণফোনের জন্য বরাদ্দকৃত ১০ কোটি নম্বরের কোটা শেষ হয়ে যাবে। ফলে তাদের নতুন নম্বর স্কিম প্রয়োজন। পরে অবশ্য বিটিআরসি অপারেটরটিকে নম্বর স্কিম ‘০১৩’ অনুমোদন দিলেও পরবর্তীতে অনুমোদন ব্লক করে দিয়ে বাজারে অব্যবহৃত থাকা গ্রামীণফোনের প্রায় ৪ কোটি সিম (একেবারে বন্ধ হয়ে যাওয়া, ব্লক থাকা, ব্যবহার না হওয়া) মালিকানা বাতিলের ঘোষণা দিয়ে নতুন করে বিক্রির জন্য অনুমতি দেয়। কিন্তু গ্রামীণফোনের আগ্রহ নতুন নম্বর স্কিমে।
এদিকে আরেক অপারেটর বাংলালিংকও নতুন নম্বর স্কিম চেয়ে গত বছরের ১ সেপ্টেম্বর চিঠি দিয়েছিল বিটিআরসিতে। ‘০১০’ নম্বর স্কিমের জন্য আবেদন করলেও পরে এ বিষয়ে আর কোনও অগ্রগতি হয়নি। এ প্রসঙ্গে বংলালিংকের কোনও আপডেটও নেই বলে বাংলা ট্রিবিউনকে জানিয়েছে অপারেটরটির জনসংযোগ বিভাগ।
ওই চিঠিতে বাংলালিংক উল্লেখ করেছিল, অপারেটরটির (১ সেপ্টেম্বর ২০১৬) গ্রাহক ৩ কোটি ১০ লাখ (২০১৭ সালের ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ৩ কোটি ১৩ লাখের বেশি) হলেও সেবা টেলিকমের সময়কাল থেকে অপারেটরটির ৮০ শতাংশ নম্বর ব্যবহার হয়ে গেছে। অবশিষ্ট ২০ শতাংশ নম্বরও শেষ হয়ে যাবে তাড়াতাড়ি। এ কারণে তারা ‘০১০’ বরাদ্দ চায়।
বিটিআরসির একজন দায়িত্বশীল কর্মকর্তা নিজেকে উদ্ধৃত না করে বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘গ্রামীণফোন এটা স্রেফ ব্যবসায়িক উদ্দেশে নিতে চাইছে। তাদের পুরনো সিম (প্রায় ৪ কোটি) নতুন করে বিক্রির অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। তারপরও কেন তারা এটা চাইছে আমার বোধগম্য নয়।’
এক প্রশ্নের জবাবে বিটিআরসির ওই কর্মকর্তা বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, “যে কারণে গ্রামীণফোনের নতুন নম্বর স্কিম ব্লক করা হয়েছিল তা উঠিয়ে নিয়ে যদি তাদের ‘০১৩’ দেয়া হয় তাহলে বাংলালিংকেরটা ব্লক থাকবে কীভাবে? একই যুক্তিতে তাদের ব্লকও উঠে যাবে।”-বাংলা ট্রিবিউন