০৫ আগস্ট

আপডেট: August 5, 2020, 12:13 am

৫ আগস্ট, ১৯৬৬ : বঙ্গবন্ধু কারাগারে বসে লিখেছেন, “কয়েদিদের ধারণা, আমি ছাড়া পেলে ওদের মুক্তিরও একটা সম্ভাবনা আছে। … ৪০-৫০ বছর এমনকি ৭০ বৎসর জেল হয়েছে বিভিন্ন ডাকাতি ও খুন মামলায় এরকম কয়েদিও ঢাকা জেলে আছে। জেল খাটছে, হাসছে, খেলছে। ‘অল্প দুঃখে কাতর, অতি দুঃখে পাথর’, অনেকেই পাথর হয়ে গেছে। মনে করে এই জেলই তাদের বাড়ি। জীবনে আর যাওয়া হবে না বাইরে। এতদিন জেল খাটলে কি আর বাঁচবে। তবুও আশা করে আর সুযোগ পাইলেই বলে, ‘ স্যার, আপনি নিশ্চয়ই আমাদের ছাড়বেন। আপনি যদি ক্ষমতায় যান – জেল কি জিনিস আপনিই বোঝেন, তাই আমাদের ছেড়ে দিবেন।’ মনে মনে বললাম, আমাকে এরা ছাড়বে না আর … তোমাদের আশা এ জীবনে আর পূরণ হবে না।” [সূত্র : কারাগারের রোজনামচা – শেখ মুজিবুর রহমান, পৃষ্ঠা ১৯১]
৫ আগস্ট, ১৯৬৮ : বঙ্গবন্ধুর বিরুদ্ধে করা আগরতলা যড়যন্ত্র মামলার বঙ্গবন্ধুর পক্ষে বিশেষ ট্রাইব্যুনালের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে রিট আবেদন দাখিল করেন ব্রিটিশ আইনজীবী স্যার টমাস উইলিয়াম। ব্রিটিশ আইনজীবী স্যার টমাস উইলিয়াম আগরতলা যড়যন্ত্র মামলার বঙ্গবন্ধুর পক্ষের আইনজীবী হিসাবে নিয়োজিত ছিলেন।
৫ আগস্ট ১৯৭১ : যুক্তরাষ্ট্র কংগ্রেসে বঙ্গবন্ধুর সামরিক আদালতে বিচারের প্রতিবাদে পাকিস্তানকে সাহায্য বন্ধ করার ঘোষণার জন্য বাংলাদেশ সরকার সন্তোষ প্রকাশ করে।
৫ আগস্ট, ১৯৭১ : মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণের জন্য বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের দ্বিতীয় পুত্র কিশোর শেখ জামাল ১৯৭১ সালের এই দিনে ধানমন্ডির তারকাঁটার বেড়া দেয়া পাকিস্তানি বাহিনীর বন্দিশিবির থেকে পালিয়ে যান। ধানমন্ডি থেকে পালিয়ে ভারতের আগরতলা পৌঁছানো ছিল রীতিমতো ঝুঁকিপূর্ণ পথচলা। আগরতলা থেকে কলকাতা হয়ে শেখ জামাল পৌঁছলেন ভারতের উত্তর প্রদেশের কালশীতে। মুজিব বাহিনীর ৮০ জন নির্বাচিত তরুণের সঙ্গে শেখ জামাল ২১ দিনের বিশেষ প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেন। প্রশিক্ষণ সমাপ্তির পর শেখ জামাল ৯ নম্বর সেক্টরে যোগদান করেন। গেরিলা হামলায় এরই মধ্যে ধরাশায়ী পাক বাহিনী। [সূত্র : চট্রগ্রাম প্রতিদিন, ১৫ আগস্ট, ২০১৯]
৫ আগস্ট, ১৯৭২ : জারিকৃত রাষ্ট্রীয় সম্পত্তি অধিগ্রহণ ও প্রজাস্বত্ব (তৃতীয় সংশোধনী) আদেশ, ১৯৭২ (রাষ্ট্রপতির আদেশ নং ৯৫) (১৯৭২) অনুযায়ী বঙ্গবন্ধু সরকার অনুর্ধ ২৫ বিঘা পর্যন্ত জমির খাজনা মওকুফ করে দেন। এটি ছিল ১৯৭০ সালের নির্বাচনে আওয়ামী লীগের ইশতেহারের অংশ। একই আইনে ১০০ বিঘা পর্যন্ত জমির মালিকানা সিলিং নির্ধারণ করে দেওয়া হয়।